ঢাকা ০৫:০৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শ্রীনগর বেজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগেরহাট সড়কের বেহাল দশায় ভোগান্তি

মুনীরুল ইসলাম, শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৪:০৫:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
  • / ৪১৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
শ্রীনগরে বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রসওয়ের সংযােগ সড়ক হিসেব সুপরিচিত বেজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগেরহাট রােডটি খানাখন্দে ভরে গেছে। শ্রীনগর উপজেলার বেজগাঁও এক্সপ্রেসওয়ে থেকে কুকুটিয়া হয়ে পার্শ্ববর্তী লৌহজং উপজেলার নাগেরহাট বাজার পর্যন্ত প্রায় ৯ কিলামিটার সড়ক সংস্কারের অভাবে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। অনেকাংশে দেবে যাওয়ার পাশিপাশি খানাখন্দে আর অসংখ্য গর্তে ভরা প্রাধান সংযােগ সড়কটিতে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। বাড়ছে দুর্ঘটনার শঙ্কাও।
স্থানীয়দের দাবি বেজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগেরহাট সড়কটি সংস্কারের পাশাপাশি প্রসস্তকরণের। দাবি বাস্তবায়িত হলে এটিকে বাইপাস রােড হিসেবে লৌহজং উপজেলার কনসার, নাগেরহাট, কাহতারা, নয়নাকান্দাসহ ওই এলাকার জনগণের রাজধানীতে যাতায়াতের ক্ষেত্র ১০/১২ কিলামিটার সড়কের দূরত্ব কমে আসবে। সহজতম সড়ক পথচারীর দুর্ভােগ লাঘবের পাশাপাশি সময়ও বাঁচবে।
একই সাথে শ্রীনগর উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের জনসাধারণের লৌহজং উপজেলাসহ বিভিন্ন দিকে চলা ফেরায় বাড়তি সুবিধা হবে। এখন সরু সড়ক প্রাইভেটকার, মােটরসাইকেল, অটােরিক্সাসহ অন্যান্য হালকা যানবাহন চলাচল করলেও রাস্তা প্রসস্ত হলে এপথে মিনিবাস, লেগুনাসহ অন্যান্য গণপরিবহণ অনায়াসেই আসা যাওয়া করতে পারে। এখন এই অঞ্চলের বাসিন্দাদের অটােরিক্সায় করে ভেঙ্গে ভেঙ্গে শ্রীনগর বেজগাঁও এসে এক্সপ্রেসওয়েতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে গণপরিবহণ ধরে ঢাকা যাওয়া আসা করতে হচ্ছে।
তবে বজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগরহাট সরু সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করার ফলে খানাখন্দ ভরা সড়কটি নাজুক হয়ে পড়েছে। দেখা গেছে, আকাবাঁকা সড়কে থাকা গর্তগুলাে যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেছে। এতে দুর্ঘটনার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন পথচারীরা। কুকুটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাে. বাবুল হােসেন বাবু বলেন, সড়কটি দুটি উপজেলার সহজতম যােগাযােগ মাধ্যম।
প্রতিদিন এদিকে দিয়ে অসংখ্য গাড়ি চলাচল করে। সড়কের অনেকাংশে পিচ উঠে বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় দুর্ভােগ বেড়েছে। এছাড়া কুকুটিয়া-সুরুদীয়া সেতুর দুই পাশের সড়কের অনেকাংশ দেবে গিয়ে বিপদজনক হয়ে উঠেছে। সড়কটি সংস্কার হলে জনসাধারণের দুর্ভােগ লাঘব হবে।
এ ব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা (এলজিইডি) প্রকৌশলী মাে. মহিফুল ইসলাম জানান, সড়কটি প্রসস্তকরণের জন্য বরাদ্দ আসলে পরিদর্শন করা হয়। আকাবাঁকা সড়কের দুই পাশে বিভিন্ন বসতবাড়ি ও স্থাপনা থাকার ফলে সড়ক প্রসস্তকরণের বিষয়টি বাতিল হয়। পরে সড়ক সংস্কারের জন্য মােটা করে আরসিসি কাজের প্রস্তাবনা পাঠানা হয়।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

