মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
তিন বারের ইউপি সদস্য পেলেন এসএসসিতে জিপিএ- ৫, নারী সদস্য পেলেন ৪.৯৬ সেনবাগে এক বিদ্যালয়ের ৪৩ এসএসসি ভোকেশনাল শিক্ষার্থীর সকলেই ফেল! ১০ শিক্ষক অবরুদ্ধ সুইস বাধা ডিঙিয়ে শেষ ষোলোয় ব্রাজিল রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি পরিবারের মাঝে ৮ শ’ ভেড়া বিতরণ শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে রোমাঞ্চকর জয় ঘানার গুলিস্তানে রেডজোনে দোকান বসানোয় পাঁচজনের জেল জামানত নয়, কৃষিঋণে কৃষকের এনআইডি যথেষ্ট: কৃষিসচিব সমকাল সাংবাদিক শিমুলের ছেলে সাদিক ভবিষ্যতে প্রকৌশলী হতে চায় কৃষকের কোমরে দড়ি, যাদের কাছে হাজার কোটি টাকা তাদের কিছু হয় না : আপিল বিভাগ ‘লগে আছি ডটকম’-এর এমডি গ্রেফতার! ৩২ বছর আগের নায়িকাকে নিয়ে সালমান ফিরছেন রিমেক নিয়ে আমার আপত্তি নেই : ইয়োহানি জার্সিতে পা লাগায় মেসিকে মেক্সিকান বক্সারের হুমকি! একসঙ্গে জিপিএ-৫ পেলেন বাবা-ছেলে! কোটি কোটি টাকা নিয়ে যাচ্ছে, আমরা কি চেয়ে চেয়ে দেখব : হাইকোর্ট

৫০ বছর ‘রাজনীতি’ নয়, করেছি জনসেবা : এমপি বাদশা

রাজশাহী ব্যুরো :

নিজের রাজনৈতিক জীবনের বর্ণাঢ্য ৫০ বছরকে ‘রাজনীতি’ নয় বরং জনসেবা হিসেবে আখ্যায়িত করতে চান বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্য বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ ফজলে হোসেন বাদশা।

আজ সোমবার সকালে তাকে দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ৫০ বছর শুধু রাজনীতি করেছি; এটি বললে ভাষাগত ভুল হবে।যে রাজনীতি করলে জনগণের স্বার্থ ও কল্যাণ প্রাধান্য পায়,আমি সেই রাজনীতিই করেছি। আমার রাজনীতির দীর্ঘ এ সংখ্যার মধ্যে সবথেকে বেশি যেটি প্রাধান্য পেয়েছে; তা হচ্ছে জনসেবা।

এমপি বাদশার ৭০তম জন্মবার্ষিকী ও রাজনৈতিক জীবনের পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষে রাজশাহীর মদিনাতুল উলুম কালিম মাদ্রাসার পক্ষ থেকে দোয়া ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।অনুষ্ঠানের শুরুতেই বাদশাকে সম্মাননা ক্রেস্ট দিয়ে ফুল দিয়ে বরণ করেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।পরে তার সুস্থ জীবন ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়।

বক্তব্যে রাকসুর সাবেক এই ভিপি বলেন, রাজশাহীতে এখন রাতে বের হলে আলোকিত শহর দেখা যায়। নিশ্চয়ই তা উন্নয়নের অংশ। কিন্তু তরুণ প্রজন্মের মধ্যে যদি শিক্ষা এবং জ্ঞানের আলো প্রতিষ্ঠিত করা না যায়; তবে সবকিছুই অর্থহীন। আমি বিশ্বাস করি, এই মাদ্রাসা জ্ঞানের আলো বিকশিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

তিনি বলেন, এই প্রতিষ্ঠানের সাথে আমি দীর্ঘদিন ধরে জড়িত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় এখানে ছয়তলা বিশিষ্ট একটি আধুনিক ভবন তৈরি করে দিয়েছি, যা অবশ্যই এই মাদ্রাসার এগিয়ে যাওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। শুধু এই প্রতিষ্ঠানই নয়, রাজশাহীর প্রায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উন্নয়নের আওতায়। চিন্তায় শক্তিশালী ও আলোকিত তরুণ প্রজন্ম গড়ে তোলাই আমার রাজনীতির অন্যতম স্বপ্ন।

বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ডাইরেক্টর মোঃ শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে দোয়া ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মোঃ শামসুদ্দিন।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মদিনাতুল উলুম কালিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মুকাদ্দাসুল ইসলাম।দোয়া পরিচালনা করেন মাদ্রাসার সহকারি অধ্যাপক আলহাজ্ব মোঃ ইউসুফ আলী।

বা/খ:জই


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *