সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৯:৪৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঢাবি’র ১১৩ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার মানুষ হত্যা করাই বিএনপির রাজনীতি : আমু রাজস্থলীতে ইট বোঝাই ট্রাক উল্টে গেলেও বেঁচে গেলো চালক বকশীগঞ্জে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার উত্তরবঙ্গে কোনো জঙ্গি নাই : র‍্যাব মহাপরিচালক পার্বত্য চট্টগ্রামের সীমান্ত সড়ক প্রকল্প পরিদর্শন করলেন সেনাপ্রধান মীরসরাইয়ে মসজিদের জন্য ২৮ শতক জমি দান করলেন শিক্ষক আবুল কালাম বেড়েই চলছে ইজিবাইক; প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনার কবলে পথচারীরা চিলমারীতে ইট ভাটায় অভিযান : ২লাখ টাকা জরিমানা পত্নীতলায় উপজেলার বিভিন্ন দপ্তর পরিদর্শন করলেন ডিসি বিএনপি রিমোট কন্ট্রোল নেতৃত্বে চলছে : কাদের কলমাকান্দায় গ্রাম উন্নয়ন কমিটির কর্মশালা অনুষ্ঠিত সাঁথিয়ায় গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু : পরিবারের দাবি হত্যা খানসামায় অনুমোদনবিহীন সার তৈরি করায় জরিমানা কৈলাশ খেরকে বোতল ছুড়লেন দর্শকরা

সালমান রুশদি হারালেন এক চোখ

সালমান রুশদি হারালেন এক চোখ
সালমান রুশদি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে একটি অনুষ্ঠানে গত ১২ আগস্ট সকালে বিতর্কিত ব্রিটিশ লেখক সালমান রুশদির ওপর ছুরি হামলা চালায় এক যুবক। এতে প্রাণে রক্ষা পেলেও একটি চোখ হারাতে হয়েছে সালমান রুশদিকে। তার এক এজেন্ট গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। খবর রয়টার্সের।

চোখের পাশাপাশি একটি হাতও অকেজো হয়ে গেছে হাদি মাতার নামে ওই যুবকের হামলায়। নিউইয়র্কের বাফেলো শহরের কাছেই চৌতাওকুয়া ইনস্টিটিউশনে একটি অনুষ্ঠানে হামলার শিকার হন ৭৫ বছর বয়সি এ লেখক।

অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা হিসেবে মঞ্চে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে তার ওপর হামলা চালানো হয়। তাকে কিলঘুষির পাশাপাশি ১৫টি ছুরিকাঘাত করে ওই হামলাকারী।

সালমান রুশদি নানা কারণে আলোচিত ও সমালোচিত। তার বিরুদ্ধে লেখায় ইসলাম ও মুসলিমদের নিন্দা ও নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর বিরুদ্ধে কুৎসা রটনার অভিযোগ রয়েছে। তার লেখা নিয়ে নানা সময়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে মুসলিমবিশ্ব।

৪০ বছরের লেখক জীবনের শেষ ভাগটি সালমান রুশদি নিরাপত্তার কারণে এক ধরনের আত্মগোপনেই কাটাচ্ছেন। তবে এতে তার লেখালেখি থেমে থাকেনি এবং তিনি পাশ্চাত্যের পৃষ্ঠপোষকতা থেকেও বঞ্চিত হননি। ২০০৭ সালে তিনি ব্রিটিশ সরকারের ‘নাইটহুড’ উপাধিও লাভ করেন।

লেখক হিসেবে সালমান রুশদি প্রথম আন্তর্জাতিক মনোযোগ আকর্ষণ করেন ‘মিডনাইটস চিলড্রেন’ উপন্যাসের জন্য। ১৯৮১ সালে তিনি এজন্য ‘ম্যান বুকার পুরস্কার’ লাভ করেন।

কিন্তু ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত পরবর্তী উপন্যাস ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’-এর জন্য তিনি বিশ্ব মুসলিমের প্রতিবাদ ও নিন্দার সম্মুখীন হন।

তার পর থেকে নিরাপত্তার কারণে লোকচক্ষুর আড়ালে ও প্রহরীবেষ্টিত জীবনযাপন করছেন সালমান রুশদি। এ যাবৎ তিনি ১৩টি উপন্যাসসহ অনেক ছোটগল্প ও নন-ফিকশন গ্রন্থ রচনা করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *