ঢাকা ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

৮ শর্তে রাজশাহীতে বিএনপিকে বিভাগীয় গণসমাবেশের অনুমতি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:০৩:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২
  • / ৪২৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রাজশাহী ব্যুরো :

আজ বুধবার ৮ শর্তে বিএনপিকে রাজশাহীতে গণসমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়। মহানগর পুলিশের নগর গোয়েন্দা শাখার পুলিশ সুপার স্বাক্ষরিত অনুমতি পত্রটি দেয়া হয় বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুকে।

এতে বলা হয়, আগামী ৩ ডিসেম্বর ২০২২ শনিবার রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশ আয়োজন ও মাইক ব্যবহারের অনুমতি আছে। উপর্যুক্ত বিষয়ে আপনার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজপাড়া থানাধীন মাদ্রাসা ময়দানে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর আহ্বানে রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশ অনুষ্ঠানের অনুমতি নির্দেশক্রমে নিম্নলিখিত শর্ত সাপেক্ষে প্রদান করা হলো-

শর্তাবলীঃ

মাদ্রাসা ময়দান চত্ত্বরের মধ্যে সমাবেশের যাবতীয় কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখতে হবে সমাবেশস্থলের আশপাশসহ কোনো অবস্থাতেই সমবেত হওয়া এবং যান ও জন চলাচলে কোনো প্রকার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না। নিরাপত্তার জন্য সমাবেশে আগতদের চেকিং এর ব্যবস্থা করতে হবে এবং নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক (দৃশ্যমান আইডি কার্ডসহ) নিয়োগ করতে হবে। নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় সমাবেশস্থলের অভ্যন্তরে ও বাইরে উন্নত রেজ্যুলেশনযুক্ত সিসি ক্যামেরা স্থাপন করতে হবে। সমাবেশস্থলের বাইরে বা সড়কের পাশে প্রজেক্টর/মাইক/সাউন্ড বক্স ব্যবহার করা যাবে না। সমাবেশস্থলে ইন্টারনেট সংযোগ, ব্রডব্যান্ড সংযোগ ও রাউটার ব্যবহার করা যাবে না। যানবাহনসমূহ শহরের ভেতরে প্রবেশ করানো যাবে না। রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশের কর্মসূচি পালন থেকে বিরত থাকতে হবে। পার্কিং এর জন্য নির্ধারিত স্থানে গাড়ি পার্কিং করতে হবে। মূল সড়কে কোনো পার্কিং করা যাবে না। এই অনুমতিপত্র স্থান ব্যবহারের অনুমতি নয়।
স্থান ব্যবহারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে অনুমোদন নিতে হবে। জনস্বার্থে কর্তৃপক্ষ কোনো কারণ দর্শানো ব্যতিরেকে অনুমতি আদেশ বাতিল করার ক্ষমতা সংরক্ষণ করেন। উল্লিখিত শর্তাবলী যথাযথভাবে পালন না করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে দলটির নেতারা বলেছেন, বিএনপি দেশব্যাপী যে বিভাগীয় সমাবেশে করছে, তার মধ্যে রাজশাহীর সমাবেশই হবে সবচেয়ে বড়। সব বাধা পেরিয়ে এই সমাবেশ হবে।

এই গণসমাবেশ উপলক্ষে বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে দলের নেতারা এ ঘোষণা দেন। নগরীর মালোপাড়ায় নগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেন, আগামী ৩ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ বানচাল করতে কিছু অতি উৎসাহী পুলিশ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা দিয়েছেন। বিভাগজুড়ে এ পর্যন্ত শতাধিক মামলা করা হয়েছে।তারপরও রাজশাহীতে দেশের সবচেয়ে বড় গণসমাবেশ হবে। অন্তত ১৫ লাখ নেতাকর্মী যোগ দেবেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, সমাবেশের আগে ধর্মঘট হবে। নেতাকর্মীরা আগে আগেই আসতে শুরু করেছে। তাদের থাকার জন্য আমরা শহরের কমিউনিটি সেন্টারগুলো ঠিক করেছিলাম। পুলিশ সবখানে গিয়ে বলে আসছে, কেউ যদি বিএনপির লোকজনকে থাকতে দেয়, তাহলে তাকেই ধরে নিয়ে যাবে। এটা কেমন কথা ভাই? একটা সভ্য দেশে এটা হতে পারে?’

