ঢাকা ০৪:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে : তাজুল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:০৪:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৫৯ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের উন্নয়ন থেমে যায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর দেশ অনেক ক্ষেত্রেই স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে বলে জানান স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।
শনিবার (২৯ অক্টোবর) রাজধানীর বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব প্ল্যানার্সে বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস ২০২২ উপলক্ষে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের উন্নয়ন থেমে যায়, দেশ দারিদ্রসীমার নিচে চলে যায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, যোগাযোগ ব্যবস্থা, শিল্পকারখানাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, সব শ্রেণির মানুষের বসবাসের জন্য ঢাকাকে বাসযোগ্য ও টেকসই করতে হবে। নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে সবাইকে মিলেমিশে কাজ করতে হবে। সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে রাজধানীকে দৃষ্টিনন্দন, নিরাপদ বাসযোগ্য ও টেকসই শহর হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার হলো গ্রামগুলো হবে শহরের মতো। তাহলেই শহরমুখী মানুষের চাপ কমবে। এতে সড়ক যোগাযোগ, ইন্টারনেট-টেলি যোগাযোগ, শিক্ষা, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, সুপেয় পানি ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়গুলো সন্নিবেশিত থাকবে। একটি উন্নত জীবনযাত্রার জন্য যে ব্যবস্থাপনা মানুষের প্রয়োজন তার সবই থাকবে।

বৈঠকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন ইশরাত ইসলাম, দৈনিক প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের সভাপতি ফজলে রেজা সুমন, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, ড্যাপের প্রকল্প পরিচালক এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে : তাজুল

আপডেট সময় : ০৮:০৪:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের উন্নয়ন থেমে যায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর দেশ অনেক ক্ষেত্রেই স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে বলে জানান স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।
শনিবার (২৯ অক্টোবর) রাজধানীর বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব প্ল্যানার্সে বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস ২০২২ উপলক্ষে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের উন্নয়ন থেমে যায়, দেশ দারিদ্রসীমার নিচে চলে যায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, যোগাযোগ ব্যবস্থা, শিল্পকারখানাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, সব শ্রেণির মানুষের বসবাসের জন্য ঢাকাকে বাসযোগ্য ও টেকসই করতে হবে। নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে সবাইকে মিলেমিশে কাজ করতে হবে। সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে রাজধানীকে দৃষ্টিনন্দন, নিরাপদ বাসযোগ্য ও টেকসই শহর হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার হলো গ্রামগুলো হবে শহরের মতো। তাহলেই শহরমুখী মানুষের চাপ কমবে। এতে সড়ক যোগাযোগ, ইন্টারনেট-টেলি যোগাযোগ, শিক্ষা, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, সুপেয় পানি ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়গুলো সন্নিবেশিত থাকবে। একটি উন্নত জীবনযাত্রার জন্য যে ব্যবস্থাপনা মানুষের প্রয়োজন তার সবই থাকবে।

বৈঠকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন ইশরাত ইসলাম, দৈনিক প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের সভাপতি ফজলে রেজা সুমন, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, ড্যাপের প্রকল্প পরিচালক এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।