ঢাকা ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কলাপাড়ায় ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫২:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৬৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

এএম মিজানুর রহমান বুলেট, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি :

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় এক তরুনীকে (১৮) ভয় দেখিয়ে দেড় মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগে ইয়াসিন হাওলাদার নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) বিকালে অভিযুক্তকে ধরতে পুলিশ ধাওয়া দিলে তিনি একটি পুকুরে ঝাঁপ দেন। পরে লালুয়া ইউপির চান্দুপাড়া গ্রাম থেকে পালিয়ে থাকার চার মাস ২১ দিন পর তাকে গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশ জানায়, গত ৭ জুন ভুক্তভোগী তরুনীর মা বাদী হয়ে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার অভিযোগে উল্লেখ করেন, ওই তরুনীর বাবা-মা প্রতিদিন রাতে বাড়ির পাশের খালে মাছ শিকার করেন। এবং ওই সময়ে তরুনী বাসায় একা থাকতেন। এ সুযোগে গত বছরের পহেলা অক্টোবর থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত রাতে ইয়াসিন হাওলাদার ওই তরুনীকে ঘরে একা পেয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। পরে এ বছরের ৪ মে ওই তরুনীর অন্যত্র বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের কয়েক দিন পর তার শারীরিক পরিবর্তণ দেখা দিলে তরুনী অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। ওই সময় শ্বশুড় বাড়ির লোকজন তাকে চিকিৎসকের কাছে নিলে জানতে পারে সে সাত মাসের অন্তঃসত্বা।

ওইদিনই তরুনীকে শ্বশুর বাড়ি থেকে তার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিলে পরিবারের চাপের মু্খে তরুনী অভিযুক্ত ইয়াসিন কর্তৃক তার উপর নির্যাতনের কথা জানায়। এদিকে ওই তরুনী একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দিলে বর্তমানে আড়াই মাস বয়সী সন্তানকে নিয়ে এখন তিনি বাবার বাড়িতে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কলাপাড়া থানার ওসি মো. জসিম জানান, অভিযুক্ত প্রায় ৫ মাস গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও গতকাল তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

কলাপাড়ায় ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৪:৫২:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২

এএম মিজানুর রহমান বুলেট, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি :

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় এক তরুনীকে (১৮) ভয় দেখিয়ে দেড় মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগে ইয়াসিন হাওলাদার নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) বিকালে অভিযুক্তকে ধরতে পুলিশ ধাওয়া দিলে তিনি একটি পুকুরে ঝাঁপ দেন। পরে লালুয়া ইউপির চান্দুপাড়া গ্রাম থেকে পালিয়ে থাকার চার মাস ২১ দিন পর তাকে গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশ জানায়, গত ৭ জুন ভুক্তভোগী তরুনীর মা বাদী হয়ে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার অভিযোগে উল্লেখ করেন, ওই তরুনীর বাবা-মা প্রতিদিন রাতে বাড়ির পাশের খালে মাছ শিকার করেন। এবং ওই সময়ে তরুনী বাসায় একা থাকতেন। এ সুযোগে গত বছরের পহেলা অক্টোবর থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত রাতে ইয়াসিন হাওলাদার ওই তরুনীকে ঘরে একা পেয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। পরে এ বছরের ৪ মে ওই তরুনীর অন্যত্র বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের কয়েক দিন পর তার শারীরিক পরিবর্তণ দেখা দিলে তরুনী অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। ওই সময় শ্বশুড় বাড়ির লোকজন তাকে চিকিৎসকের কাছে নিলে জানতে পারে সে সাত মাসের অন্তঃসত্বা।

ওইদিনই তরুনীকে শ্বশুর বাড়ি থেকে তার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিলে পরিবারের চাপের মু্খে তরুনী অভিযুক্ত ইয়াসিন কর্তৃক তার উপর নির্যাতনের কথা জানায়। এদিকে ওই তরুনী একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দিলে বর্তমানে আড়াই মাস বয়সী সন্তানকে নিয়ে এখন তিনি বাবার বাড়িতে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কলাপাড়া থানার ওসি মো. জসিম জানান, অভিযুক্ত প্রায় ৫ মাস গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও গতকাল তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।