রাজশাহীতেই দেশের সবচেয়ে বড় সমাবেশ হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের স্থানীয় নেতাকর্মীরা দূর থেকে আসা মানুষকে থাকতে দেবেন। প্রয়োজনে নিজে না খেয়ে তাদের খাওয়াবেন। এভাবেই এখন আমাদের পরিকল্পনা করতে হচ্ছে। যে কোন মূল্যে সমাবেশ সফল হবে এবং এই সমাবেশ থেকে ঢাকার সমাবেশের একটা গণজোয়ার সৃষ্টি হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির রাজশাহী বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল,সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বা/খ:জই

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

৮ শর্তে রাজশাহীতে বিএনপিকে বিভাগীয় গণসমাবেশের অনুমতি

আপডেট সময় : ০৫:০৩:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

রাজশাহী ব্যুরো :

আজ বুধবার ৮ শর্তে বিএনপিকে রাজশাহীতে গণসমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়। মহানগর পুলিশের নগর গোয়েন্দা শাখার পুলিশ সুপার স্বাক্ষরিত অনুমতি পত্রটি দেয়া হয় বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুকে।

এতে বলা হয়, আগামী ৩ ডিসেম্বর ২০২২ শনিবার রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশ আয়োজন ও মাইক ব্যবহারের অনুমতি আছে। উপর্যুক্ত বিষয়ে আপনার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজপাড়া থানাধীন মাদ্রাসা ময়দানে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর আহ্বানে রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশ অনুষ্ঠানের অনুমতি নির্দেশক্রমে নিম্নলিখিত শর্ত সাপেক্ষে প্রদান করা হলো-

শর্তাবলীঃ

মাদ্রাসা ময়দান চত্ত্বরের মধ্যে সমাবেশের যাবতীয় কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখতে হবে সমাবেশস্থলের আশপাশসহ কোনো অবস্থাতেই সমবেত হওয়া এবং যান ও জন চলাচলে কোনো প্রকার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না। নিরাপত্তার জন্য সমাবেশে আগতদের চেকিং এর ব্যবস্থা করতে হবে এবং নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক (দৃশ্যমান আইডি কার্ডসহ) নিয়োগ করতে হবে। নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় সমাবেশস্থলের অভ্যন্তরে ও বাইরে উন্নত রেজ্যুলেশনযুক্ত সিসি ক্যামেরা স্থাপন করতে হবে। সমাবেশস্থলের বাইরে বা সড়কের পাশে প্রজেক্টর/মাইক/সাউন্ড বক্স ব্যবহার করা যাবে না। সমাবেশস্থলে ইন্টারনেট সংযোগ, ব্রডব্যান্ড সংযোগ ও রাউটার ব্যবহার করা যাবে না। যানবাহনসমূহ শহরের ভেতরে প্রবেশ করানো যাবে না। রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশের কর্মসূচি পালন থেকে বিরত থাকতে হবে। পার্কিং এর জন্য নির্ধারিত স্থানে গাড়ি পার্কিং করতে হবে। মূল সড়কে কোনো পার্কিং করা যাবে না। এই অনুমতিপত্র স্থান ব্যবহারের অনুমতি নয়।
স্থান ব্যবহারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে অনুমোদন নিতে হবে। জনস্বার্থে কর্তৃপক্ষ কোনো কারণ দর্শানো ব্যতিরেকে অনুমতি আদেশ বাতিল করার ক্ষমতা সংরক্ষণ করেন। উল্লিখিত শর্তাবলী যথাযথভাবে পালন না করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে দলটির নেতারা বলেছেন, বিএনপি দেশব্যাপী যে বিভাগীয় সমাবেশে করছে, তার মধ্যে রাজশাহীর সমাবেশই হবে সবচেয়ে বড়। সব বাধা পেরিয়ে এই সমাবেশ হবে।

এই গণসমাবেশ উপলক্ষে বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে দলের নেতারা এ ঘোষণা দেন। নগরীর মালোপাড়ায় নগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেন, আগামী ৩ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ বানচাল করতে কিছু অতি উৎসাহী পুলিশ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা দিয়েছেন। বিভাগজুড়ে এ পর্যন্ত শতাধিক মামলা করা হয়েছে।তারপরও রাজশাহীতে দেশের সবচেয়ে বড় গণসমাবেশ হবে। অন্তত ১৫ লাখ নেতাকর্মী যোগ দেবেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, সমাবেশের আগে ধর্মঘট হবে। নেতাকর্মীরা আগে আগেই আসতে শুরু করেছে। তাদের থাকার জন্য আমরা শহরের কমিউনিটি সেন্টারগুলো ঠিক করেছিলাম। পুলিশ সবখানে গিয়ে বলে আসছে, কেউ যদি বিএনপির লোকজনকে থাকতে দেয়, তাহলে তাকেই ধরে নিয়ে যাবে। এটা কেমন কথা ভাই? একটা সভ্য দেশে এটা হতে পারে?’

রাজশাহীতেই দেশের সবচেয়ে বড় সমাবেশ হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের স্থানীয় নেতাকর্মীরা দূর থেকে আসা মানুষকে থাকতে দেবেন। প্রয়োজনে নিজে না খেয়ে তাদের খাওয়াবেন। এভাবেই এখন আমাদের পরিকল্পনা করতে হচ্ছে। যে কোন মূল্যে সমাবেশ সফল হবে এবং এই সমাবেশ থেকে ঢাকার সমাবেশের একটা গণজোয়ার সৃষ্টি হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির রাজশাহী বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল,সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বা/খ:জই