শ্রীনগর বেজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগেরহাট সড়কের বেহাল দশায় ভোগান্তি

আপডেট সময় : ০৪:০৫:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
শ্রীনগরে বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রসওয়ের সংযােগ সড়ক হিসেব সুপরিচিত বেজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগেরহাট রােডটি খানাখন্দে ভরে গেছে। শ্রীনগর উপজেলার বেজগাঁও এক্সপ্রেসওয়ে থেকে কুকুটিয়া হয়ে পার্শ্ববর্তী লৌহজং উপজেলার নাগেরহাট বাজার পর্যন্ত প্রায় ৯ কিলামিটার সড়ক সংস্কারের অভাবে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। অনেকাংশে দেবে যাওয়ার পাশিপাশি খানাখন্দে আর অসংখ্য গর্তে ভরা প্রাধান সংযােগ সড়কটিতে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। বাড়ছে দুর্ঘটনার শঙ্কাও।
স্থানীয়দের দাবি বেজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগেরহাট সড়কটি সংস্কারের পাশাপাশি প্রসস্তকরণের। দাবি বাস্তবায়িত হলে এটিকে বাইপাস রােড হিসেবে লৌহজং উপজেলার কনসার, নাগেরহাট, কাহতারা, নয়নাকান্দাসহ ওই এলাকার জনগণের রাজধানীতে যাতায়াতের ক্ষেত্র ১০/১২ কিলামিটার সড়কের দূরত্ব কমে আসবে। সহজতম সড়ক পথচারীর দুর্ভােগ লাঘবের পাশাপাশি সময়ও বাঁচবে।
একই সাথে শ্রীনগর উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের জনসাধারণের লৌহজং উপজেলাসহ বিভিন্ন দিকে চলা ফেরায় বাড়তি সুবিধা হবে। এখন সরু সড়ক প্রাইভেটকার, মােটরসাইকেল, অটােরিক্সাসহ অন্যান্য হালকা যানবাহন চলাচল করলেও রাস্তা প্রসস্ত হলে এপথে মিনিবাস, লেগুনাসহ অন্যান্য গণপরিবহণ অনায়াসেই আসা যাওয়া করতে পারে। এখন এই অঞ্চলের বাসিন্দাদের অটােরিক্সায় করে ভেঙ্গে ভেঙ্গে শ্রীনগর বেজগাঁও এসে এক্সপ্রেসওয়েতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে গণপরিবহণ ধরে ঢাকা যাওয়া আসা করতে হচ্ছে।
তবে বজগাঁও-কুকুটিয়া-নাগরহাট সরু সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করার ফলে খানাখন্দ ভরা সড়কটি নাজুক হয়ে পড়েছে। দেখা গেছে, আকাবাঁকা সড়কে থাকা গর্তগুলাে যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেছে। এতে দুর্ঘটনার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন পথচারীরা। কুকুটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাে. বাবুল হােসেন বাবু বলেন, সড়কটি দুটি উপজেলার সহজতম যােগাযােগ মাধ্যম।
প্রতিদিন এদিকে দিয়ে অসংখ্য গাড়ি চলাচল করে। সড়কের অনেকাংশে পিচ উঠে বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় দুর্ভােগ বেড়েছে। এছাড়া কুকুটিয়া-সুরুদীয়া সেতুর দুই পাশের সড়কের অনেকাংশ দেবে গিয়ে বিপদজনক হয়ে উঠেছে। সড়কটি সংস্কার হলে জনসাধারণের দুর্ভােগ লাঘব হবে।
এ ব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা (এলজিইডি) প্রকৌশলী মাে. মহিফুল ইসলাম জানান, সড়কটি প্রসস্তকরণের জন্য বরাদ্দ আসলে পরিদর্শন করা হয়। আকাবাঁকা সড়কের দুই পাশে বিভিন্ন বসতবাড়ি ও স্থাপনা থাকার ফলে সড়ক প্রসস্তকরণের বিষয়টি বাতিল হয়। পরে সড়ক সংস্কারের জন্য মােটা করে আরসিসি কাজের প্রস্তাবনা পাঠানা হয়।
বাখ//আর