ঢাকা ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

৭ জনকে প্রতিমন্ত্রী নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৭:১১:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪
  • / ৪২১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের মন্ত্রিসভায় যুক্ত হচ্ছেন আরও সাত প্রতিমন্ত্রী। তাদের নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এবার উপমন্ত্রী শূন্য থাকছে শেখ হাসিনার চতুর্থ মন্ত্রিসভা।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে মন্ত্রিপরিষদের সচিব মাহবুব হোসেন শুক্রবার (১ মার্চ) এক প্রজ্ঞাপনে সাত প্রতিমন্ত্রী নিয়োগের কথা জানান।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে যাদের ফোন করা হয়েছে তাদের মধ্যে চারজনই নারী সংসদ সদস্য।

নওগাঁও-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. শহীদুজ্জামান সরকার, রাজশাহী-৫ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুল ওয়াদুদ এবং চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী প্রতিমন্ত্রী নিয়োগ পেয়েছেন।

ফোন পেয়েছেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন পেয়েছি।

মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সামসুন্নাহার চাঁপা প্রথমবারের মতো সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন পেয়ে এবার সংসদ সদস্য হয়েছেন।

টানা তিনবার সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াসিকা আয়শা খানও ইতোমধ্যে ফোন পেয়েছেন। তার বাবা আতাউর রহমান খান কায়সার বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ছিলেন।

ক্ষমতাসীন দলের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন করে শপথ নেওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

এছাড়া নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. শহীদুজ্জামান সরকারও আজ শপথ নিতে যাচ্ছেন। দেশের অন্য সব আসনের সঙ্গে নওগাঁ-২ আসনেও গত ৭ জানুয়ারি ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ২৯ ডিসেম্বর স্বতন্ত্র প্রার্থী আমিনুল হকের মৃত্যুতে এ আসনের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়। পরে নতুন তফসিলে ১২ ফেব্রুয়ারি এই আসনে হওয়া ভোটে জিতে আসেন শহীদুজ্জামান। তিনি বলেন, প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার জন্য আমাকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন করা হয়েছে।

গত ৭ জানুয়ারির দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা টানা চতুর্থ মেয়াদে তার নতুন সরকার গঠন করেন ২৫ জন মন্ত্রী এবং ১১ জন প্রতিমন্ত্রী নিয়ে। ওই দিন প্রধানমন্ত্রীসহ ৩৭ জন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী শপথ নেন। বর্তমান মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রীর ছাড়া পূর্ণ মন্ত্রী রয়েছেন ২৫ জন এবং প্রতিমন্ত্রী ১১ জন। শেখ হাসিনার এবারের মন্ত্রিসভায় কোনো উপমন্ত্রী নেই।

বুধবার সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্যের শপথের পর মন্ত্রিসভার আকার বাড়ছে বলে খবর প্রকাশিত হয়। এতে নারী আসনের এমপিদের কয়েকজন মন্ত্রিসভায় যুক্ত হতে পারেন বলে সূত্রের বরাতে প্রকাশ করা হয়।

এর আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্যদের নির্বাচনের পর মন্ত্রিসভার আকার বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

নতুন সাত প্রতিমন্ত্রী শপথ নেবেন শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বঙ্গভবনে নতুন প্রতিমন্ত্রীদের শপথ পড়াবেন।

প্রসঙ্গত, গত ১১ জানুয়ারি নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেয়। মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী বাদে পূর্ণ মন্ত্রী রয়েছেন ২৫ জন। নতুন সাতজনসহ প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যা দাঁড়াল ১৮ জনে। এই মন্ত্রিসভায় কোনো উপমন্ত্রী নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

৭ জনকে প্রতিমন্ত্রী নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন

আপডেট সময় : ০৭:১১:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের মন্ত্রিসভায় যুক্ত হচ্ছেন আরও সাত প্রতিমন্ত্রী। তাদের নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এবার উপমন্ত্রী শূন্য থাকছে শেখ হাসিনার চতুর্থ মন্ত্রিসভা।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে মন্ত্রিপরিষদের সচিব মাহবুব হোসেন শুক্রবার (১ মার্চ) এক প্রজ্ঞাপনে সাত প্রতিমন্ত্রী নিয়োগের কথা জানান।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে যাদের ফোন করা হয়েছে তাদের মধ্যে চারজনই নারী সংসদ সদস্য।

নওগাঁও-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. শহীদুজ্জামান সরকার, রাজশাহী-৫ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুল ওয়াদুদ এবং চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী প্রতিমন্ত্রী নিয়োগ পেয়েছেন।

ফোন পেয়েছেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন পেয়েছি।

মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সামসুন্নাহার চাঁপা প্রথমবারের মতো সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন পেয়ে এবার সংসদ সদস্য হয়েছেন।

টানা তিনবার সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াসিকা আয়শা খানও ইতোমধ্যে ফোন পেয়েছেন। তার বাবা আতাউর রহমান খান কায়সার বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ছিলেন।

ক্ষমতাসীন দলের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন করে শপথ নেওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

এছাড়া নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. শহীদুজ্জামান সরকারও আজ শপথ নিতে যাচ্ছেন। দেশের অন্য সব আসনের সঙ্গে নওগাঁ-২ আসনেও গত ৭ জানুয়ারি ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ২৯ ডিসেম্বর স্বতন্ত্র প্রার্থী আমিনুল হকের মৃত্যুতে এ আসনের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়। পরে নতুন তফসিলে ১২ ফেব্রুয়ারি এই আসনে হওয়া ভোটে জিতে আসেন শহীদুজ্জামান। তিনি বলেন, প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার জন্য আমাকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ফোন করা হয়েছে।

গত ৭ জানুয়ারির দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা টানা চতুর্থ মেয়াদে তার নতুন সরকার গঠন করেন ২৫ জন মন্ত্রী এবং ১১ জন প্রতিমন্ত্রী নিয়ে। ওই দিন প্রধানমন্ত্রীসহ ৩৭ জন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী শপথ নেন। বর্তমান মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রীর ছাড়া পূর্ণ মন্ত্রী রয়েছেন ২৫ জন এবং প্রতিমন্ত্রী ১১ জন। শেখ হাসিনার এবারের মন্ত্রিসভায় কোনো উপমন্ত্রী নেই।

বুধবার সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্যের শপথের পর মন্ত্রিসভার আকার বাড়ছে বলে খবর প্রকাশিত হয়। এতে নারী আসনের এমপিদের কয়েকজন মন্ত্রিসভায় যুক্ত হতে পারেন বলে সূত্রের বরাতে প্রকাশ করা হয়।

এর আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্যদের নির্বাচনের পর মন্ত্রিসভার আকার বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

নতুন সাত প্রতিমন্ত্রী শপথ নেবেন শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বঙ্গভবনে নতুন প্রতিমন্ত্রীদের শপথ পড়াবেন।

প্রসঙ্গত, গত ১১ জানুয়ারি নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেয়। মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী বাদে পূর্ণ মন্ত্রী রয়েছেন ২৫ জন। নতুন সাতজনসহ প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যা দাঁড়াল ১৮ জনে। এই মন্ত্রিসভায় কোনো উপমন্ত্রী নেই।