ঢাকা ১২:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সীমান্ত, সমুদ্র ও জনবহুল এলাকায় নজর রাখবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০১:০৫:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৫৯১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

এবার নিজেদের স্যাটেলাইটে ২৪ ঘণ্টাই দেখা যাবে সমুদ্র সীমা, কৃষি, বন বা বন্যার পরিস্থিতির চিত্র। নজর রাখা যাবে সীমান্ত ও জনবহুল এলাকায়। কোনো স্পেস ভাড়া ছাড়াই এ কাজে মহাকাশে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু। ফ্রান্সের প্রযুক্তিগত সহায়তায় আগামী বছরের শেষ নাগাদ হবে উৎক্ষেপণ। এছাড়া একটি স্যাটেলাইট কারখানা স্থাপনের প্রস্তাবও দিয়েছে দেশটি।

প্রায় সাড়ে বাইশ হাজার মাইল দূর থেকে পৃথিবীকে কেন্দ্র করে ঘুরছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট। যোগাযোগ ও সম্প্রচারের কাজ তার। এবার ফরাসি পরামর্শক প্রাইস ওয়াটার হাউস কুপার্সের অধীনে মিশন আর্থ অবর্জাভেশন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু যাচ্ছে মহাকাশে।

আগেরটির চেয়ে কম দূরত্ব থেকে দিনে ১৫ বার পৃথিবী প্রদক্ষিণ করবে এটি। এতে ক্যামেরায় অপটিক্যাল স্যাটেলাইট ও রাডারে থাকবে সেনথিটিক অ্যাপার্চার সেনসর। যা দিয়ে রাত-দিন সারাক্ষণ পাওয়া যাবে সমুদ্র সীমা, শস্য উৎপাদন, বনাঞ্চল বা প্রাকৃতিক দুর্যোগের ছবি।

এ নিয়ে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিএল) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, পুরা অঞ্চলে এক ঝলকে দেখার জন্য আমাদের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু কাজে লাগবে। এছাড়া আমাদের দেশের যে শস্যের প্যাটার্ন; কোথায় ধান হচ্ছে, কোথায় পাট হচ্ছে তা সহজে বোঝা যাবে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু নির্মাণের কাজ শুরু হচ্ছে এ বছরই। উৎক্ষেপণ ২০২৪-এর শেষ নাগাদ। পাশাপাশি ফ্রান্সের কাছ থেকে ছোট স্যাটেলাইট তৈরির কারখানা স্থাপনের প্রস্তাবও পেয়েছে বিএসসিএল। ত্রিমাত্রিক হাইব্রিড স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-টু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা। তবে ফ্রান্সের পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তির জানা যাবে প্রকৃত খরচ।

নিউজটি শেয়ার করুন

সীমান্ত, সমুদ্র ও জনবহুল এলাকায় নজর রাখবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২

আপডেট সময় : ০১:০৫:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

এবার নিজেদের স্যাটেলাইটে ২৪ ঘণ্টাই দেখা যাবে সমুদ্র সীমা, কৃষি, বন বা বন্যার পরিস্থিতির চিত্র। নজর রাখা যাবে সীমান্ত ও জনবহুল এলাকায়। কোনো স্পেস ভাড়া ছাড়াই এ কাজে মহাকাশে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু। ফ্রান্সের প্রযুক্তিগত সহায়তায় আগামী বছরের শেষ নাগাদ হবে উৎক্ষেপণ। এছাড়া একটি স্যাটেলাইট কারখানা স্থাপনের প্রস্তাবও দিয়েছে দেশটি।

প্রায় সাড়ে বাইশ হাজার মাইল দূর থেকে পৃথিবীকে কেন্দ্র করে ঘুরছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট। যোগাযোগ ও সম্প্রচারের কাজ তার। এবার ফরাসি পরামর্শক প্রাইস ওয়াটার হাউস কুপার্সের অধীনে মিশন আর্থ অবর্জাভেশন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু যাচ্ছে মহাকাশে।

আগেরটির চেয়ে কম দূরত্ব থেকে দিনে ১৫ বার পৃথিবী প্রদক্ষিণ করবে এটি। এতে ক্যামেরায় অপটিক্যাল স্যাটেলাইট ও রাডারে থাকবে সেনথিটিক অ্যাপার্চার সেনসর। যা দিয়ে রাত-দিন সারাক্ষণ পাওয়া যাবে সমুদ্র সীমা, শস্য উৎপাদন, বনাঞ্চল বা প্রাকৃতিক দুর্যোগের ছবি।

এ নিয়ে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিএল) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, পুরা অঞ্চলে এক ঝলকে দেখার জন্য আমাদের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু কাজে লাগবে। এছাড়া আমাদের দেশের যে শস্যের প্যাটার্ন; কোথায় ধান হচ্ছে, কোথায় পাট হচ্ছে তা সহজে বোঝা যাবে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-টু নির্মাণের কাজ শুরু হচ্ছে এ বছরই। উৎক্ষেপণ ২০২৪-এর শেষ নাগাদ। পাশাপাশি ফ্রান্সের কাছ থেকে ছোট স্যাটেলাইট তৈরির কারখানা স্থাপনের প্রস্তাবও পেয়েছে বিএসসিএল। ত্রিমাত্রিক হাইব্রিড স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-টু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা। তবে ফ্রান্সের পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তির জানা যাবে প্রকৃত খরচ।