ঢাকা ০৪:০৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শুরুতে কানাডার চমক, দুরন্ত কামব্যাক ক্রোয়েশিয়ার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১৮:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২
  • / ৪৩৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোর্টস ডেস্ক : 
গ্রুপ পর্বের লড়াইয়ে মরক্কোর কাছে হেরে এমনিতেই নড়বড়ে অবস্থা বেলজিয়ামের। তবে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে যেভাবে শুরু করেছিল কানাডা, তাতে ভালো অবস্থানেও থাকতে পারতো গত বারের সেমিফাইনালিস্টরা। কিন্তু সে সুযোগটা দিল না লুকা মদ্রিচের দল। কানাডাকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে বেলজিয়েমের কাজটা বেশ কঠিন করে দিল গত বারের রানার আপরা।

কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে কানাডাকে ৪-১ গোলে হারাল রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা ক্রোয়েশিয়া। ফলে এবারো গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হচ্ছে কানাডাকে। ম্যাচে জোড়া গোল করেছেন আন্দ্রে ক্রামারিচ। একটি করে গোল করেছেন মার্কো লিভাহা ও লোভ্রো মাজের।

রোববার (২৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে মাঠে নামে ক্রোয়েশিয়া ও কানাডা। ‘এফ’ গ্রুপে এটি দুদলের দ্বিতীয় ম্যাচ। তবে মাঠে নেমেই ক্রোয়েশিয়াকে ধাক্কা দিয়ে দেয় ৮৬’র পর বিশ্বকাপে ফেরা কানাডা। দাভিয়েসের অসাধারণ গোলে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই কানাডার লিড। ডানপ্রান্ত থেকে বুছানারের দারুণ ক্রসে ডি বক্সের ভেতরে ফাঁকায় বল পেয়ে হেড দেন দাভিয়েস। চোখের পলকেই বল ক্রোয়েশিয়ার জালে। যদিও শুরুর ধাক্কা সামলে নিয়ে প্রতি আক্রমণে কানাডাকে স্রেফ এলোমেলো করে দেন ক্রোয়েটরা। বিরতিতে যাওয়ার আগে কানাডার জালে দুইবার বল পাঠিয়ে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে ক্রোয়েটরা।
৩৬ মিনিটে আন্দ্রেজ ক্রামারিচ ক্রোয়েশিয়াকে সমতায় ফেরান। পেরিচিচের বাড়ানো পাসে ডি বক্সের ভেতর থেকে আলতো টোকায় বল জালে পাঠান ক্রামারিচ। মিনিট দশেক আগে ভাজা গোল করে ক্রোয়েশিয়াকে এগিয়ে দিলেও তা অফসাইডের কারণে বাতিল হয়। অবশ্য সমতায় ফেরার পর ক্রোয়েশিয়া আত্মবিশ্বাসে গতি পায়। সেই গতিতেই বিরতিতে যাওয়ার আগে মার্কো লিভাজা গোল করে দলকে লিড এনে দেন।

বিরতি থেকে ফিরে জলাটকো ডালিচের শিষ্যরা নতুন উদ্েযাম ফিরে পায়। প্রথমার্ধের থেকেও এবার তারা আরও বেশি আক্রমণাত্মক, গোলের ক্ষুধা যেন আরো বেড়ে গিয়েছিল। মুহুর্মুহু আক্রমণে কানাডার রক্ষণের পরীক্ষা নেন তারা। তাতে কানাডা ভাগ্য পরীক্ষায় বেশ কায়েকবারই বেঁচে যায়। কিন্তু ক্রোয়েশিয়া দুটি গোল ঠিকই আদায় করে নেয়।
ম্যাচের ৭০ মিনিটে ক্রামারিচ দলের হয়ে তৃতীয় ও নিজের দ্বিতীয় গোল করেন। ৯৪ মিনিটে ডি বক্সের ভেতরে সহজতম গোলটি করেন মাজের।
৪-১ গোলে ক্রোয়েশিয়ার বিশ্বকাপে প্রথম জয়ের দিনে কানাডার দেশে ফেরার রিটার্ন টিকিটও নিশ্চিত হয়ে গেছে। বেলজিয়ামের কাছে ১-০ গোলে হারের পর ক্রোয়েশিয়ার কাছে হার। শেষ ম্যাচ মরক্কোর সঙ্গে শুধুই ড্রেস রিহার্সেল।

