ঢাকা ১২:২৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

মাসুদ পারভেজ, রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৯৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
রাজশাহীতে নিজের জমিতে কাজ করতে গিয়ে রাসিক ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবাহান লিটন ও নূর আলম লুথু কর্তৃক সন্ত্রাসী বাহিনীর বাধা ও হামলার প্রতিবাদে এবং জমিটি দখলমুক্ত করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী শাহ্ শাবাব বাপ্পা।  শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকাল ৫ টায়  মহানগরীর শিরোইলে অবস্থিত রাজশাহী বরেন্দ্র প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন ভুক্তভোগী।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ভূক্তভোগী শাহ্ শাবাব বাপ্পা বলেন, আমার নিজের জমিতে গত মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল ৯ টায় দেয়াল দিতে গেলে পাশের বাড়ীর নূর আলম লুথু লোকজন ও সন্ত্রাসী বাহীনি নিয়ে বাধা প্রদান করেন। পরবতীতে ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবহান লিটনের যোগসাজশে ঘটনাটি আরও জোরালো হয়। কাউন্সিলর ১ লক্ষ টাকা দিলে সমস্যার সমাধান করে দিবেন বলে জানিয়েছেন। এরপর আমি আএমপি’র বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। থানা কর্তৃপক্ষ উভয় পক্ষকে একসাথে করে জমি মেপে সঠিকভাবে মীমাংসা করে নিতে বলেন। থানায় অভিযোগ দেয়ার পর থেকে বিভিন্ন লোক মারফত আমাকে প্রাণনাশসহ বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে। এঘটনার পর থেকে আমি আমার জমির ওপর যেতে পারছি না এবং ভীষণ নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। এমতাবস্থায় আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে  মেয়র ও পুলিশ কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন, আমার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা প্রদান সহ আমার নিজ জমি দখলমুক্ত করে সঠিক বিচারের ব্যবস্থা করা হোক।
তিনি সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, এর আগেও তারা আদালতে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছিলো। তা মহামান্য আদালত খারিজ করে দিয়েছেন। আমার পৈতৃক সম্পত্তি দখল করে দেয়ার জন্য ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান লিটনকে হাত করে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র করছেন।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবাহান লিটন বলেন, নূর আলম লুথুর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমি উভয় পক্ষকে জায়গা মাপার জন্য ডেকেছিলাম। টাকা চাওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়৷ জায়গা দখল করে দেয়া কাউন্সিলরের কাজ নয়।
কথা বলতে নুর আলম লুথুকে একাধিকবার ফোন দেয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

নিউজটি শেয়ার করুন

সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৪
রাজশাহীতে নিজের জমিতে কাজ করতে গিয়ে রাসিক ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবাহান লিটন ও নূর আলম লুথু কর্তৃক সন্ত্রাসী বাহিনীর বাধা ও হামলার প্রতিবাদে এবং জমিটি দখলমুক্ত করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী শাহ্ শাবাব বাপ্পা।  শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকাল ৫ টায়  মহানগরীর শিরোইলে অবস্থিত রাজশাহী বরেন্দ্র প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন ভুক্তভোগী।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ভূক্তভোগী শাহ্ শাবাব বাপ্পা বলেন, আমার নিজের জমিতে গত মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল ৯ টায় দেয়াল দিতে গেলে পাশের বাড়ীর নূর আলম লুথু লোকজন ও সন্ত্রাসী বাহীনি নিয়ে বাধা প্রদান করেন। পরবতীতে ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবহান লিটনের যোগসাজশে ঘটনাটি আরও জোরালো হয়। কাউন্সিলর ১ লক্ষ টাকা দিলে সমস্যার সমাধান করে দিবেন বলে জানিয়েছেন। এরপর আমি আএমপি’র বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। থানা কর্তৃপক্ষ উভয় পক্ষকে একসাথে করে জমি মেপে সঠিকভাবে মীমাংসা করে নিতে বলেন। থানায় অভিযোগ দেয়ার পর থেকে বিভিন্ন লোক মারফত আমাকে প্রাণনাশসহ বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে। এঘটনার পর থেকে আমি আমার জমির ওপর যেতে পারছি না এবং ভীষণ নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। এমতাবস্থায় আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে  মেয়র ও পুলিশ কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন, আমার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা প্রদান সহ আমার নিজ জমি দখলমুক্ত করে সঠিক বিচারের ব্যবস্থা করা হোক।
তিনি সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, এর আগেও তারা আদালতে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছিলো। তা মহামান্য আদালত খারিজ করে দিয়েছেন। আমার পৈতৃক সম্পত্তি দখল করে দেয়ার জন্য ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান লিটনকে হাত করে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র করছেন।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবাহান লিটন বলেন, নূর আলম লুথুর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমি উভয় পক্ষকে জায়গা মাপার জন্য ডেকেছিলাম। টাকা চাওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়৷ জায়গা দখল করে দেয়া কাউন্সিলরের কাজ নয়।
কথা বলতে নুর আলম লুথুকে একাধিকবার ফোন দেয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।