ঢাকা ১১:৩০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান

স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে জুডিসিয়ারী ব্যবস্থাকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে

মোঃ খাদেমুল ইসলাম, দিনাজপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৭:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪
  • / ৪২৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেছেন, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে জুডিসিয়ারী ব্যবস্থাকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে। এ লক্ষ্যে আমরা সবাই কাজ করে যাচ্ছি। ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার বাংলাদেশের সকল নাগরিকের রয়েছে, এটা সংবিধানে নিশ্চিত করা আছে। প্রত্যেক মানুষের মৌলিক অধিকার রয়েছে ন্যায়বিচার পাওয়ার। আদালতে বিচার প্রার্থীরা ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্যই আসেন। আদালতের কর্তব্য হচ্ছে বিচার প্রার্থী সকল নাগরিকের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা। এর পাশাপাশি বিচার প্রার্থীদের সকল সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।

আজ ২৪ মে শুক্রবার বিকেলে দিনাজপুর জেলা জজ আদালতে বিচার প্রার্থীদের জন্য নির্মিত বিশ্রামাগার ‘ন্যায়কুঞ্জ’ শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এ কথা বলেন।

এ সময় প্রধান বিচারপতি আরো বলেন, বিচারপ্রার্থী ও বিচার সংশ্লিষ্ট কাজে দিনাজপুরে বিভিন্ন আদালতে আসা নাগরিকদের বিশ্রামের জন্য নির্মিত বহুমুখী আধুনিক সুবিধা সম্বলিত বিশ্রামাগার “ন্যায়কুঞ্জ।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, জেলা ও দায়রা জজ মোঃ যাবিদ হোসেন,স্পেশাল জজ মোঃ রেজাউল করিম, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট,আপীল বিভাগের রেজিষ্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান,বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট, হাইকোর্ট বিভাগের রেজিষ্টার (বিচার) এসকে এম তোফায়েল হাসান,জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ, দিনাজপুরের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট মোঃ জুলফিকার উল্লাহ, পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমেদ সহ বিচার বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান আদালত প্রাঙ্গনে গাছের চারা রোপন করেন।

দিনাজপুর গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মামুন জানান, ন্যায়কুঞ্জের আয়তন এক হাজার বর্গফুট। অত্যাধুনিক নান্দনিক স্থাপত্য শৈলীতে ডিজাইন করা সুপরিসর আধুনিক বিশ্রামাগার ন্যায়কুঞ্জে একত্রে ১০০ জন বিচার প্রার্থীদের বসার জায়গা, ওয়াশরুম, ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার, সুপেয় পানির ব্যবস্থা, নারী ও শিশুদের জন্য আলাদা কক্ষে বসার ব্যবস্থা সহ বহুমুখী সুবিধা থাকবে। ৫২ লাখ টাকা এই ন্যায়কুঞ্জের নির্মানে ব্যয় হয়েছে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান

স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে জুডিসিয়ারী ব্যবস্থাকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে

আপডেট সময় : ০৬:৪৭:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেছেন, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে জুডিসিয়ারী ব্যবস্থাকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে। এ লক্ষ্যে আমরা সবাই কাজ করে যাচ্ছি। ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার বাংলাদেশের সকল নাগরিকের রয়েছে, এটা সংবিধানে নিশ্চিত করা আছে। প্রত্যেক মানুষের মৌলিক অধিকার রয়েছে ন্যায়বিচার পাওয়ার। আদালতে বিচার প্রার্থীরা ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্যই আসেন। আদালতের কর্তব্য হচ্ছে বিচার প্রার্থী সকল নাগরিকের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা। এর পাশাপাশি বিচার প্রার্থীদের সকল সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।

আজ ২৪ মে শুক্রবার বিকেলে দিনাজপুর জেলা জজ আদালতে বিচার প্রার্থীদের জন্য নির্মিত বিশ্রামাগার ‘ন্যায়কুঞ্জ’ শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এ কথা বলেন।

এ সময় প্রধান বিচারপতি আরো বলেন, বিচারপ্রার্থী ও বিচার সংশ্লিষ্ট কাজে দিনাজপুরে বিভিন্ন আদালতে আসা নাগরিকদের বিশ্রামের জন্য নির্মিত বহুমুখী আধুনিক সুবিধা সম্বলিত বিশ্রামাগার “ন্যায়কুঞ্জ।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, জেলা ও দায়রা জজ মোঃ যাবিদ হোসেন,স্পেশাল জজ মোঃ রেজাউল করিম, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট,আপীল বিভাগের রেজিষ্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান,বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট, হাইকোর্ট বিভাগের রেজিষ্টার (বিচার) এসকে এম তোফায়েল হাসান,জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ, দিনাজপুরের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট মোঃ জুলফিকার উল্লাহ, পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমেদ সহ বিচার বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান আদালত প্রাঙ্গনে গাছের চারা রোপন করেন।

দিনাজপুর গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মামুন জানান, ন্যায়কুঞ্জের আয়তন এক হাজার বর্গফুট। অত্যাধুনিক নান্দনিক স্থাপত্য শৈলীতে ডিজাইন করা সুপরিসর আধুনিক বিশ্রামাগার ন্যায়কুঞ্জে একত্রে ১০০ জন বিচার প্রার্থীদের বসার জায়গা, ওয়াশরুম, ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার, সুপেয় পানির ব্যবস্থা, নারী ও শিশুদের জন্য আলাদা কক্ষে বসার ব্যবস্থা সহ বহুমুখী সুবিধা থাকবে। ৫২ লাখ টাকা এই ন্যায়কুঞ্জের নির্মানে ব্যয় হয়েছে।

 

বাখ//আর