ঢাকা ০৬:৩৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১২:৫৯:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৫৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শিশুকে যৌন হয়রানির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া ব্যক্তিকে ক্ষমা করার জেরে পদত্যাগ করলেন হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট কাতালিন নোভাক। এ নিয়ে জনরোষের মুখে পড়েছিলেন হাঙ্গেরিয়ান প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অর্বানের ঘনিষ্ঠ এই নারী।

গত শুক্রবার সন্ধ্যাতেও এ নিয়ে প্রেসিডেন্টের বাসভবনের বাইরে বিক্ষোভ করেন সাধারণ জনগণ। সেইসঙ্গে এই ইস্যুতে বিরোধী রাজনীতিবিদদেরও তোপের মুখে পড়েন নোভাক। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

পদত্যাগের বিষয়ে এক বার্তায় নিজের দোষ স্বীকার করে ৪৬ বছর বয়সী নোভাক বলেন, ‘আমি পদত্যাগ করছি। শিশু ও পরিবার রক্ষার পক্ষে আমি আছি, ছিলাম এবং থাকব।’

হাঙ্গেরির প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট নোভাক ২০২২ সালের মার্চে দায়িত্ব নেন। শিশু যৌন নিপীড়নের মামলায় একটি অনাথ আশ্রমের সহকারী পরিচালককে ক্ষমা করেন নোভাক। ওই অভিযুক্ত ব্যক্তি তাঁর বসের যৌন নির্যাতনের ঘটনা ধামাচাপ দেন।

গত বছরের এপ্রিলে পপ ফ্রান্সিসের বুদাপেস্ট সফরের সময় অনাথ আশ্রমের ওই সহকারী পরিচালককে ক্ষমা করা হয়। গত সপ্তাহে স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নোভাকের পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছে হাঙ্গেরির প্রধান বিরোধী দলগুলো।

ওয়ার্ল্ড ওয়াটার পোলো চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ দেখতে শুক্রবার কাতারে ছিলেন নোভাক। জনগণের আন্দোলনের মুখে তিনি দ্রুত বুদাপেস্টে আসেন। দেশ পৌঁছেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন নোভাক।

হাঙ্গেরির জনজীবনে সবচেয়ে প্রভাবশালী নারী হিসেবে গত বছর ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকায় স্থান পান নোভাক। তাঁর পদত্যাগ হাঙ্গেরির রাজনীতিকে আরও বেশি পুরুষ শাসিত করল। গত বছরে মাঝামাঝি থেকে ভিক্টর অরবানের ১৬ সদস্যের মন্ত্রিসভায় কোনও নারী নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

আপডেট সময় : ১২:৫৯:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

শিশুকে যৌন হয়রানির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া ব্যক্তিকে ক্ষমা করার জেরে পদত্যাগ করলেন হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট কাতালিন নোভাক। এ নিয়ে জনরোষের মুখে পড়েছিলেন হাঙ্গেরিয়ান প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অর্বানের ঘনিষ্ঠ এই নারী।

গত শুক্রবার সন্ধ্যাতেও এ নিয়ে প্রেসিডেন্টের বাসভবনের বাইরে বিক্ষোভ করেন সাধারণ জনগণ। সেইসঙ্গে এই ইস্যুতে বিরোধী রাজনীতিবিদদেরও তোপের মুখে পড়েন নোভাক। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

পদত্যাগের বিষয়ে এক বার্তায় নিজের দোষ স্বীকার করে ৪৬ বছর বয়সী নোভাক বলেন, ‘আমি পদত্যাগ করছি। শিশু ও পরিবার রক্ষার পক্ষে আমি আছি, ছিলাম এবং থাকব।’

হাঙ্গেরির প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট নোভাক ২০২২ সালের মার্চে দায়িত্ব নেন। শিশু যৌন নিপীড়নের মামলায় একটি অনাথ আশ্রমের সহকারী পরিচালককে ক্ষমা করেন নোভাক। ওই অভিযুক্ত ব্যক্তি তাঁর বসের যৌন নির্যাতনের ঘটনা ধামাচাপ দেন।

গত বছরের এপ্রিলে পপ ফ্রান্সিসের বুদাপেস্ট সফরের সময় অনাথ আশ্রমের ওই সহকারী পরিচালককে ক্ষমা করা হয়। গত সপ্তাহে স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নোভাকের পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছে হাঙ্গেরির প্রধান বিরোধী দলগুলো।

ওয়ার্ল্ড ওয়াটার পোলো চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ দেখতে শুক্রবার কাতারে ছিলেন নোভাক। জনগণের আন্দোলনের মুখে তিনি দ্রুত বুদাপেস্টে আসেন। দেশ পৌঁছেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন নোভাক।

হাঙ্গেরির জনজীবনে সবচেয়ে প্রভাবশালী নারী হিসেবে গত বছর ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকায় স্থান পান নোভাক। তাঁর পদত্যাগ হাঙ্গেরির রাজনীতিকে আরও বেশি পুরুষ শাসিত করল। গত বছরে মাঝামাঝি থেকে ভিক্টর অরবানের ১৬ সদস্যের মন্ত্রিসভায় কোনও নারী নেই।