ঢাকা ০৬:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

১০ জোড়া যুবক-যুবতীর বিয়ে দিলেন শিল্পপতি রাকিব

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৫:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ৪৮২ বার পড়া হয়েছে

১০ জোড়া যুবক-যুবতীর বিয়ে দিলেন শিল্পপতি রাকিব

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কাজী মো. ফখরুল ইসলাম, নোয়াখালী প্রতিনিধি :

৩১ ডিসেম্বর শনিবার নোয়াখালী জেলার সেনবাগে একই আসরে অস্বচ্ছল, নিম্ন ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ১০ জোড়া যুবক-যুবতীকে নিজ খরচে বিয়ে দিলেন বিশিষ্ট শিল্পপতি রাকিব। তাছাড়াও তিনি প্রত্যেক কনেকে উপহার হিসেবে আধা তোলা স্বর্নালংকার, বিয়ের সাজ-বস্ত্র এবং বরকে নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রনোদনা প্রদান করলেন।

এদিন, ৯ টা থেকে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়ন শুরু হয়ে চলে বিকাল ৪টার পর্যন্ত। এর আগে বেলা ১১টার দিকে বিবাহের জন্য নির্বাচিত ১০ জোড়া যুবক-যুবতীকে নিজ নিজ বাড়ি থেকে মাইক্রোবাস যোগে শিল্পপতি রাকিবের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। দুপুর ১২টারদিকে শিল্পপতি রাকিব বর-কনের সঙ্গে হেটে হেটে কুশল বিনিময় করেন। শেষে বর ও কনেকে স্বর্ণের চেইন ও নগদ ৫০ হাজার টাকা উপহার হিসেবে তুলে দেন শিল্পপতি রাকিব ও তার স্ত্রী ।

নব দম্পতিদের জন্য তৈরী করা একটি প্যান্ডেলে ১০টি কক্ষে বসার ব্যবস্থা করা হয়, সেখানে আলাদা আলাদা ভাবে তাদের বিয়ে পড়ান হযরত মাওলানা ইলিয়াছ হোসাইন। ১০ নব দম্পতিরা হচ্ছেন, ওমর ফারুক-কহিনুর আক্তার, আবুবকর-আয়শা আক্তার, হাফেজ মো. সুমন-ছালমা আক্তার, মোহাম্মদ হাছান-হাফছা আক্তার, মোহাম্মদ জুয়েল-আনোয়ারা বেগম, মিজানুর রহমান-বিবি ফাতেমা, মো. দেলোয়ার হেসেন-ডলি আক্তার, বেলাল হোসেন-নূর নাহার আক্তার, রেজাউল করিম রাসেল-ফাহমিদা সুলতানা ও মোহাম্মদ সবুজ-ফাহিমা আক্তার।

শনিবার বিশিষ্ট শিল্পপতি (টিম) গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিজিএমইএর পরিচালক সেনবাগের কৃতি সন্তান আবদুল্লাহীল রাকিবের সেনবাগ উপজেলার ৫নং অর্জুনতলা ইউনিয়নের দৌলতপুর ভূঁইয়া বাড়িতে মহা ধুমধামে ওই গণ বিবাহের আয়োজন করা হয়েছে। ওই মেজবান অনুষ্ঠানে সর্বস্তরের ১০ হাজার অতিথিকে ভোজের আমন্ত্রন জানানো হয়েছে। ১০ দম্পতিকে এক নজর দেখার জন্য প্যান্ডেলটির সামনে আগত সর্বস্তরের মানুষ জন সকাল থেকেই ভিঁড় সামলাতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দয়িত্বে থাকা সদস্যদের হিমশিম খেতে হয়।

দানবীর শিল্পপতি আবদুল্লাহীল রাকিব জানান, ‘সব সময় সমাজের পিছিয়ে পড়া লোকজনের জন্য কিছু করার আগ্রহ নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করি। এরই ধারাবাহিকতায় নিজ খরচে সেনবাগ উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে থেকে ১০ জোড়া অসহায় যুবক-যুবতীকে বিয়ে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করি। এর আগেও বিগত করোনা কালীন সময় সেনবাগের অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, গরু ও শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি, ভবিষ্যতেও অসহায় মানুষের পশে থাকবো ইনশা’আল্লাহ।’

