ঢাকা ০৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শেষের জাদুতে শ্রীলঙ্কাকে ১৬৪ রানের চ্যালেঞ্জ নামিবিয়ার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:১৬:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৬৩ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোর্টস ডেস্ক

একেই বলে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট। ধুম-ধাড়াক্কা খেলে স্কোরবোর্ডে হ্যান্ডসাম রান তুলে প্রতিপক্ষকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেবে। সেটা যে দলই হোক। শক্তিশালী শ্রীলঙ্কা বলে মোটেও ভয় পেয়ে যায়নি নামিবিয়া। শুরুতে দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারালেও ঠিকই শ্রীলঙ্কার সামনে ১৬৪ রানের দারুণ চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে আফ্রিকান দেশটি।

টস জিতে নামিবিয়াকে ব্যাট করতে পাঠায় শ্রীলঙ্কা। ব্যাট করতে নেমে শুরুতে কয়েকটি উইকেট হারালেও শেষের দিকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় আফ্রিকান দেশটি। মাঝারি মানের ৪/৫টি ইনিংসেই ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৩ রানের সংগ্রহ পেয়ে যায় তারা।

লড়াইয়ের শুরুতে পার্থক্যটা স্পষ্ট হয়ে উঠেছিলো। লঙ্কান বোলিংয়ের সামনে তেড়েফুঁড়ে ব্যাট করার চেষ্টা করে নামিবিয়ানরা। কিন্তু অভিজ্ঞ লঙ্কান ক্রিকেটাররা তাদের স্কোর করার পথ রূদ্ধ করে দেয়ার পাশাপাশি দ্রুত উইকেটও তুলে নিতে শুরু করে।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শ্রীলঙ্কাকে ব্রেক থ্রু এনে দিলেন দুষ্মন্তে চামিরা। ৬ বলে ৩ রান করে প্রমোদ মধুশানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাইকেল ফন লিংগেন।

পরের ওভারের একেবারে শেষ বলটি ছিল গুড লেন্থের। ব্যাটার ডিভান লা কুক বলটিকে ডিফেন্স করতে গিয়ে ব্যাটের উপরের কানায় লাগিয়ে দেন। বল উঠে যায় উপরে এবং দাসুন শানাকা ক্যাচটি তালুবন্দী করে নেন। ১৬ রানের মাথায় পড়ে দ্বিতীয় উইকেট।

নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়তে শুরু করে নামিবিয়ার। ৫ম ওভারে গিয়ে তাদের তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটান চামিকা করুনারত্নে। তবে নিকোল লফটি ইটনের এই উইকেটটি নেয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি অবদান উইকেটরক্ষক কুশল মেন্ডিসের। বাঁ-হাতে অসাধারণ একটি ক্যাচ ধরেন তিনি উইকেটের পেছনে ঝাঁপিয়ে পড়ে।

১২ বলে ২০ রান করে আউট হন নিকোল লফটি ইটন। ১টি বাউন্ডারির সঙ্গে ২টি ছক্কার মারও ছিল তার ব্যাটে। এরপরই ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দেন স্টিফেন বার্ড এবং গেরহার্ড এরাসমাস। ২৪ বলে ২৬ রান করেন তিনি। এরাসমাস করেন ২৪ বলে ২০ রান। ইয়ান ফ্রাইলিংক ছিলেন একটু মারমুখি। ২৮ বল খেলে তিনি করেন ৪৪ রান। শেষ মুহূর্তে ১৬ বলে ঝড়ো ৩১ রানে অপরাজিত ইনিংস খেলেন জেজে স্মিট।

লঙ্কানদের হয়ে ২টি উইকেট নেন প্রমোদ মধুশান। ১টি করে উইকেট নেন মহেশ থিকসানা, দুষ্মন্তে চামিরা, চামিকা করুনারত্নে এবং ওয়ানিদু হাসারাঙ্গা।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন

শেষের জাদুতে শ্রীলঙ্কাকে ১৬৪ রানের চ্যালেঞ্জ নামিবিয়ার

আপডেট সময় : ১২:১৬:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক

একেই বলে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট। ধুম-ধাড়াক্কা খেলে স্কোরবোর্ডে হ্যান্ডসাম রান তুলে প্রতিপক্ষকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেবে। সেটা যে দলই হোক। শক্তিশালী শ্রীলঙ্কা বলে মোটেও ভয় পেয়ে যায়নি নামিবিয়া। শুরুতে দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারালেও ঠিকই শ্রীলঙ্কার সামনে ১৬৪ রানের দারুণ চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে আফ্রিকান দেশটি।

টস জিতে নামিবিয়াকে ব্যাট করতে পাঠায় শ্রীলঙ্কা। ব্যাট করতে নেমে শুরুতে কয়েকটি উইকেট হারালেও শেষের দিকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় আফ্রিকান দেশটি। মাঝারি মানের ৪/৫টি ইনিংসেই ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৩ রানের সংগ্রহ পেয়ে যায় তারা।

লড়াইয়ের শুরুতে পার্থক্যটা স্পষ্ট হয়ে উঠেছিলো। লঙ্কান বোলিংয়ের সামনে তেড়েফুঁড়ে ব্যাট করার চেষ্টা করে নামিবিয়ানরা। কিন্তু অভিজ্ঞ লঙ্কান ক্রিকেটাররা তাদের স্কোর করার পথ রূদ্ধ করে দেয়ার পাশাপাশি দ্রুত উইকেটও তুলে নিতে শুরু করে।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শ্রীলঙ্কাকে ব্রেক থ্রু এনে দিলেন দুষ্মন্তে চামিরা। ৬ বলে ৩ রান করে প্রমোদ মধুশানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাইকেল ফন লিংগেন।

পরের ওভারের একেবারে শেষ বলটি ছিল গুড লেন্থের। ব্যাটার ডিভান লা কুক বলটিকে ডিফেন্স করতে গিয়ে ব্যাটের উপরের কানায় লাগিয়ে দেন। বল উঠে যায় উপরে এবং দাসুন শানাকা ক্যাচটি তালুবন্দী করে নেন। ১৬ রানের মাথায় পড়ে দ্বিতীয় উইকেট।

নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়তে শুরু করে নামিবিয়ার। ৫ম ওভারে গিয়ে তাদের তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটান চামিকা করুনারত্নে। তবে নিকোল লফটি ইটনের এই উইকেটটি নেয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি অবদান উইকেটরক্ষক কুশল মেন্ডিসের। বাঁ-হাতে অসাধারণ একটি ক্যাচ ধরেন তিনি উইকেটের পেছনে ঝাঁপিয়ে পড়ে।

১২ বলে ২০ রান করে আউট হন নিকোল লফটি ইটন। ১টি বাউন্ডারির সঙ্গে ২টি ছক্কার মারও ছিল তার ব্যাটে। এরপরই ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দেন স্টিফেন বার্ড এবং গেরহার্ড এরাসমাস। ২৪ বলে ২৬ রান করেন তিনি। এরাসমাস করেন ২৪ বলে ২০ রান। ইয়ান ফ্রাইলিংক ছিলেন একটু মারমুখি। ২৮ বল খেলে তিনি করেন ৪৪ রান। শেষ মুহূর্তে ১৬ বলে ঝড়ো ৩১ রানে অপরাজিত ইনিংস খেলেন জেজে স্মিট।

লঙ্কানদের হয়ে ২টি উইকেট নেন প্রমোদ মধুশান। ১টি করে উইকেট নেন মহেশ থিকসানা, দুষ্মন্তে চামিরা, চামিকা করুনারত্নে এবং ওয়ানিদু হাসারাঙ্গা।