ঢাকা ০১:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সৎ কর্মের মধ্য দিয়েই মানুষ অমরত্ব লাভ করে-হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

খাদেমুল ইসলাম
  • আপডেট সময় : ০১:০২:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৫৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, সৎকর্মের মধ্য দিয়েই মানুষ অমরত্ব লাভ করে। যে অমূলত্ব মানুষকে ইতিহাসের পাতায় উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো স্থান করে দেয়। এই স্থান অমোচনীয় ও নির্মহ। সৎ ও সত্য যেখানে উচ্চকিত সেখানে জন্ম নেয় ইতিহাসের মহানায়ক। যে মহানায়ক যুগ থেকে যুগান্তরে আলোচনায় দূর আকাশের ধ্রবতারার মতো। যেখানেই শান্তির বাতাবরণ ক্রমশ বাসন্তী বাতাসে উদ্বেলিত।

যুগ পুরুষোত্তম পরমপ্রেমময় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের ১৩৬তম জন্মবার্ষিকীর মহোৎসব উপলক্ষে ৯ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার দিনাজপুর সদর উপজেলার গোপালগঞ্জ সৎসঙ্গ বিহার শ্রীমন্দির প্রাঙ্গনে মন্দির পরিচালনা কমিটি, উৎসব উদযাপন কমিটি, পাঞ্জাধারী ও স্থানীয় সকল ভক্তবৃন্দের সার্বিক সহযোগিতায় সাধারণ ধর্মসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এসব কথা বলেন।

এ সময় জাতীয় সংসদের হুইপ আরো বলেন, শ্রী অনুকুল ঠাকুর ১৩৬ বছরেও আমাদের মাঝে বেচে আছেন তার সৎ কর্মের জন্য, তার ভাল কথার জন্য, সৎ গুণের জন্য এবং মানুষকে জ্ঞানের আলোয়, সততার আলোয় আলোকিত করেছেন বলেই। আমরা শ্রী শ্রী অনুকুল ঠাকুরের জন্মবার্ষিতে শপথ নেই আমরা সৎভাবে জীবনযাপন করবো। সৎসঙ্গ লাভের মধ্য দিয়ে সৎপথে পরিচালিত হওয়ার চেষ্টা করবো। আমাদের মধ্যে প্রেম জাগ্রত করে আমাদের পৃথিবীতে হানাহানি বন্ধ করে প্রেমময় বিশ্ব গড়ে তুলবো।সমাজে যে হিংসা বিদ্বেস দুর করবো। সৎ কর্মের মধ্যে আমরা মৃত্যুর পরও মানুষের মধ্যে বেঁচে থাকবো।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অসম্প্রদায়িক চেতনার আলোকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি অসম্প্রদায়িক সুখী সমৃদ্ধ উন্নত আধুনিক স্মার্ট গড়ে তুলবো।

সৎসঙ্গ বিহার মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী ধরনী কুমার রায়ের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি দিনাজপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মমিনুল করীম, দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সাল রায়হান, দিনাজপুর হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক রতন সিং, সহ-প্রতিঋত্বিক শ্রী ভবদীশ ব্যানাজী, সহ-প্রতিঋত্বিক শ্রী ক্ষিতিশ চন্দ্র শীল, আওয়ামীলীগ নেতা খালেকুজ্জামান রাজু, মানবেন্দ্র রায়, জীবন কুমার রায়।

আলোচক ছিলেন সহ-প্রতিঋত্বিক খুলনার শ্রী অজয় সরকার, সহ-প্রতিঋত্বিক গাইবান্ধার শ্রী নিমাই চন্দ্র বর্মন। আলোচ্য বিষয় ছিল-পরম প্রেমময় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের দিব্য জীবন ও বাণী।

এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন মন্দির পরিচালনা কমিটি, উৎসব উদযাপন কমিটি, পাঞ্জাধারী ও স্থানীয় সকল ভক্তবৃন্দের নেতৃবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

