ঢাকা ০৯:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শুক্র ও শনিবার খোলা থাকবে ‍দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩২:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ মে ২০২৩
  • / ৪৫৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঘূর্ণিঝড় মোখা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ ও আদান-প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে আগামী শুক্র ও শনিবার (১২ ও ১৩ মে) খোলা থাকবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

আজ বৃহস্পতিবার ‍দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মো. সেলিম হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় মোখা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ ও আদান-প্রদানের জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ জন্য মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে যথাসময়ে অফিসে উপস্থিত থাকতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্ততের তথ্য অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড় মোখা দুই ভাগে ভাগ হয়ে একটি অংশ কক্সবাজার দিয়ে বাংলাদেশ অতিক্রম করবে। সবচেয়ে শক্তিশালী অংশ মিয়ানমারের ওপর দিয়ে অতিক্রম করবে। কক্সবাজার, বরগুনা, নোয়াখালীসহ উপকূলীয় এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

সিডরের মতো শক্তিশালী হতে পারে ঘূর্ণিঝড় মোখা, তবে এখনই চূড়ান্তভাবে বলা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে মোখা। দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিমে থাকা ঝড়টি, শুক্রবার বাঁক নিয়ে অগ্রসর হতে পারে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার উপকূলের দিকে। আঘাত হানতে পারে রোববার সকাল থেকে দুপুরের মধ্যে।

ঘণ্টায় ৮ থেকে ১৬ কিলোমিটার বেগে উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে মোখা। গাণিতিক মডেল বিশ্লেষণ করে আবহাওয়া অফিস বলছে,অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে এটি। মোখা উপকূলে আঘাত হানার সময় বাতাসের গতিবেগ থাকতে পারে ১২০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার।

নিউজটি শেয়ার করুন

শুক্র ও শনিবার খোলা থাকবে ‍দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়

আপডেট সময় : ১০:৩২:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ মে ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঘূর্ণিঝড় মোখা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ ও আদান-প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে আগামী শুক্র ও শনিবার (১২ ও ১৩ মে) খোলা থাকবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

আজ বৃহস্পতিবার ‍দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মো. সেলিম হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় মোখা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ ও আদান-প্রদানের জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ জন্য মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে যথাসময়ে অফিসে উপস্থিত থাকতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্ততের তথ্য অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড় মোখা দুই ভাগে ভাগ হয়ে একটি অংশ কক্সবাজার দিয়ে বাংলাদেশ অতিক্রম করবে। সবচেয়ে শক্তিশালী অংশ মিয়ানমারের ওপর দিয়ে অতিক্রম করবে। কক্সবাজার, বরগুনা, নোয়াখালীসহ উপকূলীয় এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

সিডরের মতো শক্তিশালী হতে পারে ঘূর্ণিঝড় মোখা, তবে এখনই চূড়ান্তভাবে বলা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে মোখা। দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিমে থাকা ঝড়টি, শুক্রবার বাঁক নিয়ে অগ্রসর হতে পারে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার উপকূলের দিকে। আঘাত হানতে পারে রোববার সকাল থেকে দুপুরের মধ্যে।

ঘণ্টায় ৮ থেকে ১৬ কিলোমিটার বেগে উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে মোখা। গাণিতিক মডেল বিশ্লেষণ করে আবহাওয়া অফিস বলছে,অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে এটি। মোখা উপকূলে আঘাত হানার সময় বাতাসের গতিবেগ থাকতে পারে ১২০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার।