ঢাকা ০৯:০৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

কারো তাবিজে ও মন্ত্রে বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়নি: এলজিআরডি মন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৮:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪২৫ বার পড়া হয়েছে

এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলাম

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক

কারো তাবিজে ও মন্ত্রে বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়নি। জনগণকে সাথে নিয়েই সরকারের উদ্যোগের কারণে এই উন্নতি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন, এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আগে দারিদ্র্য পরিস্থিতি এমন ছিল যে, অনেকে খেতে পেতো না। অনেকে ভিক্ষা করতো। দেশে দুর্নীতি আছে, সমস্যা আছে। কিন্তু উন্নতিও হয়েছে। মাথাপিছু আয় অনেক বেড়েছে।

আজ শনিবার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে তাজুল ইসলাম বলেন, ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারন করার আশঙ্কা না থাকলেও পরিস্থিতি অনেকটা বেদনাদায়ক। এক্ষেত্রে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, ডেঙ্গুতে একজনের মৃত্যুও দুঃখজনক। গতবারের চেয়ে এবার আক্রান্তও বেড়েছে। যেসব এলাকায় বেশি ছড়িয়েছে, সেসব এলাকাকে গুরুত্ব দিয়ে অভিযান চলছে। সিটি করপোরেশন অভিযান পরিচালনা করছে। পর্যাপ্ত কীটনাশক বরাদ্দ করা হয়েছে। মনিটরিং করা হচ্ছে। কিন্তু সবাই সচেতন না থাকলে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করার কাজ কঠিন। সিঙ্গাপুর ও ভিয়েতনামের মতো দেশে বাংলাদেশের চেয়ে খারাপ অবস্থা।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

কারো তাবিজে ও মন্ত্রে বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়নি: এলজিআরডি মন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৪:০৮:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক

কারো তাবিজে ও মন্ত্রে বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়নি। জনগণকে সাথে নিয়েই সরকারের উদ্যোগের কারণে এই উন্নতি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন, এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আগে দারিদ্র্য পরিস্থিতি এমন ছিল যে, অনেকে খেতে পেতো না। অনেকে ভিক্ষা করতো। দেশে দুর্নীতি আছে, সমস্যা আছে। কিন্তু উন্নতিও হয়েছে। মাথাপিছু আয় অনেক বেড়েছে।

আজ শনিবার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে তাজুল ইসলাম বলেন, ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারন করার আশঙ্কা না থাকলেও পরিস্থিতি অনেকটা বেদনাদায়ক। এক্ষেত্রে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, ডেঙ্গুতে একজনের মৃত্যুও দুঃখজনক। গতবারের চেয়ে এবার আক্রান্তও বেড়েছে। যেসব এলাকায় বেশি ছড়িয়েছে, সেসব এলাকাকে গুরুত্ব দিয়ে অভিযান চলছে। সিটি করপোরেশন অভিযান পরিচালনা করছে। পর্যাপ্ত কীটনাশক বরাদ্দ করা হয়েছে। মনিটরিং করা হচ্ছে। কিন্তু সবাই সচেতন না থাকলে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করার কাজ কঠিন। সিঙ্গাপুর ও ভিয়েতনামের মতো দেশে বাংলাদেশের চেয়ে খারাপ অবস্থা।