ঢাকা ০৯:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সিরিজ জয় নিশ্চিতের মিশনে দুরন্ত বাংলাদেশ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৭:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৫৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোটর্স ডেস্ক : আগামীকাল জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচেই সফরকারী আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিন টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর বাংলাদেশ।
দুপুর ২টায় শুরু হওয়া ম্যাচটি টি স্পোর্টস চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।
প্রথম ম্যাচে বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশ ২২ রানে হারায় আয়ারল্যান্ডকে। প্রথমে ব্যাট করে ১৯ দশমিক ২ ওভারে ৫ উইকেটে ২০৭ করে বাংলাদেশ। বৃষ্টির বাঁধায় ইনিংস শেষ করতে পারেনি টাইগাররা। কিন্তু নিজেদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে সর্বোচ্চ ২১৫ রানের রেকর্ড ভাঙার সুযোগ ছিল টাইগারদের সামনে।
বৃষ্টি আইনে ৮ ওভারে জয়ের জন্য ১০৪ রানের নতুন টার্গেট পায় আয়ারল্যান্ড। জবাবে ৮ ওভারে ৫ উইকেটে ৮১ রান করে ম্যাচ হারে আইরিশরা।
প্রথম ম্যাচের পারফরমেন্সে এটা অত্যন্ত পরিস্কার যে, আক্রমনাত্মক ধরনের ক্রিকেট খেলতে কোন প্রকার ছাড় দেবেনা বাংলাদেশ দল। পাওয়ার প্লেতেই রেকর্ড ৮১ রান করেছিল টাইগাররা।
প্রথম ম্যাচ শেষে সাকিব আল হাসান জানান, নিজেদের ইচ্ছে অনুযায়ী আক্রমনাত্মক ক্রিকেট খেলতে পেরেছে দল। তিনি বলেন, ‘আমরা এটাই চাই। এক বা দুইজনের পক্ষে সবসময় অবদান রাখা কঠিন। এই ধরনের অলরাউন্ড পারফরমেন্স চাই।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত নই উইকেট কতটা কাজে আসবে, কিন্তু আমরা শুরু থেকে ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করি।’
বড় সংগ্রহের ভিত্তি গড়ে দেন বাংলাদেশের ওপেনারদ্বয়। ৭ দশমিক ১ ওভারে ৯১ রান তুলেন তারা। ওপেনার রনি তালুকদার ৩৮ বলে ৬৭ এবং লিটন দাস ২৩ বলে ৪৭ রান করেন।
দুর্দান্ত ইনিংসের সুবাদে টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মত ম্যাচ সেরা হন রনি। প্রথম ম্যাচে ফিল্ডিংয়ের সময় ঘাড়ের ইনজুরিতে পড়ায় দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য অনিশ্চিত রনি।
দ্বিতীয় ম্যাচে রনি খেলতে না পারলেও দুঃশ্চিন্তার কারন নেই বাংলাদেশের। এই মুর্হূতে বাংলাদেশের হাতে যথেষ্ট দক্ষতাসম্পন্ন খেলোয়াড় রয়েছে।
এই সিরিজের আগে, তিন ম্যাচের সিরিজে বিশ^ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ। শক্তিশালী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের কারনে আয়ারল্যান্ডের মত দলকে হারানোর ব্যাপারে অনেক বেশি আত্মবিশ^াসী টাইগাররা। আইরিশদের বিপক্ষে প্রথমটিতে জিতে টানা চার ম্যাচে জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ। যা এই ফরম্যাটে যৌথভাবে সর্বোচ্চ জয়ের নজির টাইগারদের। দ্বিতীয় ম্যাচ জিতলেই নয়া রেকর্ড গড়বে সাকিব-লিটনরা। বাংলাদেশের দুর্দান্ত ক্রিকেট নৈপুন্যে অসহায় ও বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে আয়ারল্যান্ড।
এ দিকে সিরিজে ঘুড়ে দাঁড়িয়ে টিকে থাকার ব্যাপারে আশাবাদি আয়ারল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক পল স্টার্লিং।
বাংলাদেশ দল : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), লিটন দাস, রনি তালুকদার, নাজমুল হোসেন শান্ত, তাওহিদ হৃদয়, শামীম হোসেন, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাসুম আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন ও জাকের আলী অনিক।
আয়ারল্যান্ড দল : পল স্টার্লিং (অধিনায়ক), মার্ক অ্যাডায়ার, রস অ্যাডায়ার, কার্টিস ক্যাম্পার, গ্যারেথ ডেলানি, জর্জ ডকরেল, গ্রাহাম হুম, ম্যাথিউ হামফ্রেস, ব্যারি ম্যাকার্থি, কনর অলফার্ট, হ্যারি টেক্টর, লরকান টাকার, বেন হোয়াইট ও ক্রেইগ ইয়ং।