নিউজটি শেয়ার করুন

শুরুতে কানাডার চমক, দুরন্ত কামব্যাক ক্রোয়েশিয়ার

আপডেট সময় : ১০:১৮:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক : 
গ্রুপ পর্বের লড়াইয়ে মরক্কোর কাছে হেরে এমনিতেই নড়বড়ে অবস্থা বেলজিয়ামের। তবে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে যেভাবে শুরু করেছিল কানাডা, তাতে ভালো অবস্থানেও থাকতে পারতো গত বারের সেমিফাইনালিস্টরা। কিন্তু সে সুযোগটা দিল না লুকা মদ্রিচের দল। কানাডাকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে বেলজিয়েমের কাজটা বেশ কঠিন করে দিল গত বারের রানার আপরা।

কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে কানাডাকে ৪-১ গোলে হারাল রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা ক্রোয়েশিয়া। ফলে এবারো গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হচ্ছে কানাডাকে। ম্যাচে জোড়া গোল করেছেন আন্দ্রে ক্রামারিচ। একটি করে গোল করেছেন মার্কো লিভাহা ও লোভ্রো মাজের।

রোববার (২৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে মাঠে নামে ক্রোয়েশিয়া ও কানাডা। ‘এফ’ গ্রুপে এটি দুদলের দ্বিতীয় ম্যাচ। তবে মাঠে নেমেই ক্রোয়েশিয়াকে ধাক্কা দিয়ে দেয় ৮৬’র পর বিশ্বকাপে ফেরা কানাডা। দাভিয়েসের অসাধারণ গোলে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই কানাডার লিড। ডানপ্রান্ত থেকে বুছানারের দারুণ ক্রসে ডি বক্সের ভেতরে ফাঁকায় বল পেয়ে হেড দেন দাভিয়েস। চোখের পলকেই বল ক্রোয়েশিয়ার জালে। যদিও শুরুর ধাক্কা সামলে নিয়ে প্রতি আক্রমণে কানাডাকে স্রেফ এলোমেলো করে দেন ক্রোয়েটরা। বিরতিতে যাওয়ার আগে কানাডার জালে দুইবার বল পাঠিয়ে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে ক্রোয়েটরা।
৩৬ মিনিটে আন্দ্রেজ ক্রামারিচ ক্রোয়েশিয়াকে সমতায় ফেরান। পেরিচিচের বাড়ানো পাসে ডি বক্সের ভেতর থেকে আলতো টোকায় বল জালে পাঠান ক্রামারিচ। মিনিট দশেক আগে ভাজা গোল করে ক্রোয়েশিয়াকে এগিয়ে দিলেও তা অফসাইডের কারণে বাতিল হয়। অবশ্য সমতায় ফেরার পর ক্রোয়েশিয়া আত্মবিশ্বাসে গতি পায়। সেই গতিতেই বিরতিতে যাওয়ার আগে মার্কো লিভাজা গোল করে দলকে লিড এনে দেন।

বিরতি থেকে ফিরে জলাটকো ডালিচের শিষ্যরা নতুন উদ্েযাম ফিরে পায়। প্রথমার্ধের থেকেও এবার তারা আরও বেশি আক্রমণাত্মক, গোলের ক্ষুধা যেন আরো বেড়ে গিয়েছিল। মুহুর্মুহু আক্রমণে কানাডার রক্ষণের পরীক্ষা নেন তারা। তাতে কানাডা ভাগ্য পরীক্ষায় বেশ কায়েকবারই বেঁচে যায়। কিন্তু ক্রোয়েশিয়া দুটি গোল ঠিকই আদায় করে নেয়।
ম্যাচের ৭০ মিনিটে ক্রামারিচ দলের হয়ে তৃতীয় ও নিজের দ্বিতীয় গোল করেন। ৯৪ মিনিটে ডি বক্সের ভেতরে সহজতম গোলটি করেন মাজের।
৪-১ গোলে ক্রোয়েশিয়ার বিশ্বকাপে প্রথম জয়ের দিনে কানাডার দেশে ফেরার রিটার্ন টিকিটও নিশ্চিত হয়ে গেছে। বেলজিয়ামের কাছে ১-০ গোলে হারের পর ক্রোয়েশিয়ার কাছে হার। শেষ ম্যাচ মরক্কোর সঙ্গে শুধুই ড্রেস রিহার্সেল।