ঢাকা ০৫:২৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সরে দাঁড়ানো নিয়ে নিজ দলেই চাপের মুখে বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৬:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪
  • / ৪১৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে গেল স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবারের (২৭ জুন) বিতর্কে ধরাশায়ী হয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এরপর থেকে দর্শকদের পাশাপাশি নিজ দলে সমালোচিত হচ্ছেন বাইডেন। এছাড়া আগামী নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে যেতে বাইডেনের ওপর ক্রমেই চাপ বাড়ছে।

নির্বাচনের মাস চারেক আগে এসে দাতাদের অনেকেই বাইডেনকে সরে যেতে বলছেন। ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে নির্বাচিত কংগ্রেস সদস্যদের অনেকেই সংশয় প্রকাশ করে বলছেন, আগামী নভেম্বরের নির্বাচনে বাইডেন রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্পকে টেক্কা দিতে পারবেন না। যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের ডেমোক্রেটিক পার্টির এক সদস্য সংবাদমাধ্যমকে জানান, কয়েক দিনের মধ্যে তার দলের ২৫ জন কংগ্রেস সদস্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে যেতে বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানানোর প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন।

ট্রাম্প-বাইডেনের বিতর্কের পর করা রয়টার্স/ইপসসের জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে, ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রতি তিনজনের একজন মনে করেন, বাইডেনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে আসা উচিত। টেক্সাসের ডেমোক্রেটিক পার্টির কংগ্রেস সদস্য লয়েড ডগেট মঙ্গলবার গণমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকার দেন। সেখানে বাইডেনের উদ্দেশে তিনি বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে আসুন। তিনি আশা করেন, তার দলের অন্য আইনপ্রণেতারাও বাইডেনের প্রতি একই আহ্বান জানাতে এগিয়ে আসবেন।

বিতর্কের প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সাবেক স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, এই বিতর্ক শুধু এক রাতের বিষয় নয়, বরং বাইডেনের স্বাস্থ্য নিয়ে পুরোনো প্রশ্ন সামনে টেনে এনেছে। ট্রাম্পের ক্ষেত্রেও এটা বিবেচনায় নেওয়া উচিত।

এদিকে ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে খারাপ করলেও বসে নেই বাইডেন। নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের ম্যাকলিনে প্রচারে গিয়ে বাইডেন স্বীকার করে নেন, ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কটি ভালো হয়নি। বাইডেন বলেন, ‘এটা আমার জন্য সেরা রাত ছিল না। বিতর্কের আগে বিশ্বভ্রমণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। প্রায় ১০০ টাইমজোন ঘুরে এসেছি।’ সূত্র: রয়টার্স।

নিউজটি শেয়ার করুন

সরে দাঁড়ানো নিয়ে নিজ দলেই চাপের মুখে বাইডেন

আপডেট সময় : ০৬:৪৬:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে গেল স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবারের (২৭ জুন) বিতর্কে ধরাশায়ী হয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এরপর থেকে দর্শকদের পাশাপাশি নিজ দলে সমালোচিত হচ্ছেন বাইডেন। এছাড়া আগামী নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে যেতে বাইডেনের ওপর ক্রমেই চাপ বাড়ছে।

নির্বাচনের মাস চারেক আগে এসে দাতাদের অনেকেই বাইডেনকে সরে যেতে বলছেন। ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে নির্বাচিত কংগ্রেস সদস্যদের অনেকেই সংশয় প্রকাশ করে বলছেন, আগামী নভেম্বরের নির্বাচনে বাইডেন রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্পকে টেক্কা দিতে পারবেন না। যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের ডেমোক্রেটিক পার্টির এক সদস্য সংবাদমাধ্যমকে জানান, কয়েক দিনের মধ্যে তার দলের ২৫ জন কংগ্রেস সদস্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে যেতে বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানানোর প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন।

ট্রাম্প-বাইডেনের বিতর্কের পর করা রয়টার্স/ইপসসের জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে, ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রতি তিনজনের একজন মনে করেন, বাইডেনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে আসা উচিত। টেক্সাসের ডেমোক্রেটিক পার্টির কংগ্রেস সদস্য লয়েড ডগেট মঙ্গলবার গণমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকার দেন। সেখানে বাইডেনের উদ্দেশে তিনি বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে আসুন। তিনি আশা করেন, তার দলের অন্য আইনপ্রণেতারাও বাইডেনের প্রতি একই আহ্বান জানাতে এগিয়ে আসবেন।

বিতর্কের প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সাবেক স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, এই বিতর্ক শুধু এক রাতের বিষয় নয়, বরং বাইডেনের স্বাস্থ্য নিয়ে পুরোনো প্রশ্ন সামনে টেনে এনেছে। ট্রাম্পের ক্ষেত্রেও এটা বিবেচনায় নেওয়া উচিত।

এদিকে ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে খারাপ করলেও বসে নেই বাইডেন। নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের ম্যাকলিনে প্রচারে গিয়ে বাইডেন স্বীকার করে নেন, ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কটি ভালো হয়নি। বাইডেন বলেন, ‘এটা আমার জন্য সেরা রাত ছিল না। বিতর্কের আগে বিশ্বভ্রমণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। প্রায় ১০০ টাইমজোন ঘুরে এসেছি।’ সূত্র: রয়টার্স।