ঢাকা ০৭:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সেই ঘুষের টাকা ফেরত দিলেন প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি

কাজীপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৬:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৬৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
অবশেষে ঘুষের সেই টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হলেন সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার জিসিজি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি। বৃহস্পতিবার বিকেলে কাজীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা ফেরত দেন তারা। এতে মধ্যস্থতা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন।
তিনি বলেন, ‘জিসিজি বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুনকে এমপিওভুক্তি করে দেয়ার কথা বলে কয়েক ধাপে ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা নিয়েছিলেন বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক তারা সেই টাকা ফেরত দিয়েছেন আমার উপস্থিতিতেই।’ তিনি বলেন, ‘শিক্ষক নিয়োগে প্রতারণা ও বেতনহীন ২০ বছরের পারিশ্রমিক চেয়ে রোকেয়ার স্বামী জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন। জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় পরবর্তীতে তদন্ত করে সে বিষয়ে সুপারিশ করা হবে।’
শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুনের স্বামী আব্দুল করিম টাকা প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন, ‘বেতন করে দেয়ার কথা বলে সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক যে টাকা নিয়েছিলেন তা ফেরত পেয়েছি। তবে আমার স্ত্রীকে বিগত ২০টি বছর বেতনহীন খাটিয়ে নিয়েছেন তার পারিশ্রমিক চাই আমরা। জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ দিয়েছি।’
এর আগে একাধিকবার ঘুষ দিয়েও এমপিওভুক্তি না হওয়ার হতাশায় রোকেয়া খাতুন স্ট্রোক করে গত সোমবার মৃত্যু বরণ করেন। পরে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে ওই দিন সকালে শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুনের মরদেহ নিয়ে জিসিজি বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ে অবস্থান নেয় স্বজনেরা। তোপেরমুখে জনতার সামনে ঘুষের ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা ফেরতের প্রতিশ্রুতি দেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফরিদুল ইসলাম এবং বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও কাজীপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দ্বীন মোহাম্মদ বাবলু। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন ও কাজীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল মজিদের উপস্থিতিতে তিন দিনের মধ্যে সেই টাকা ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে স্বজনেরা মরদেহ দাফনের ব্যবস্থা করেন।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

সেই ঘুষের টাকা ফেরত দিলেন প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি

আপডেট সময় : ০৬:৪৬:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
অবশেষে ঘুষের সেই টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হলেন সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার জিসিজি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি। বৃহস্পতিবার বিকেলে কাজীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা ফেরত দেন তারা। এতে মধ্যস্থতা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন।
তিনি বলেন, ‘জিসিজি বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুনকে এমপিওভুক্তি করে দেয়ার কথা বলে কয়েক ধাপে ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা নিয়েছিলেন বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক তারা সেই টাকা ফেরত দিয়েছেন আমার উপস্থিতিতেই।’ তিনি বলেন, ‘শিক্ষক নিয়োগে প্রতারণা ও বেতনহীন ২০ বছরের পারিশ্রমিক চেয়ে রোকেয়ার স্বামী জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন। জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় পরবর্তীতে তদন্ত করে সে বিষয়ে সুপারিশ করা হবে।’
শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুনের স্বামী আব্দুল করিম টাকা প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন, ‘বেতন করে দেয়ার কথা বলে সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক যে টাকা নিয়েছিলেন তা ফেরত পেয়েছি। তবে আমার স্ত্রীকে বিগত ২০টি বছর বেতনহীন খাটিয়ে নিয়েছেন তার পারিশ্রমিক চাই আমরা। জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ দিয়েছি।’
এর আগে একাধিকবার ঘুষ দিয়েও এমপিওভুক্তি না হওয়ার হতাশায় রোকেয়া খাতুন স্ট্রোক করে গত সোমবার মৃত্যু বরণ করেন। পরে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে ওই দিন সকালে শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুনের মরদেহ নিয়ে জিসিজি বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ে অবস্থান নেয় স্বজনেরা। তোপেরমুখে জনতার সামনে ঘুষের ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা ফেরতের প্রতিশ্রুতি দেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফরিদুল ইসলাম এবং বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও কাজীপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দ্বীন মোহাম্মদ বাবলু। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন ও কাজীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল মজিদের উপস্থিতিতে তিন দিনের মধ্যে সেই টাকা ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে স্বজনেরা মরদেহ দাফনের ব্যবস্থা করেন।
বাখ//আর