ঢাকা ০১:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

২০২০ সালের পর ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সর্বনিম্ন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৪১:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৫৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমছেই। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) শেষ হওয়া সপ্তাহে তা কমেছে ৩ দশমিক ৮৪৭ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে সেটা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৫২৪ দশমিক ৫২ বিলিয়ন ডলারে। ২০২০ সালের জুলাইয়ের পর যা সর্বনিম্ন। শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক (আরবিআই) এ তথ্য জানান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগের সপ্তাহে ভারতের রিজার্ভ কমে ৪ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলার। সেসময় তা ছিল ৫২৮ দশমিক ৩৭ বিলিয়ন ডলার।

সর্বশেষ সপ্তাহে ভারতীয় রিজার্ভের মূল বিদেশি মুদ্রার সম্পদ কমেছে ৩ দশমিক ৫৯৩ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে যার মোট পরিমাণ ৪৬৫ দশমিক ০৭৫ বিলিয়ন ডলার।

রিজার্ভ ব্যাংক ইন্ডিয়ার (আরবিআই) সাপ্তাহিক ক্রোড়পত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এসময়ে ২৪৭ মিলিয়ন ডলার মূল্যের স্বর্ণের রিজার্ভ কমেছে। বর্তমানে সেটি গিয়ে পৌঁছেছে ৩৭ দশমিক ২০৬ বিলিয়ন ডলারে।

এছাড়া ভারতের রিজার্ভ থেকে ইয়েন, পাউন্ড, ইউরোর পরিমাণও হ্রাস পেয়েছে। মূলত ডলারের চাপে এ নিম্নমুখিতা তৈরি হয়েছে। কারণ, সময় যত গড়াচ্ছে ভারতীয় রুপির মান তত কমছে। পাশাপাশি আমদানি ব্যয় বেড়ে গেছে। এতে বাণিজ্য ঘাটতি দেখা গেছে।

অর্থনীতিবিদরা বলেন, আমেরিকায় সুদ বৃদ্ধি এবং ভারতে আমদানি বাড়ায় ডলার শক্তিশালী হচ্ছে। ফলে টাকাকে সহায়তা দিতে শীর্ষ ব্যাংককে বাজারে ডলারের সরবরাহ বাড়াতে হচ্ছে। যে কারণে বৈদেশিক মুদ্রা ভান্ডারও কমছে।

২০২১ সালের অক্টোবরে ভারতের রিজার্ভ ছিল ৬৪৫ বিলিয়ন ডলার। যা সর্বকালের সর্বোচ্চ। সেখানে থেকে প্রায় ১০০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি রিজার্ভ কমেছে বিশ্বের পঞ্চম বৃহৎ অর্থনীতির। এরপর থেকেই তা ক্রমাগত কমছে।

এদিকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে যাওয়া নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে কংগ্রেস। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের কাছে এ নিয়ে জবাব চেয়েছেন নবনির্বাচিত কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে।

নিউজটি শেয়ার করুন

২০২০ সালের পর ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সর্বনিম্ন

আপডেট সময় : ১১:৪১:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমছেই। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) শেষ হওয়া সপ্তাহে তা কমেছে ৩ দশমিক ৮৪৭ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে সেটা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৫২৪ দশমিক ৫২ বিলিয়ন ডলারে। ২০২০ সালের জুলাইয়ের পর যা সর্বনিম্ন। শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক (আরবিআই) এ তথ্য জানান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগের সপ্তাহে ভারতের রিজার্ভ কমে ৪ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলার। সেসময় তা ছিল ৫২৮ দশমিক ৩৭ বিলিয়ন ডলার।

সর্বশেষ সপ্তাহে ভারতীয় রিজার্ভের মূল বিদেশি মুদ্রার সম্পদ কমেছে ৩ দশমিক ৫৯৩ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে যার মোট পরিমাণ ৪৬৫ দশমিক ০৭৫ বিলিয়ন ডলার।

রিজার্ভ ব্যাংক ইন্ডিয়ার (আরবিআই) সাপ্তাহিক ক্রোড়পত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এসময়ে ২৪৭ মিলিয়ন ডলার মূল্যের স্বর্ণের রিজার্ভ কমেছে। বর্তমানে সেটি গিয়ে পৌঁছেছে ৩৭ দশমিক ২০৬ বিলিয়ন ডলারে।

এছাড়া ভারতের রিজার্ভ থেকে ইয়েন, পাউন্ড, ইউরোর পরিমাণও হ্রাস পেয়েছে। মূলত ডলারের চাপে এ নিম্নমুখিতা তৈরি হয়েছে। কারণ, সময় যত গড়াচ্ছে ভারতীয় রুপির মান তত কমছে। পাশাপাশি আমদানি ব্যয় বেড়ে গেছে। এতে বাণিজ্য ঘাটতি দেখা গেছে।

অর্থনীতিবিদরা বলেন, আমেরিকায় সুদ বৃদ্ধি এবং ভারতে আমদানি বাড়ায় ডলার শক্তিশালী হচ্ছে। ফলে টাকাকে সহায়তা দিতে শীর্ষ ব্যাংককে বাজারে ডলারের সরবরাহ বাড়াতে হচ্ছে। যে কারণে বৈদেশিক মুদ্রা ভান্ডারও কমছে।

২০২১ সালের অক্টোবরে ভারতের রিজার্ভ ছিল ৬৪৫ বিলিয়ন ডলার। যা সর্বকালের সর্বোচ্চ। সেখানে থেকে প্রায় ১০০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি রিজার্ভ কমেছে বিশ্বের পঞ্চম বৃহৎ অর্থনীতির। এরপর থেকেই তা ক্রমাগত কমছে।

এদিকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে যাওয়া নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে কংগ্রেস। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের কাছে এ নিয়ে জবাব চেয়েছেন নবনির্বাচিত কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে।