ঢাকা ০২:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বেড়ায় ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৫৮:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৪৫৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শফিউল আযম : পাবনা জেলার বেড়ায় দাদীর ওপর অভিমান করে সাদিয়া (১৪) নামের ৮ম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে বাড়ীর মধ্যে অবস্থিত মুরগির খামার ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সে উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের খাগছাড়া গ্রামের সবুজ সরদারের মেয়ে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সাদিয়ার পিতা-মাতা চাকুরির সুবাদে ঢাকায় থাকেন। শিশু কাল থেকেই সাদিয়া দাদি মনোয়ারা খাতুনের কাছে লালিত-পালিত হচ্ছিল স্থানীয় পাঁচুরিয়া মাদ্রাসায় লেখাপড়া করছিল। মঙ্গলবার সকালে বাড়ীর উঠান ঝাড়– দেয়া নিয়ে দাযি মনোয়ারার সাথে সাদিয়ার ঝগড়া হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সকলের অগোচরে সাদিয়া মুরগির খামার ঘরে গিয়ে দরজা বন্ধ করে আড়ার সাথে ওরনা পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস নেয়।

এদিকে সকাল ১০ টার দিকে দাদি ঘরের মধ্যে উকিঁ দিয়ে দেখেন সাদিয়া ঘরের আড়ার সাথে ঝুলে আছে। এসময় তার চিৎকারে প্রতিবেশিরা এসে ঘরের বেড়া কেটে তাকে উদ্ধার করে বেড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা করে তাকে মৃত ঘোষনা করে।

বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ ফাতেমা তুজ জান্নাত জানান, হাসপাতালে আনার অনেক আগেই ওই কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে।

বেড়া মডেল থানার ওসি তদন্ত মোঃ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে বেড়া হাসপাতাল থেকে কিশোরী সাদিয়ার লাশ বেড়া মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে ময়না তদন্তের জন্য লাশ পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে সে আত্মহত্যা করেছে কিনা।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

বেড়ায় ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ০৮:৫৮:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

শফিউল আযম : পাবনা জেলার বেড়ায় দাদীর ওপর অভিমান করে সাদিয়া (১৪) নামের ৮ম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে বাড়ীর মধ্যে অবস্থিত মুরগির খামার ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সে উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের খাগছাড়া গ্রামের সবুজ সরদারের মেয়ে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সাদিয়ার পিতা-মাতা চাকুরির সুবাদে ঢাকায় থাকেন। শিশু কাল থেকেই সাদিয়া দাদি মনোয়ারা খাতুনের কাছে লালিত-পালিত হচ্ছিল স্থানীয় পাঁচুরিয়া মাদ্রাসায় লেখাপড়া করছিল। মঙ্গলবার সকালে বাড়ীর উঠান ঝাড়– দেয়া নিয়ে দাযি মনোয়ারার সাথে সাদিয়ার ঝগড়া হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সকলের অগোচরে সাদিয়া মুরগির খামার ঘরে গিয়ে দরজা বন্ধ করে আড়ার সাথে ওরনা পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস নেয়।

এদিকে সকাল ১০ টার দিকে দাদি ঘরের মধ্যে উকিঁ দিয়ে দেখেন সাদিয়া ঘরের আড়ার সাথে ঝুলে আছে। এসময় তার চিৎকারে প্রতিবেশিরা এসে ঘরের বেড়া কেটে তাকে উদ্ধার করে বেড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা করে তাকে মৃত ঘোষনা করে।

বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ ফাতেমা তুজ জান্নাত জানান, হাসপাতালে আনার অনেক আগেই ওই কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে।

বেড়া মডেল থানার ওসি তদন্ত মোঃ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে বেড়া হাসপাতাল থেকে কিশোরী সাদিয়ার লাশ বেড়া মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে ময়না তদন্তের জন্য লাশ পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে সে আত্মহত্যা করেছে কিনা।