ঢাকা ০৮:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

৭ হাজার মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে রাস্তা ও বাঁধ নির্মানের দাবী

লিয়াকত হোসাইন লায়ন
  • আপডেট সময় : ০২:৩২:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৬২১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
জামালপুরের ইসলামপুরে দূর্ভোগ লাঘবে যমুনার দূর্গম চরাঞ্চল সাপধরী ইউনিয়নের কাশারীডোবা খালের উপর বাঁধ-কাম রাস্তা নির্মানের দাবী জানিয়ে স্মারক লিপি প্রদান করেছে এলাকাবাসী।
গতকাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলামের নিকট জন প্রতিনিধি ও এলাকাবাসী স্বাক্ষরিত স্মারক লিপি প্রদান করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ মন্ডল, নেতৃবৃন্দসহ এলাকাবাসী।
জানা গেছে, ইউনিয়নের কাশারীডোবা গ্রামে খাল থাকায় বর্ষা মৌসুমে গ্রামটি দুইভাগে বিভক্ত হয়ে প্রায় সাত হাজার মানুষকে যাতায়াতে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়।
এতে একপার্শে ফরিদুল হক খান দুলাল বাজার, বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাফেজিয়া মাদরাসা, কমিউনিটি ক্লিনিক, অন্যপাশে কাশারীডোবা নতুন বাজার, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঠনঠনিয়া পাড়া এবতেদায়ী মাদরাসা যাতায়াতে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ কৃষকদের উৎপাদিত ফসল ঘরে তুলতে  চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়।
এছাড়াও ফরিদুল হক খান দুলাল বাজার থেকে উলিয়া বাজার অভিমুখী একটি পাঁকা রাস্তা ইতিমধ্য অনুমোদিত হলেও বাঁধ-কাম রাস্তা না থাকায় পাঁকাকরণ বাস্তবায়ন স্থগিত রয়েছে।
এলাকাবাসীর দাবী, ২শ’ ৫০ মিটার স্বল্প প্রশস্ত বাঁধটি নির্মান হলে ইউনিয়নের আমতলী,ঠনঠনিয়া পাড়া, জোড়ডোবা, ইন্দুলামারী, নামার চর, কোদালধোয়া, কটাপুর, রাজাপুর, ভাংবাড়ী, চিনাডুলী ইউনিয়নের নয়াপাড়া, আলীপাড়া এবং বেলগাছা ইউনিয়নের শিলদহ, সিন্দুরতলী গ্রামের সাথে যোগাযোগ সৃষ্টি হবে এবং যাতায়াতের পথ সুগম হবে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন- দূর্গম চরাঞ্চলের দূর্ভোগ লাঘবে ধর্মমন্ত্রীর সাথে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

৭ হাজার মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে রাস্তা ও বাঁধ নির্মানের দাবী

আপডেট সময় : ০২:৩২:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
জামালপুরের ইসলামপুরে দূর্ভোগ লাঘবে যমুনার দূর্গম চরাঞ্চল সাপধরী ইউনিয়নের কাশারীডোবা খালের উপর বাঁধ-কাম রাস্তা নির্মানের দাবী জানিয়ে স্মারক লিপি প্রদান করেছে এলাকাবাসী।
গতকাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলামের নিকট জন প্রতিনিধি ও এলাকাবাসী স্বাক্ষরিত স্মারক লিপি প্রদান করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ মন্ডল, নেতৃবৃন্দসহ এলাকাবাসী।
জানা গেছে, ইউনিয়নের কাশারীডোবা গ্রামে খাল থাকায় বর্ষা মৌসুমে গ্রামটি দুইভাগে বিভক্ত হয়ে প্রায় সাত হাজার মানুষকে যাতায়াতে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়।
এতে একপার্শে ফরিদুল হক খান দুলাল বাজার, বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাফেজিয়া মাদরাসা, কমিউনিটি ক্লিনিক, অন্যপাশে কাশারীডোবা নতুন বাজার, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঠনঠনিয়া পাড়া এবতেদায়ী মাদরাসা যাতায়াতে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ কৃষকদের উৎপাদিত ফসল ঘরে তুলতে  চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়।
এছাড়াও ফরিদুল হক খান দুলাল বাজার থেকে উলিয়া বাজার অভিমুখী একটি পাঁকা রাস্তা ইতিমধ্য অনুমোদিত হলেও বাঁধ-কাম রাস্তা না থাকায় পাঁকাকরণ বাস্তবায়ন স্থগিত রয়েছে।
এলাকাবাসীর দাবী, ২শ’ ৫০ মিটার স্বল্প প্রশস্ত বাঁধটি নির্মান হলে ইউনিয়নের আমতলী,ঠনঠনিয়া পাড়া, জোড়ডোবা, ইন্দুলামারী, নামার চর, কোদালধোয়া, কটাপুর, রাজাপুর, ভাংবাড়ী, চিনাডুলী ইউনিয়নের নয়াপাড়া, আলীপাড়া এবং বেলগাছা ইউনিয়নের শিলদহ, সিন্দুরতলী গ্রামের সাথে যোগাযোগ সৃষ্টি হবে এবং যাতায়াতের পথ সুগম হবে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন- দূর্গম চরাঞ্চলের দূর্ভোগ লাঘবে ধর্মমন্ত্রীর সাথে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।