ঢাকা ০৫:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শিবপুরে বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ: গ্রেপ্তার ৬

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:২৩:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৫১৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

পরিচয়ের পর বিয়ে করার কথা বলে এক কিশোরী শ্রমিককে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ করার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ছয় যুবককে গ্রেপ্তার করেছে শিবপুর মডেল থানা পুলিশ। রোববার (৪ ফেব্রয়ারি) তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হযেেছ বলে জানিয়েছেন শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদ উদ্দিন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিযনের নন্দীপাডা গ্রামের শফিউদ্দিন ভূইয়ার ছেলে আপেল ভূঁইযা (৩৭), শিবপুর উপজেলার ধনাইযা গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে ডালিম মিযা (২০), শাষপুর গ্রামের মৃত মালেক মির্জার ছেলে জাকির মির্জা (৩৫) ঘাসিরদিয়া গ্রামের রোকন উদ্দিনের ছেলে ফযসাল (১৯), শাষপুর গ্রামের মৃত হিরন মিযার ছেলে মনির হোসেন (২৭) ও ঘাগটিযা গ্রামের হান্নানের ছেলে তুহিন (৩২)।

ভুক্তভোগীর বরাতে পুলিশ জানায়, নারাযণগঞ্জ জেলার আডাইহাজার থানার মোহাম্মদপুর গ্রামের ওই কিশোরী (১৩) নরসিংদীর মাধবদী থানার গরহাটা এলাকায় ভাডা বাসায থেকে একটি স্পিনিং মিলে শ্রমিকের কাজ করতেন। বাসে আসা- যাওয়ার পথে গাড়ীর হেলপার ডালিম মিয়ার সাথে তার পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক হয়। কথিত প্রেমিক ডালিম গত ৩১ জানুয়ারি রাতে বিয়ে করার কথা বলে তাকে ডেকে আনেন শিবপুরের মুন্সেফেরচর এলাকার ভাড়া বাসায়। পরে সেখানে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটায় কথিত প্রেমিক ও তাঁর বন্ধুরা। কথিত প্রেমিক ডালিম বিবাহিত বলেও জানতে পারেন ওই কিশোরী। গণধর্ষণের ঘটনায় ৯ জনকে আসামী করে শিবপুর থানায় মামলা করেছেন নির্যাতিত কিশোরী।

শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদ উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী কিশোরীর অভিযোগের পরপরই শিবপুর ও নরসিংদী সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায অভিযান চালিযে ছয় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয। আদালতে দুইজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হযেেছ। বাকী আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

শিবপুরে বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ: গ্রেপ্তার ৬

আপডেট সময় : ০৭:২৩:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পরিচয়ের পর বিয়ে করার কথা বলে এক কিশোরী শ্রমিককে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ করার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ছয় যুবককে গ্রেপ্তার করেছে শিবপুর মডেল থানা পুলিশ। রোববার (৪ ফেব্রয়ারি) তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হযেেছ বলে জানিয়েছেন শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদ উদ্দিন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিযনের নন্দীপাডা গ্রামের শফিউদ্দিন ভূইয়ার ছেলে আপেল ভূঁইযা (৩৭), শিবপুর উপজেলার ধনাইযা গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে ডালিম মিযা (২০), শাষপুর গ্রামের মৃত মালেক মির্জার ছেলে জাকির মির্জা (৩৫) ঘাসিরদিয়া গ্রামের রোকন উদ্দিনের ছেলে ফযসাল (১৯), শাষপুর গ্রামের মৃত হিরন মিযার ছেলে মনির হোসেন (২৭) ও ঘাগটিযা গ্রামের হান্নানের ছেলে তুহিন (৩২)।

ভুক্তভোগীর বরাতে পুলিশ জানায়, নারাযণগঞ্জ জেলার আডাইহাজার থানার মোহাম্মদপুর গ্রামের ওই কিশোরী (১৩) নরসিংদীর মাধবদী থানার গরহাটা এলাকায় ভাডা বাসায থেকে একটি স্পিনিং মিলে শ্রমিকের কাজ করতেন। বাসে আসা- যাওয়ার পথে গাড়ীর হেলপার ডালিম মিয়ার সাথে তার পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক হয়। কথিত প্রেমিক ডালিম গত ৩১ জানুয়ারি রাতে বিয়ে করার কথা বলে তাকে ডেকে আনেন শিবপুরের মুন্সেফেরচর এলাকার ভাড়া বাসায়। পরে সেখানে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটায় কথিত প্রেমিক ও তাঁর বন্ধুরা। কথিত প্রেমিক ডালিম বিবাহিত বলেও জানতে পারেন ওই কিশোরী। গণধর্ষণের ঘটনায় ৯ জনকে আসামী করে শিবপুর থানায় মামলা করেছেন নির্যাতিত কিশোরী।

শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদ উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী কিশোরীর অভিযোগের পরপরই শিবপুর ও নরসিংদী সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায অভিযান চালিযে ছয় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয। আদালতে দুইজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হযেেছ। বাকী আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।