ঢাকা ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শাহজাদপুরে শিশুকে কয়েক টুকরা করে হত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৫:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ অগাস্ট ২০২৩
  • / ৫০৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

// সাগর বসাক, স্টাফ রিপোর্টার //

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের মাজ্জান গ্রামের নেপিয়ার ঘাসের জমি থেকে বুধবার সন্ধ্যায় পুলিশ ফাতেমা খাতুন ( ৬ )নামের এক শিশুর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে। সে ওই গ্রামের দিন মুজুর সোবাহান আলীর মেয়ে।

এলাকাবাসি জানায়, গত সোমবার সকালে দিকে আখ ( কুশল) কেটে দেওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় একই গ্রামের আবেদ আলীর বখাটে ছেলে নজরুল ইসলাম (২০)। এর পর থেকে শিশু ফাতেমা খাতুনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। অপর দিকে বখাটে নজরুল ইসলাম ও এলাকা থেকে গা ঢাকা দেয়। এ ঘটনায় নিহত শিশুর বাবা সোবাহান আলী বখাটে নজরুল ইসলামকে সন্দেহ জনক আসামি করে মঙ্গলবার দুপুরে শাহজাদপুর থানায় নিখোঁজ ডায়রি করেন।

এর পর এদিন বিকেলে গত বুধবার বাড়ির পাশে একটি নেপিয়ার ঘাসের জমিতে শিশুর একটি পা পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে শাহজাদপুর থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছে এদিন সন্ধ্যায় নেপিয়ার ঘাসের জমি তল্লাশি করে ফাতেমা খাতুনের ক্ষতবিক্ষত দেহাবশেষ উদ্ধার করে। খবর পেয়ে নিহতের পরিবার শিশুটিকে শনাক্ত করে। তবে তার অধিকাংশ শরীর পাওয়া যায়নি । লাশটি উদ্ধারের সময় গ্রামের শত শত মানুষ ভীড় জমাতে থাকে । এ সময় এক হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটে ।

আরও পড়ুন : শ্রীপুরে অসহায় সংখ্যালঘু পরিবারের জমিতে জোরপূর্বক দোকান ঘর নির্মাণ

 

এ বিষয়ে শাহজাদপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম মৃধা বলেন, শিশুটির কানে স্বর্ণের দুল ছিলো প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে এই দুল ছিনিয়ে নেওয়ার লোভে আখ কেটে দেওয়ার কথা বলে বাড়ি ডেকে নিয়ে হত্যার পর লাশ নেপিয়ার ঘাসের জমিতে ফেলে বখাটে নজরুল ইসলাম পালিয়ে গেছে। লাশটি পচে গোলে ক্ষতবিক্ষত হয়ে গেছে। ফলে তাৎক্ষণিক ভাবে মৃত্যুর সঠিক কারণ বুঝা যাচ্ছে না। লাশটি উদ্ধার করে করে ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ মর্গে প্রেরন করা হয়েছে । এ রিপোর্ট লেখা পার্যন্ত এখও মামলা হয়নি । এঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে ।

নিউজটি শেয়ার করুন

শাহজাদপুরে শিশুকে কয়েক টুকরা করে হত্যা

আপডেট সময় : ০৮:২৫:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ অগাস্ট ২০২৩

// সাগর বসাক, স্টাফ রিপোর্টার //

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের মাজ্জান গ্রামের নেপিয়ার ঘাসের জমি থেকে বুধবার সন্ধ্যায় পুলিশ ফাতেমা খাতুন ( ৬ )নামের এক শিশুর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে। সে ওই গ্রামের দিন মুজুর সোবাহান আলীর মেয়ে।

এলাকাবাসি জানায়, গত সোমবার সকালে দিকে আখ ( কুশল) কেটে দেওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় একই গ্রামের আবেদ আলীর বখাটে ছেলে নজরুল ইসলাম (২০)। এর পর থেকে শিশু ফাতেমা খাতুনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। অপর দিকে বখাটে নজরুল ইসলাম ও এলাকা থেকে গা ঢাকা দেয়। এ ঘটনায় নিহত শিশুর বাবা সোবাহান আলী বখাটে নজরুল ইসলামকে সন্দেহ জনক আসামি করে মঙ্গলবার দুপুরে শাহজাদপুর থানায় নিখোঁজ ডায়রি করেন।

এর পর এদিন বিকেলে গত বুধবার বাড়ির পাশে একটি নেপিয়ার ঘাসের জমিতে শিশুর একটি পা পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে শাহজাদপুর থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছে এদিন সন্ধ্যায় নেপিয়ার ঘাসের জমি তল্লাশি করে ফাতেমা খাতুনের ক্ষতবিক্ষত দেহাবশেষ উদ্ধার করে। খবর পেয়ে নিহতের পরিবার শিশুটিকে শনাক্ত করে। তবে তার অধিকাংশ শরীর পাওয়া যায়নি । লাশটি উদ্ধারের সময় গ্রামের শত শত মানুষ ভীড় জমাতে থাকে । এ সময় এক হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটে ।

আরও পড়ুন : শ্রীপুরে অসহায় সংখ্যালঘু পরিবারের জমিতে জোরপূর্বক দোকান ঘর নির্মাণ

 

এ বিষয়ে শাহজাদপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম মৃধা বলেন, শিশুটির কানে স্বর্ণের দুল ছিলো প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে এই দুল ছিনিয়ে নেওয়ার লোভে আখ কেটে দেওয়ার কথা বলে বাড়ি ডেকে নিয়ে হত্যার পর লাশ নেপিয়ার ঘাসের জমিতে ফেলে বখাটে নজরুল ইসলাম পালিয়ে গেছে। লাশটি পচে গোলে ক্ষতবিক্ষত হয়ে গেছে। ফলে তাৎক্ষণিক ভাবে মৃত্যুর সঠিক কারণ বুঝা যাচ্ছে না। লাশটি উদ্ধার করে করে ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ মর্গে প্রেরন করা হয়েছে । এ রিপোর্ট লেখা পার্যন্ত এখও মামলা হয়নি । এঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে ।