ঢাকা ০৯:১১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সরকার বিএনপিকে ভয় দেখাচ্ছে- ফখরুল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:০৭:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৪৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাল-ডাল-তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, দফায় দফায় গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদ এবং খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ ১০ দফা দাবিতে রাজধানীর আব্দুল্লাহপুর থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত মানববন্ধন করেছে বিএনপি। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ (শনিবার) সকালে নয়াপল্টনে মানববন্ধন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি।

এতে অংশ নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেন, সরকার আবারও বিএনপি নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার শুরু করে তাদের ভয় দেখাচ্ছে। এর মাধ্যমে বিএনপিকে তারা স্তব্ধ করে রাখতে চায়’।

তিনি বলেন, ‘সরকারের খামখেয়ালীতে ঢাকায় একের পর এক বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটছে। এর দায় সম্পূর্ণ সরকারের। তারা দেশকে শোষণ করে বিদেশে সম্পদ পূঞ্জীভূত করছে। সরকার ৪১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার ‘নীলনকশা’ নিয়ে অতীতের মতো একতরফা নির্বাচন করতে চায়। এখন কথায় হবে না, জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে উত্তাল তরঙ্গের মাধ্যমে ক্ষমতাসীনদের সরাতে হবে’।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘পরিস্কার ভাষায় বলে দিতে চাই, বিএনপি বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোনো নির্বাচন করবে না। সরকারকে পদত্যাগ করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচন দিতে হবে। অতীতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য ১৭৩ দিন সহিংস আন্দোলন করেছে আওয়ামী লীগ। বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দেখে সরকারের গায়ে জ্বালা ধরেছে। সমাবেশ, মানববন্ধন, অনশনের মাধ্যমে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করা হচ্ছে’।

বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, ‘দেশের মানুষের সাথে পরিহাস করে পকেট কেটে সম্পদের পাহাড় গড়ে ক্ষমতায় থাকতে চায় সরকার। বিএনপি সংঘাতে যেতে চায় না, ১০ দফা দাবি মেনে নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান তিনি।

বিএনপি’র আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর হবে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে। সরকারের দুর্নীতির প্রতিবাদে এবং দশ দফা দাবি আদায়ে ১৮ই মার্চ সকল মহানগরে প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হবে’।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, তেল-গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি বেড়েই চলেছে, দেশকে রসাতলে নিয়ে গেছে সরকার। আওয়ামী লীগ বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পাহারা দেয় অথচ ব্যাংকের টাকা লুট হয়ে যায়। কোনো সুরাহা নেই। জনগণের ওপর জুলুম হচ্ছে, এর বিরুদ্ধে কথা বললেই গ্রেপ্তার-নির্যাতন করা হচ্ছে’।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

সরকার বিএনপিকে ভয় দেখাচ্ছে- ফখরুল

আপডেট সময় : ০১:০৭:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাল-ডাল-তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, দফায় দফায় গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদ এবং খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ ১০ দফা দাবিতে রাজধানীর আব্দুল্লাহপুর থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত মানববন্ধন করেছে বিএনপি। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ (শনিবার) সকালে নয়াপল্টনে মানববন্ধন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি।

এতে অংশ নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেন, সরকার আবারও বিএনপি নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার শুরু করে তাদের ভয় দেখাচ্ছে। এর মাধ্যমে বিএনপিকে তারা স্তব্ধ করে রাখতে চায়’।

তিনি বলেন, ‘সরকারের খামখেয়ালীতে ঢাকায় একের পর এক বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটছে। এর দায় সম্পূর্ণ সরকারের। তারা দেশকে শোষণ করে বিদেশে সম্পদ পূঞ্জীভূত করছে। সরকার ৪১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার ‘নীলনকশা’ নিয়ে অতীতের মতো একতরফা নির্বাচন করতে চায়। এখন কথায় হবে না, জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে উত্তাল তরঙ্গের মাধ্যমে ক্ষমতাসীনদের সরাতে হবে’।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘পরিস্কার ভাষায় বলে দিতে চাই, বিএনপি বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোনো নির্বাচন করবে না। সরকারকে পদত্যাগ করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচন দিতে হবে। অতীতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য ১৭৩ দিন সহিংস আন্দোলন করেছে আওয়ামী লীগ। বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দেখে সরকারের গায়ে জ্বালা ধরেছে। সমাবেশ, মানববন্ধন, অনশনের মাধ্যমে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করা হচ্ছে’।

বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, ‘দেশের মানুষের সাথে পরিহাস করে পকেট কেটে সম্পদের পাহাড় গড়ে ক্ষমতায় থাকতে চায় সরকার। বিএনপি সংঘাতে যেতে চায় না, ১০ দফা দাবি মেনে নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান তিনি।

বিএনপি’র আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর হবে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে। সরকারের দুর্নীতির প্রতিবাদে এবং দশ দফা দাবি আদায়ে ১৮ই মার্চ সকল মহানগরে প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হবে’।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, তেল-গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি বেড়েই চলেছে, দেশকে রসাতলে নিয়ে গেছে সরকার। আওয়ামী লীগ বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পাহারা দেয় অথচ ব্যাংকের টাকা লুট হয়ে যায়। কোনো সুরাহা নেই। জনগণের ওপর জুলুম হচ্ছে, এর বিরুদ্ধে কথা বললেই গ্রেপ্তার-নির্যাতন করা হচ্ছে’।