ঢাকা ১১:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শ্রীমঙ্গলে ৪৩টি কাপড়ের দোকান পুড়ে ২ কোটি টাকার ক্ষতি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১৮:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ৪৫৪ বার পড়া হয়েছে

শ্রীমঙ্গলে ৪৩টি কাপড়ের দোকান পুড়ে ছাই

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
মোঃ আমজাদ হোসেন বাচ্চু, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ
শনিবার ( ৩১ ডিসেম্বর) ভোর রাত সোয়া ৪ টার দিকে শ্রীমঙ্গল শহরের পোস্ট অফিস রোড পলি ক্লিনিকের সামনে নিক্সন মার্কেটের ৪৩ টি শীতবস্ত্রের দোকান ও ১টি মিটি ট্রাক আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এ ঘটনায় ২ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থ্য ব্যবসায়ীরা দাবী করেন।
স্থানীয়রা জানায়, বাজারের ব্যবসায়ীরা যখন দিন শেষে যে যার বাড়িতে ঘুমে আচ্ছন্ন তখন ভোর রাতে আগুন লেগে শীতের সব কাপড়ের দোকান পুড়ে নিঃশেষ হয়ে যায়। আগুন লাগার পরপরই মুহূর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পাশের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকের রোগীর কোন ক্ষতি হয়নি, আগুন ক্লিনিকের বিল্ডিং কাছে গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত পানি মেরে নিয়ন্ত্রনে আনেন। পাশেই ছিল পেট্রোল পাম্প, পেট্রোল পাম্প চত্বরে আগুন গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ সময় পাম্পে রাখা একটি তিন টনি ট্রাক পুড়ে গেছে।
আগুন লাগার খবর পেয়ে পুলিশ ও শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট ও মৌলভীবাজার থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের ১টি ইউনিট প্রায় আড়াই ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হলেও ততক্ষণে সব কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক আবু তাহের জানান, আমরা ভোর ৪টা ১৯ মিনিটের সময় খবর পেয়ে সাথে সাথেই চলে এসে ফায়ার সাভিসের ২টি ইউনিট ও মৌলভীবাজার থেকে আসা ১টি ইউনিটসহ মোট ৩টি ইউনিটের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সকাল ৭ টার দিকে আড়াই ঘন্টায় চেষ্টায় সম্পূর্ণ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি।
আগুন লাগার খবর পেয়ে সাথে সাথেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক হাজী মোঃ কামাল হোসেন ও ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দরা।
ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী মনির মিয়া বলেন, আমরা খবর পেয়ে এসে দেখি সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। কীভাবে যে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তা আমরা জানি না। কাপড়ের দোকান পুড়ে যাওয়া ৪৩ জন ব্যবসায়ী জানান, তাদের মোট ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২ কোটি টাকারও অধিক।
শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক আবু তাহের বলেছেন, আগুন লাগার কারণ তদন্তে করে জানা যাবে।
অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি।
এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান। এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।
এছাড়াও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুন, পৌরসভার মেয়র মোঃ মহসিন মিয়া মধু, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সন্দীপ তালুকদার, শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার প্রমূখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

শ্রীমঙ্গলে ৪৩টি কাপড়ের দোকান পুড়ে ২ কোটি টাকার ক্ষতি

আপডেট সময় : ০৯:১৮:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২
মোঃ আমজাদ হোসেন বাচ্চু, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ
শনিবার ( ৩১ ডিসেম্বর) ভোর রাত সোয়া ৪ টার দিকে শ্রীমঙ্গল শহরের পোস্ট অফিস রোড পলি ক্লিনিকের সামনে নিক্সন মার্কেটের ৪৩ টি শীতবস্ত্রের দোকান ও ১টি মিটি ট্রাক আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এ ঘটনায় ২ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থ্য ব্যবসায়ীরা দাবী করেন।
স্থানীয়রা জানায়, বাজারের ব্যবসায়ীরা যখন দিন শেষে যে যার বাড়িতে ঘুমে আচ্ছন্ন তখন ভোর রাতে আগুন লেগে শীতের সব কাপড়ের দোকান পুড়ে নিঃশেষ হয়ে যায়। আগুন লাগার পরপরই মুহূর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পাশের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকের রোগীর কোন ক্ষতি হয়নি, আগুন ক্লিনিকের বিল্ডিং কাছে গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত পানি মেরে নিয়ন্ত্রনে আনেন। পাশেই ছিল পেট্রোল পাম্প, পেট্রোল পাম্প চত্বরে আগুন গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ সময় পাম্পে রাখা একটি তিন টনি ট্রাক পুড়ে গেছে।
আগুন লাগার খবর পেয়ে পুলিশ ও শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট ও মৌলভীবাজার থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের ১টি ইউনিট প্রায় আড়াই ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হলেও ততক্ষণে সব কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক আবু তাহের জানান, আমরা ভোর ৪টা ১৯ মিনিটের সময় খবর পেয়ে সাথে সাথেই চলে এসে ফায়ার সাভিসের ২টি ইউনিট ও মৌলভীবাজার থেকে আসা ১টি ইউনিটসহ মোট ৩টি ইউনিটের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সকাল ৭ টার দিকে আড়াই ঘন্টায় চেষ্টায় সম্পূর্ণ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি।
আগুন লাগার খবর পেয়ে সাথে সাথেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক হাজী মোঃ কামাল হোসেন ও ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দরা।
ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী মনির মিয়া বলেন, আমরা খবর পেয়ে এসে দেখি সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। কীভাবে যে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তা আমরা জানি না। কাপড়ের দোকান পুড়ে যাওয়া ৪৩ জন ব্যবসায়ী জানান, তাদের মোট ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২ কোটি টাকারও অধিক।
শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক আবু তাহের বলেছেন, আগুন লাগার কারণ তদন্তে করে জানা যাবে।
অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি।
এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান। এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।
এছাড়াও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুন, পৌরসভার মেয়র মোঃ মহসিন মিয়া মধু, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সন্দীপ তালুকদার, শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার প্রমূখ।