ঢাকা ১২:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শুধু শিরোপা নয়, বাকি সব পুরস্কারও এলো বাংলাদেশে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫৬:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৪৬৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সদ্য সমাপ্ত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শুধুই বাংলাদেশের জয়োগান। ৫টি ম্যাচে মাত্র একটি গোল খেয়েছে বাংলাদেশ, অন্যদিকে প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়েছে ২৩ বার! দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে ইতিহাস গড়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে ব্যক্তিগত অর্জনেও শীর্ষে বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে ৮ গোল করে সর্বোচ্চ গোলাদাতা হয়েছেন বাংলাদেশের সেনাপতি সাবিনা খাতুন। হয়েছেন টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ও। টুর্নামেন্টে সেরা গোলকিপার বাংলাদেশের রুপনা চাকমা। ৫ ম্যাচে যার বিপক্ষে গোল হয়েছে মাত্র একটি। তাও সেটা ফাইনালে। বাকি সবগুলো ম্যাচ গোলবারের অতন্দ্র প্রহরী ছিলেন তিনি।

কয়েক বছর আগেও জাতীয় দলে সাবিনা ছিলেন নিঃসঙ্গ। একাই লড়তে হতো। কারণ, সতীর্থরা ছিলেন ছোট। জাতীয় দলে খেলার মতো অভিজ্ঞতা ছিল না মারিয়া মান্দাদের। তখনো যেমন দলকে টেনে নিয়েছেন সাবিনা খাতুন, আজও তিনি নেতৃত্ব দিলের সামনে থেকে। আজ ফাইনালে গোল পাননি সাবিনা, তবে গোল করিয়েছেন।

ফাইনালের আগ পর্যন্ত করেছেন ৮ গোল। যার মধ্যে দুটি হ্যাটট্রিক। প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয়ে সাবিনার দুই গোল। পাকিস্তানের বিপক্ষে দলের ৬-০ গোলে জয়ে সাবিনার তিন গোল। ভারতের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয়ে সাবিনা গোল পাননি। সেমিফাইনালে বাংলাদেশ ৮-০ গোলে উড়িয়ে দেয় ভুটানকে। সাবিনা হ্যাটট্রিক করেন সেদিনও।

আজ সত্যিই নিজেকে সুখী ভাবার দিন সাবিনার। তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশের মেয়েরা হিমালয় জয় করে ফিরছেন দেশে। প্রথমবারের মতো কোনো আন্তর্জাতিক শিরোপা জিতে দেশে ফিরবে তার দল।

নিউজটি শেয়ার করুন

শুধু শিরোপা নয়, বাকি সব পুরস্কারও এলো বাংলাদেশে

আপডেট সময় : ১১:৫৬:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

সদ্য সমাপ্ত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শুধুই বাংলাদেশের জয়োগান। ৫টি ম্যাচে মাত্র একটি গোল খেয়েছে বাংলাদেশ, অন্যদিকে প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়েছে ২৩ বার! দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে ইতিহাস গড়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে ব্যক্তিগত অর্জনেও শীর্ষে বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে ৮ গোল করে সর্বোচ্চ গোলাদাতা হয়েছেন বাংলাদেশের সেনাপতি সাবিনা খাতুন। হয়েছেন টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ও। টুর্নামেন্টে সেরা গোলকিপার বাংলাদেশের রুপনা চাকমা। ৫ ম্যাচে যার বিপক্ষে গোল হয়েছে মাত্র একটি। তাও সেটা ফাইনালে। বাকি সবগুলো ম্যাচ গোলবারের অতন্দ্র প্রহরী ছিলেন তিনি।

কয়েক বছর আগেও জাতীয় দলে সাবিনা ছিলেন নিঃসঙ্গ। একাই লড়তে হতো। কারণ, সতীর্থরা ছিলেন ছোট। জাতীয় দলে খেলার মতো অভিজ্ঞতা ছিল না মারিয়া মান্দাদের। তখনো যেমন দলকে টেনে নিয়েছেন সাবিনা খাতুন, আজও তিনি নেতৃত্ব দিলের সামনে থেকে। আজ ফাইনালে গোল পাননি সাবিনা, তবে গোল করিয়েছেন।

ফাইনালের আগ পর্যন্ত করেছেন ৮ গোল। যার মধ্যে দুটি হ্যাটট্রিক। প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয়ে সাবিনার দুই গোল। পাকিস্তানের বিপক্ষে দলের ৬-০ গোলে জয়ে সাবিনার তিন গোল। ভারতের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয়ে সাবিনা গোল পাননি। সেমিফাইনালে বাংলাদেশ ৮-০ গোলে উড়িয়ে দেয় ভুটানকে। সাবিনা হ্যাটট্রিক করেন সেদিনও।

আজ সত্যিই নিজেকে সুখী ভাবার দিন সাবিনার। তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশের মেয়েরা হিমালয় জয় করে ফিরছেন দেশে। প্রথমবারের মতো কোনো আন্তর্জাতিক শিরোপা জিতে দেশে ফিরবে তার দল।