ঢাকা ০১:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সুনামগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

রাজু আহমেদ রমজান, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৮:২৪:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৫০৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
সুনামগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে ঘাতক স্বামীকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে স্বামী আব্দুল হামিদ মিল্টনকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন সুনামগঞ্জের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. হেমায়েত উদ্দিন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ড. খায়রুল কবির রুমেন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
জানা গেছে, নিজ গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মচারী মদরিছ মিয়ার কন্যা বাউল শিল্পী রিপা বেগম’কে বিয়ে করেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মইনপুর গ্রামের বাসিন্দা মিল্টন। পারিবারিক কলহের জেরে ৮ বছর সংসারের বিচ্ছেদ চেয়ে সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যান রিপা বেগম। বাবার বাড়িতে বসবাসকালে স্বামী মিল্টনের বন্ধু গুলজার নামে এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন রিপা। জেলা শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বসবাস করতে থাকেন গুলজার ও রিপা।
বিষয়টি জেনে রিপার প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে সবার অগোচরে বাসায় প্রবেশ করে ঘুমন্ত অবস্থায় স্ত্রীকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যান মিল্টন। পরে ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মিল্টনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ২০২২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি এ হত্যাকান্ডের ঘটনা সংগঠিত হয়। এ ঘটনায় দ্রত বিচার আইনে দায়েরকৃত মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। অবশেষে মঙ্গলবার বিজ্ঞ আদালত মামলার একমাত্র আসামীকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

সুনামগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

আপডেট সময় : ০৮:২৪:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩
সুনামগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে ঘাতক স্বামীকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে স্বামী আব্দুল হামিদ মিল্টনকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন সুনামগঞ্জের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. হেমায়েত উদ্দিন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ড. খায়রুল কবির রুমেন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
জানা গেছে, নিজ গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মচারী মদরিছ মিয়ার কন্যা বাউল শিল্পী রিপা বেগম’কে বিয়ে করেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মইনপুর গ্রামের বাসিন্দা মিল্টন। পারিবারিক কলহের জেরে ৮ বছর সংসারের বিচ্ছেদ চেয়ে সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যান রিপা বেগম। বাবার বাড়িতে বসবাসকালে স্বামী মিল্টনের বন্ধু গুলজার নামে এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন রিপা। জেলা শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বসবাস করতে থাকেন গুলজার ও রিপা।
বিষয়টি জেনে রিপার প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে সবার অগোচরে বাসায় প্রবেশ করে ঘুমন্ত অবস্থায় স্ত্রীকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যান মিল্টন। পরে ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মিল্টনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ২০২২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি এ হত্যাকান্ডের ঘটনা সংগঠিত হয়। এ ঘটনায় দ্রত বিচার আইনে দায়েরকৃত মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। অবশেষে মঙ্গলবার বিজ্ঞ আদালত মামলার একমাত্র আসামীকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন।
বাখ//আর