নিউজটি শেয়ার করুন

সিরিজ জয় নিশ্চিতের মিশনে দুরন্ত বাংলাদেশ

আপডেট সময় : ০৫:৫৭:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩

স্পোটর্স ডেস্ক : আগামীকাল জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচেই সফরকারী আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিন টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর বাংলাদেশ।
দুপুর ২টায় শুরু হওয়া ম্যাচটি টি স্পোর্টস চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।
প্রথম ম্যাচে বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশ ২২ রানে হারায় আয়ারল্যান্ডকে। প্রথমে ব্যাট করে ১৯ দশমিক ২ ওভারে ৫ উইকেটে ২০৭ করে বাংলাদেশ। বৃষ্টির বাঁধায় ইনিংস শেষ করতে পারেনি টাইগাররা। কিন্তু নিজেদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে সর্বোচ্চ ২১৫ রানের রেকর্ড ভাঙার সুযোগ ছিল টাইগারদের সামনে।
বৃষ্টি আইনে ৮ ওভারে জয়ের জন্য ১০৪ রানের নতুন টার্গেট পায় আয়ারল্যান্ড। জবাবে ৮ ওভারে ৫ উইকেটে ৮১ রান করে ম্যাচ হারে আইরিশরা।
প্রথম ম্যাচের পারফরমেন্সে এটা অত্যন্ত পরিস্কার যে, আক্রমনাত্মক ধরনের ক্রিকেট খেলতে কোন প্রকার ছাড় দেবেনা বাংলাদেশ দল। পাওয়ার প্লেতেই রেকর্ড ৮১ রান করেছিল টাইগাররা।
প্রথম ম্যাচ শেষে সাকিব আল হাসান জানান, নিজেদের ইচ্ছে অনুযায়ী আক্রমনাত্মক ক্রিকেট খেলতে পেরেছে দল। তিনি বলেন, ‘আমরা এটাই চাই। এক বা দুইজনের পক্ষে সবসময় অবদান রাখা কঠিন। এই ধরনের অলরাউন্ড পারফরমেন্স চাই।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত নই উইকেট কতটা কাজে আসবে, কিন্তু আমরা শুরু থেকে ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করি।’
বড় সংগ্রহের ভিত্তি গড়ে দেন বাংলাদেশের ওপেনারদ্বয়। ৭ দশমিক ১ ওভারে ৯১ রান তুলেন তারা। ওপেনার রনি তালুকদার ৩৮ বলে ৬৭ এবং লিটন দাস ২৩ বলে ৪৭ রান করেন।
দুর্দান্ত ইনিংসের সুবাদে টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মত ম্যাচ সেরা হন রনি। প্রথম ম্যাচে ফিল্ডিংয়ের সময় ঘাড়ের ইনজুরিতে পড়ায় দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য অনিশ্চিত রনি।
দ্বিতীয় ম্যাচে রনি খেলতে না পারলেও দুঃশ্চিন্তার কারন নেই বাংলাদেশের। এই মুর্হূতে বাংলাদেশের হাতে যথেষ্ট দক্ষতাসম্পন্ন খেলোয়াড় রয়েছে।
এই সিরিজের আগে, তিন ম্যাচের সিরিজে বিশ^ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ। শক্তিশালী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের কারনে আয়ারল্যান্ডের মত দলকে হারানোর ব্যাপারে অনেক বেশি আত্মবিশ^াসী টাইগাররা। আইরিশদের বিপক্ষে প্রথমটিতে জিতে টানা চার ম্যাচে জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ। যা এই ফরম্যাটে যৌথভাবে সর্বোচ্চ জয়ের নজির টাইগারদের। দ্বিতীয় ম্যাচ জিতলেই নয়া রেকর্ড গড়বে সাকিব-লিটনরা। বাংলাদেশের দুর্দান্ত ক্রিকেট নৈপুন্যে অসহায় ও বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে আয়ারল্যান্ড।
এ দিকে সিরিজে ঘুড়ে দাঁড়িয়ে টিকে থাকার ব্যাপারে আশাবাদি আয়ারল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক পল স্টার্লিং।
বাংলাদেশ দল : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), লিটন দাস, রনি তালুকদার, নাজমুল হোসেন শান্ত, তাওহিদ হৃদয়, শামীম হোসেন, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাসুম আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন ও জাকের আলী অনিক।
আয়ারল্যান্ড দল : পল স্টার্লিং (অধিনায়ক), মার্ক অ্যাডায়ার, রস অ্যাডায়ার, কার্টিস ক্যাম্পার, গ্যারেথ ডেলানি, জর্জ ডকরেল, গ্রাহাম হুম, ম্যাথিউ হামফ্রেস, ব্যারি ম্যাকার্থি, কনর অলফার্ট, হ্যারি টেক্টর, লরকান টাকার, বেন হোয়াইট ও ক্রেইগ ইয়ং।