ঢাকা ১১:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

স্বামীর ছুরিকাঘাতে ঔষধ কারখানার শ্রমিক জ্যোতি মৃত্যুশয্যায়

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১০:৩৮:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
  • / ৪৬৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
নির্যাতন ও অত্যাচারি স্বামীর ছুরিকাঘাতে ঔষধ কারখানার শ্রমিক স্ত্রী জেসমিন আরা জ্যোতি (২৫) মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। মুমুর্ষ জ্যোতিকে প্রথমে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেে ও পরে তার স্বাস্থ্যর অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। টাকার অভাবে চিকিৎসা দিতে পারছে না তার অসহায় মা মোছাঃ নার্গিস বেগম। অভাব- অনটনের সংসারে কোনমতে দুমুঠো খেয়ে দিন চলে। জ্যোতির চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে বিধবা মা নার্গিস হয়ে পড়েছেন দিশেহারা।
এদিকে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করা অত্যাচারি স্বামী মীর মাহমুদ রিপন (২৯) প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে চলেছে জ্যোতি ও তার পরিবারকে। বর্তমানে জ্যোতি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বোয়ালিয়ায় তার গ্রামের বাড়ীতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে চলেছে।
ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর মাদ্রাসাপাড়ার জ্যোতির ভাড়াটিয়া বাসার পাশে দেলোয়ার হোসেনর বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তার উপর গত ০৭ মে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে।
এব্যাপারে সোমবার সকালে সংবাদ কর্মীদের কাছে জ্যোতি ও তার মা নার্গিস বেগম অভিযোগ করে বলেন, ২০১২ সালে মুসলিম আইন মেনে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার কিশমত শেরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে রিপনের সঙ্গে আমার মেয়ে জেসমিন আরা জ্যোতির বিয়ে হয়। জারিফ নামের ৫ বছরের তাদের একটি সন্তান রয়েছে। রিপন কালিয়াকৈরের বিশিষ্ট শিল্পপতি মোঃ আব্দুল জলিলের ব্যক্তিগত গাড়ীর ড্রাইভার হিসেবে চাকুরী করে।
আমার মেয়ে জ্যোতি স্কয়ার ঔষধ কারখানায় চাকরি করে। পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রিপন আমার মেয়ে জ্যোতিকে নানাভাবে নির্যাতন করে আসছে। ঘটনার দিন জ্যোতি তার কর্মস্থল থেকে রাত সাড়ে দশটার দিকে বাসায় ফিরছিল। রাস্তার মধ্যে জ্যোতির কাছে রিপন ৪ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে ধারালো ছুরি দিয়ে জ্যোতির শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করে রিপন। মূমুর্ষ অবস্থায় রাস্তার উপর ফেলে রেখে সন্ত্রাসী রিপন এ সময় রংপুর -ল-১১-১৫১৫ নং বাইকে চড়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।
জ্যোতি জানায়, রিপন স্থানীয় একজন শিল্পপতির ব্যক্তিগত গাড়ীর ড্রাইভার বলে নিজেকে একজন ক্ষমতাধর ব্যক্তি বলে দাবি করে আমাকে নির্যাতন করে আসছে। সে মাদক কারবারি ও সন্ত্রাসী চক্রের একজন সক্রিয় সদস্য। তিনি আরও জানান, পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করার জন্যই এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ করেন জ্যোতি।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

স্বামীর ছুরিকাঘাতে ঔষধ কারখানার শ্রমিক জ্যোতি মৃত্যুশয্যায়

আপডেট সময় : ১০:৩৮:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
নির্যাতন ও অত্যাচারি স্বামীর ছুরিকাঘাতে ঔষধ কারখানার শ্রমিক স্ত্রী জেসমিন আরা জ্যোতি (২৫) মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। মুমুর্ষ জ্যোতিকে প্রথমে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেে ও পরে তার স্বাস্থ্যর অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। টাকার অভাবে চিকিৎসা দিতে পারছে না তার অসহায় মা মোছাঃ নার্গিস বেগম। অভাব- অনটনের সংসারে কোনমতে দুমুঠো খেয়ে দিন চলে। জ্যোতির চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে বিধবা মা নার্গিস হয়ে পড়েছেন দিশেহারা।
এদিকে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করা অত্যাচারি স্বামী মীর মাহমুদ রিপন (২৯) প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে চলেছে জ্যোতি ও তার পরিবারকে। বর্তমানে জ্যোতি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বোয়ালিয়ায় তার গ্রামের বাড়ীতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে চলেছে।
ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর মাদ্রাসাপাড়ার জ্যোতির ভাড়াটিয়া বাসার পাশে দেলোয়ার হোসেনর বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তার উপর গত ০৭ মে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে।
এব্যাপারে সোমবার সকালে সংবাদ কর্মীদের কাছে জ্যোতি ও তার মা নার্গিস বেগম অভিযোগ করে বলেন, ২০১২ সালে মুসলিম আইন মেনে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার কিশমত শেরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে রিপনের সঙ্গে আমার মেয়ে জেসমিন আরা জ্যোতির বিয়ে হয়। জারিফ নামের ৫ বছরের তাদের একটি সন্তান রয়েছে। রিপন কালিয়াকৈরের বিশিষ্ট শিল্পপতি মোঃ আব্দুল জলিলের ব্যক্তিগত গাড়ীর ড্রাইভার হিসেবে চাকুরী করে।
আমার মেয়ে জ্যোতি স্কয়ার ঔষধ কারখানায় চাকরি করে। পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রিপন আমার মেয়ে জ্যোতিকে নানাভাবে নির্যাতন করে আসছে। ঘটনার দিন জ্যোতি তার কর্মস্থল থেকে রাত সাড়ে দশটার দিকে বাসায় ফিরছিল। রাস্তার মধ্যে জ্যোতির কাছে রিপন ৪ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে ধারালো ছুরি দিয়ে জ্যোতির শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করে রিপন। মূমুর্ষ অবস্থায় রাস্তার উপর ফেলে রেখে সন্ত্রাসী রিপন এ সময় রংপুর -ল-১১-১৫১৫ নং বাইকে চড়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।
জ্যোতি জানায়, রিপন স্থানীয় একজন শিল্পপতির ব্যক্তিগত গাড়ীর ড্রাইভার বলে নিজেকে একজন ক্ষমতাধর ব্যক্তি বলে দাবি করে আমাকে নির্যাতন করে আসছে। সে মাদক কারবারি ও সন্ত্রাসী চক্রের একজন সক্রিয় সদস্য। তিনি আরও জানান, পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করার জন্যই এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ করেন জ্যোতি।
বাখ//আর