ঢাকা ০৫:৫৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শ্রীলংকার ‘ভল্টিং কুইন’ এখন দুবাইয়ের গৃহকর্মী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৫৯:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুলাই ২০২৩
  • / ৪৪৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ক্রীড়া ডেস্ক: সাচিনি পেরেরা শ্রীলংকার শীর্ষস্থানীয় ক্রীড়াবিদ। পোল ভল্টে জাতীয় রেকর্ড গড়ার পাশাপাশি আখ্যা পান ‘ভল্টিং কুইন’ নামেও। কিন্তু এসব খ্যাতি এখন আর কোনও কাজ আসছে না তার। আর্থিক সংকটে পড়ে চাকরির খোঁজে গত বছরের জুলাই মাসে চলে যান দুবাইয়ে। সেখানে গৃহকর্মীর কাজ নেন পেরেরা। মায়ের চিকিৎসার খরচ জোগাতেই বেছে নেন এ কাজ।

পেরেরা দিনের বেলা দুবাইয়ের একটি বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করেন ও একটি বাচ্চার দেখাশোনা করেন। তবে, কাজের পরে ব্যায়াম করার জন্য আলাদা সময়ও রাখেন। মায়ের যত্নের জন্য মাসিক বেতনের বেশির ভাগ বাড়িতে পাঠান।

দুবাইয়ে যাওয়ার পর সেখানকার সংবাদমাধ্যম দ্যা ন্যাশনালকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ধাপে ধাপে আমি উড়ব। আমি কাজ করব। আমার স্বপ্ন আবার ওড়ার জন্য। মা বলেন, তুমি একজন ক্রীড়াবিদ, গৃহপরিচারিকা নও। এটা তোমার ক্রীড়া জীবন থেকে বিরতি।

পেরেরা সবসময় তার দেশ ও দেশের জনগণকে বিশ্ব মঞ্চে তুলে ধরার জন্য একটি পদক জিততে চেয়েছেন। গত বছর শ্রীলংকার অর্থনৈতিক পতনের ফলে জ্বালানি, খাদ্য ও বিদ্যুতের দাম বেড়ে যায়। এ সময় তার মা হঠাৎ স্ট্রোক করায় স্বপ্নে কিছুটা ব্যাঘাত ঘটে। কিন্তু কঠোর পরিশ্রমের মধ্যে এখনও স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি পেরেরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

শ্রীলংকার ‘ভল্টিং কুইন’ এখন দুবাইয়ের গৃহকর্মী

আপডেট সময় : ১০:৫৯:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুলাই ২০২৩

ক্রীড়া ডেস্ক: সাচিনি পেরেরা শ্রীলংকার শীর্ষস্থানীয় ক্রীড়াবিদ। পোল ভল্টে জাতীয় রেকর্ড গড়ার পাশাপাশি আখ্যা পান ‘ভল্টিং কুইন’ নামেও। কিন্তু এসব খ্যাতি এখন আর কোনও কাজ আসছে না তার। আর্থিক সংকটে পড়ে চাকরির খোঁজে গত বছরের জুলাই মাসে চলে যান দুবাইয়ে। সেখানে গৃহকর্মীর কাজ নেন পেরেরা। মায়ের চিকিৎসার খরচ জোগাতেই বেছে নেন এ কাজ।

পেরেরা দিনের বেলা দুবাইয়ের একটি বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করেন ও একটি বাচ্চার দেখাশোনা করেন। তবে, কাজের পরে ব্যায়াম করার জন্য আলাদা সময়ও রাখেন। মায়ের যত্নের জন্য মাসিক বেতনের বেশির ভাগ বাড়িতে পাঠান।

দুবাইয়ে যাওয়ার পর সেখানকার সংবাদমাধ্যম দ্যা ন্যাশনালকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ধাপে ধাপে আমি উড়ব। আমি কাজ করব। আমার স্বপ্ন আবার ওড়ার জন্য। মা বলেন, তুমি একজন ক্রীড়াবিদ, গৃহপরিচারিকা নও। এটা তোমার ক্রীড়া জীবন থেকে বিরতি।

পেরেরা সবসময় তার দেশ ও দেশের জনগণকে বিশ্ব মঞ্চে তুলে ধরার জন্য একটি পদক জিততে চেয়েছেন। গত বছর শ্রীলংকার অর্থনৈতিক পতনের ফলে জ্বালানি, খাদ্য ও বিদ্যুতের দাম বেড়ে যায়। এ সময় তার মা হঠাৎ স্ট্রোক করায় স্বপ্নে কিছুটা ব্যাঘাত ঘটে। কিন্তু কঠোর পরিশ্রমের মধ্যে এখনও স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি পেরেরা।