ঢাকা ০৩:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

হাতীবান্ধায় তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় প্রকাশ্যে চলছে জুয়ার আসর!

হাতিবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১১:০২:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪
  • / ৪২০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় প্রকাশ্যে চলছে জমজমাট জুয়ার আসর।  প্রকাশ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখে ধুলো দিয়ে এভাবে রমরমা জুয়ার আসর চলায় স্থানীয়দের মাঝে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে!
বুধবার (১৯ জুন) দুপুরে দেশের বৃহত্তম সেঁচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসছে দর্শনার্থী। এসব দর্শনার্থীকে কেন্দ্র করে তিস্তা ব্যারেজ এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে বসেছে ডাব্বু পিঠে খেলা তাসসহ বিভিন্ন ধরনের জুয়ার আসর। এতে করে ঘুরতে আসা তরুণ ও যুবকরা জুয়ার দিকে আসক্ত হচ্ছে। জুয়ার এই সিন্ডিকেট হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।
এলাকাবাসী জানায়, জিয়া ও আরমান নামে দুই  যুবকের নেতৃত্বে বসেছে জমজমাট জুয়ার আসর। প্রশাসনের নাকের ডগায় জুয়ার আসর চললেও নীরব ভূমিকায় তারা। তিস্তা ব্যারেজ এলাকার দুই পাশেই জুয়ার আসর চলেও পুলিশের কোন তৎপরতা দেখা যায়নি। এতে করে ঘুরতে আসা দূর দূরান্তের পর্যটকরা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছেন। জন সম্মুখে জুয়ার আসর চলায় সুশীল সমাজের মাঝে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যুবক বলেন, বন্ধুদের নিয়ে তিস্তা বাড়িতে ঘুরতে এসেছি। এখানে জুয়া খেলা দেখে আমিও আগ্রহী হই। বাড়ি থেকে যে টাকা পয়সা নিয়ে এসেছিলাম সব জুয়ায় হারিয়েছি।
ঘুরতে আসা পর্যটক রকিবুল হাসান বলেন, জলঢাকা থেকে পরিবার নিয়ে তিস্তা বেড়েছে ঘুরতে এসেছি। এখানে প্রকাশ্যেই প্রশাসনের সামনেই চলছে জুয়া। এভাবে প্রকাশ্যে জুয়া চলতে থাকলে ঘুড়তে আসা পর্যটকরা আগ্রহ হারাবে।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানা অন্তর্গত দোয়ানী ক্যাম্প ইনচার্জ মুক্তা সরকারের সঙ্গে মুঠোফোন একাধিকবার ফোন করে তার বক্তব্য নেয়ার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
অন্যদিকে, হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, জুয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি এখনই ব্যবস্থা নিচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

হাতীবান্ধায় তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় প্রকাশ্যে চলছে জুয়ার আসর!

আপডেট সময় : ১১:০২:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় প্রকাশ্যে চলছে জমজমাট জুয়ার আসর।  প্রকাশ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখে ধুলো দিয়ে এভাবে রমরমা জুয়ার আসর চলায় স্থানীয়দের মাঝে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে!
বুধবার (১৯ জুন) দুপুরে দেশের বৃহত্তম সেঁচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসছে দর্শনার্থী। এসব দর্শনার্থীকে কেন্দ্র করে তিস্তা ব্যারেজ এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে বসেছে ডাব্বু পিঠে খেলা তাসসহ বিভিন্ন ধরনের জুয়ার আসর। এতে করে ঘুরতে আসা তরুণ ও যুবকরা জুয়ার দিকে আসক্ত হচ্ছে। জুয়ার এই সিন্ডিকেট হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।
এলাকাবাসী জানায়, জিয়া ও আরমান নামে দুই  যুবকের নেতৃত্বে বসেছে জমজমাট জুয়ার আসর। প্রশাসনের নাকের ডগায় জুয়ার আসর চললেও নীরব ভূমিকায় তারা। তিস্তা ব্যারেজ এলাকার দুই পাশেই জুয়ার আসর চলেও পুলিশের কোন তৎপরতা দেখা যায়নি। এতে করে ঘুরতে আসা দূর দূরান্তের পর্যটকরা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছেন। জন সম্মুখে জুয়ার আসর চলায় সুশীল সমাজের মাঝে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যুবক বলেন, বন্ধুদের নিয়ে তিস্তা বাড়িতে ঘুরতে এসেছি। এখানে জুয়া খেলা দেখে আমিও আগ্রহী হই। বাড়ি থেকে যে টাকা পয়সা নিয়ে এসেছিলাম সব জুয়ায় হারিয়েছি।
ঘুরতে আসা পর্যটক রকিবুল হাসান বলেন, জলঢাকা থেকে পরিবার নিয়ে তিস্তা বেড়েছে ঘুরতে এসেছি। এখানে প্রকাশ্যেই প্রশাসনের সামনেই চলছে জুয়া। এভাবে প্রকাশ্যে জুয়া চলতে থাকলে ঘুড়তে আসা পর্যটকরা আগ্রহ হারাবে।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানা অন্তর্গত দোয়ানী ক্যাম্প ইনচার্জ মুক্তা সরকারের সঙ্গে মুঠোফোন একাধিকবার ফোন করে তার বক্তব্য নেয়ার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
অন্যদিকে, হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, জুয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি এখনই ব্যবস্থা নিচ্ছি।