 

নিউজটি শেয়ার করুন

১০ জোড়া যুবক-যুবতীর বিয়ে দিলেন শিল্পপতি রাকিব

আপডেট সময় : ০৮:৩৫:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২

কাজী মো. ফখরুল ইসলাম, নোয়াখালী প্রতিনিধি :

৩১ ডিসেম্বর শনিবার নোয়াখালী জেলার সেনবাগে একই আসরে অস্বচ্ছল, নিম্ন ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ১০ জোড়া যুবক-যুবতীকে নিজ খরচে বিয়ে দিলেন বিশিষ্ট শিল্পপতি রাকিব। তাছাড়াও তিনি প্রত্যেক কনেকে উপহার হিসেবে আধা তোলা স্বর্নালংকার, বিয়ের সাজ-বস্ত্র এবং বরকে নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রনোদনা প্রদান করলেন।

এদিন, ৯ টা থেকে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়ন শুরু হয়ে চলে বিকাল ৪টার পর্যন্ত। এর আগে বেলা ১১টার দিকে বিবাহের জন্য নির্বাচিত ১০ জোড়া যুবক-যুবতীকে নিজ নিজ বাড়ি থেকে মাইক্রোবাস যোগে শিল্পপতি রাকিবের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। দুপুর ১২টারদিকে শিল্পপতি রাকিব বর-কনের সঙ্গে হেটে হেটে কুশল বিনিময় করেন। শেষে বর ও কনেকে স্বর্ণের চেইন ও নগদ ৫০ হাজার টাকা উপহার হিসেবে তুলে দেন শিল্পপতি রাকিব ও তার স্ত্রী ।

নব দম্পতিদের জন্য তৈরী করা একটি প্যান্ডেলে ১০টি কক্ষে বসার ব্যবস্থা করা হয়, সেখানে আলাদা আলাদা ভাবে তাদের বিয়ে পড়ান হযরত মাওলানা ইলিয়াছ হোসাইন। ১০ নব দম্পতিরা হচ্ছেন, ওমর ফারুক-কহিনুর আক্তার, আবুবকর-আয়শা আক্তার, হাফেজ মো. সুমন-ছালমা আক্তার, মোহাম্মদ হাছান-হাফছা আক্তার, মোহাম্মদ জুয়েল-আনোয়ারা বেগম, মিজানুর রহমান-বিবি ফাতেমা, মো. দেলোয়ার হেসেন-ডলি আক্তার, বেলাল হোসেন-নূর নাহার আক্তার, রেজাউল করিম রাসেল-ফাহমিদা সুলতানা ও মোহাম্মদ সবুজ-ফাহিমা আক্তার।

শনিবার বিশিষ্ট শিল্পপতি (টিম) গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিজিএমইএর পরিচালক সেনবাগের কৃতি সন্তান আবদুল্লাহীল রাকিবের সেনবাগ উপজেলার ৫নং অর্জুনতলা ইউনিয়নের দৌলতপুর ভূঁইয়া বাড়িতে মহা ধুমধামে ওই গণ বিবাহের আয়োজন করা হয়েছে। ওই মেজবান অনুষ্ঠানে সর্বস্তরের ১০ হাজার অতিথিকে ভোজের আমন্ত্রন জানানো হয়েছে। ১০ দম্পতিকে এক নজর দেখার জন্য প্যান্ডেলটির সামনে আগত সর্বস্তরের মানুষ জন সকাল থেকেই ভিঁড় সামলাতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দয়িত্বে থাকা সদস্যদের হিমশিম খেতে হয়।

দানবীর শিল্পপতি আবদুল্লাহীল রাকিব জানান, ‘সব সময় সমাজের পিছিয়ে পড়া লোকজনের জন্য কিছু করার আগ্রহ নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করি। এরই ধারাবাহিকতায় নিজ খরচে সেনবাগ উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে থেকে ১০ জোড়া অসহায় যুবক-যুবতীকে বিয়ে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করি। এর আগেও বিগত করোনা কালীন সময় সেনবাগের অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, গরু ও শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি, ভবিষ্যতেও অসহায় মানুষের পশে থাকবো ইনশা’আল্লাহ।’