ঢাকা ০৫:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

হায়রে বাপ! এতলা মোটরসাইকেল! এমার সাথে কেহ পারিবে নায়

খাদেমুল ইসলাম, দিনাজপুর
  • আপডেট সময় : ১১:৪৭:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩
  • / ১৪২৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দিনাজপুর সদর উপজেলার ১০ নং কমলপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ জয়দেবপুর সালিম পাড়া গ্রামের মোহাম্মদ এমাজ উদ্দিন এর পুত্র আব্দুর রাজ্জাক শহরের একটি সেলো পার্টস এর দোকানে চাকরি করে। যা পায় তা দিয়ে এক সন্তান নিয়ে শহরের কসবা এলাকায় ভাড়া কেটে যায় বেলায় অবেলায়।

আজ ৭ নভেম্বর সকালে বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রার হর্ন শুনে দোকান থেকে দ্রুতলয়ে বেরিয়ে আসে বাইরে। দেখে আওয়ামী লীগের লোকদের বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা। অনেক চেষ্টার পরও ঠিকমতো দেখতে পারছিল না শোভাযাত্রার শেষ অংশটি।

ডান হাতটা মাথায় দিয়ে বলে উঠলো”হায়রে বাপ !এতলা মোটরসাইকেল! এমার সাথে কেহ পারিবে নায়।”

আজ সকালে আওয়ামী লীগের চলমান শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচির অংশ হিসেবে ব্যতিক্রমধর্মী কিছু করার প্রয়াসে দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল এর নেতৃত্বে দিনাজপুর ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণ থেকে প্রায় পাঁচশতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে দক্ষিণ কোতোয়ালির কমলপুর ,আউলিয়াপুর, শংকরপুর, আস্করপুর, উথরাইল,শশরা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় জনগণকে হরতাল ও অবরোধের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। এ সময় তিনি এলাকার বিভিন্ন হাটবাজারে সংক্ষিপ্ত পথসভাও করেন।

“কেন এমন আয়োজন” এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী বলেন, “বিএনপি-জামায়াত জোট অগ্নি সন্ত্রাস, পুলিশ হত্যা ,বিচারপতির বাসভবনে হামলা করে দেশে অরাজকতার সৃষ্টির পায়তারা করছে। দেশের প্রান্তিক মানুষ কিছুটা হলেও ভয়ে ভীত। কারণ এরা অত্যন্ত সাদা মনের মানুষ। মূলতঃ তাদের অন্তরকরণ হতে ভীরুতা দূর করতেই আমার এই উদ্যোগ। এটা হরতাল অবরোধের বিরুদ্ধে জনগণকে রুখে দাঁড়ানোর পথকে আরও প্রসারিত করবে।”

বিকেল নাগাত মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাটি পুনরায় জেলা শহরের বাসুনিয়া পট্টি এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগের অফিসে এসে শেষ হয়।

এ সময় সাথে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বজলুর হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম আক্তার চৌধুরী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক শাহাজাহান নোবেলসহ আওয়ামী লীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

হায়রে বাপ! এতলা মোটরসাইকেল! এমার সাথে কেহ পারিবে নায়

আপডেট সময় : ১১:৪৭:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩

দিনাজপুর সদর উপজেলার ১০ নং কমলপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ জয়দেবপুর সালিম পাড়া গ্রামের মোহাম্মদ এমাজ উদ্দিন এর পুত্র আব্দুর রাজ্জাক শহরের একটি সেলো পার্টস এর দোকানে চাকরি করে। যা পায় তা দিয়ে এক সন্তান নিয়ে শহরের কসবা এলাকায় ভাড়া কেটে যায় বেলায় অবেলায়।

আজ ৭ নভেম্বর সকালে বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রার হর্ন শুনে দোকান থেকে দ্রুতলয়ে বেরিয়ে আসে বাইরে। দেখে আওয়ামী লীগের লোকদের বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা। অনেক চেষ্টার পরও ঠিকমতো দেখতে পারছিল না শোভাযাত্রার শেষ অংশটি।

ডান হাতটা মাথায় দিয়ে বলে উঠলো”হায়রে বাপ !এতলা মোটরসাইকেল! এমার সাথে কেহ পারিবে নায়।”

আজ সকালে আওয়ামী লীগের চলমান শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচির অংশ হিসেবে ব্যতিক্রমধর্মী কিছু করার প্রয়াসে দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল এর নেতৃত্বে দিনাজপুর ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণ থেকে প্রায় পাঁচশতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে দক্ষিণ কোতোয়ালির কমলপুর ,আউলিয়াপুর, শংকরপুর, আস্করপুর, উথরাইল,শশরা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় জনগণকে হরতাল ও অবরোধের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। এ সময় তিনি এলাকার বিভিন্ন হাটবাজারে সংক্ষিপ্ত পথসভাও করেন।

“কেন এমন আয়োজন” এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী বলেন, “বিএনপি-জামায়াত জোট অগ্নি সন্ত্রাস, পুলিশ হত্যা ,বিচারপতির বাসভবনে হামলা করে দেশে অরাজকতার সৃষ্টির পায়তারা করছে। দেশের প্রান্তিক মানুষ কিছুটা হলেও ভয়ে ভীত। কারণ এরা অত্যন্ত সাদা মনের মানুষ। মূলতঃ তাদের অন্তরকরণ হতে ভীরুতা দূর করতেই আমার এই উদ্যোগ। এটা হরতাল অবরোধের বিরুদ্ধে জনগণকে রুখে দাঁড়ানোর পথকে আরও প্রসারিত করবে।”

বিকেল নাগাত মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাটি পুনরায় জেলা শহরের বাসুনিয়া পট্টি এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগের অফিসে এসে শেষ হয়।

এ সময় সাথে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বজলুর হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম আক্তার চৌধুরী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক শাহাজাহান নোবেলসহ আওয়ামী লীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।