সৎ কর্মের মধ্য দিয়েই মানুষ অমরত্ব লাভ করে-হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

আপডেট সময় : ০১:০২:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, সৎকর্মের মধ্য দিয়েই মানুষ অমরত্ব লাভ করে। যে অমূলত্ব মানুষকে ইতিহাসের পাতায় উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো স্থান করে দেয়। এই স্থান অমোচনীয় ও নির্মহ। সৎ ও সত্য যেখানে উচ্চকিত সেখানে জন্ম নেয় ইতিহাসের মহানায়ক। যে মহানায়ক যুগ থেকে যুগান্তরে আলোচনায় দূর আকাশের ধ্রবতারার মতো। যেখানেই শান্তির বাতাবরণ ক্রমশ বাসন্তী বাতাসে উদ্বেলিত।

যুগ পুরুষোত্তম পরমপ্রেমময় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের ১৩৬তম জন্মবার্ষিকীর মহোৎসব উপলক্ষে ৯ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার দিনাজপুর সদর উপজেলার গোপালগঞ্জ সৎসঙ্গ বিহার শ্রীমন্দির প্রাঙ্গনে মন্দির পরিচালনা কমিটি, উৎসব উদযাপন কমিটি, পাঞ্জাধারী ও স্থানীয় সকল ভক্তবৃন্দের সার্বিক সহযোগিতায় সাধারণ ধর্মসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এসব কথা বলেন।

এ সময় জাতীয় সংসদের হুইপ আরো বলেন, শ্রী অনুকুল ঠাকুর ১৩৬ বছরেও আমাদের মাঝে বেচে আছেন তার সৎ কর্মের জন্য, তার ভাল কথার জন্য, সৎ গুণের জন্য এবং মানুষকে জ্ঞানের আলোয়, সততার আলোয় আলোকিত করেছেন বলেই। আমরা শ্রী শ্রী অনুকুল ঠাকুরের জন্মবার্ষিতে শপথ নেই আমরা সৎভাবে জীবনযাপন করবো। সৎসঙ্গ লাভের মধ্য দিয়ে সৎপথে পরিচালিত হওয়ার চেষ্টা করবো। আমাদের মধ্যে প্রেম জাগ্রত করে আমাদের পৃথিবীতে হানাহানি বন্ধ করে প্রেমময় বিশ্ব গড়ে তুলবো।সমাজে যে হিংসা বিদ্বেস দুর করবো। সৎ কর্মের মধ্যে আমরা মৃত্যুর পরও মানুষের মধ্যে বেঁচে থাকবো।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অসম্প্রদায়িক চেতনার আলোকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি অসম্প্রদায়িক সুখী সমৃদ্ধ উন্নত আধুনিক স্মার্ট গড়ে তুলবো।

সৎসঙ্গ বিহার মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী ধরনী কুমার রায়ের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি দিনাজপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মমিনুল করীম, দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সাল রায়হান, দিনাজপুর হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক রতন সিং, সহ-প্রতিঋত্বিক শ্রী ভবদীশ ব্যানাজী, সহ-প্রতিঋত্বিক শ্রী ক্ষিতিশ চন্দ্র শীল, আওয়ামীলীগ নেতা খালেকুজ্জামান রাজু, মানবেন্দ্র রায়, জীবন কুমার রায়।

আলোচক ছিলেন সহ-প্রতিঋত্বিক খুলনার শ্রী অজয় সরকার, সহ-প্রতিঋত্বিক গাইবান্ধার শ্রী নিমাই চন্দ্র বর্মন। আলোচ্য বিষয় ছিল-পরম প্রেমময় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের দিব্য জীবন ও বাণী।

এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন মন্দির পরিচালনা কমিটি, উৎসব উদযাপন কমিটি, পাঞ্জাধারী ও স্থানীয় সকল ভক্তবৃন্দের নেতৃবৃন্দ।