ঢাকা ১২:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শাহজাদপুরে ফের বন্যায় ডুবে গেছে ৫২০ হেক্টর জমির মাষকালাই

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:১৪:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৬৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বর্ষা মৌসুম শেষ হয়ে গেলেও নতুন করে  উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সৃষ্টি হওয়া বন্যা এখন কৃষকের গলার কাটা। ইতোমধ্যেই  সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার যমুনা, করতোয়া, বড়াল, হুরাসাগরসহ সবকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রবল বেগে প্রবাহিত হওয়া পানি এখন নদী ছাপিয়ে শষ্যের জমিতে উঠে পড়ায় এ উপজেলায় আবারো নতুন করে বন্যা দেখা দিয়েছে। তৃতীয় দফা বন্যায় হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়েছেই সাথে সাথে নতুন করে বীজ রোপন করা ফসলী জমি তলিয়ে যাওয়ায় ভয়াবহ ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে শাহজাদপুরের মানুষ। এদিকে উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের প্রায় আড়াই হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে বলে উপজেলা প্রশাসন সূত্রে খবর পাওয়া গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় অব্যাহত ভাবে পানি বৃদ্ধির কারণে পানিবন্দী মানুষদের দুর্ভোগ বেড়েছে বহুগুন। গোচারন ভূমি পানির নীচে থাকায় গো-খাদ্যের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে এসব এলাকায়। সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার পোতাজিয়া ইউনিয়নের রেশমবাড়ি, মাদলা, কাকিলাবাড়ি ছোট বায়ড়া, নগর বায়ড়া, চরা চিথুলিয়া, পোরজনা ইউনিয়নের জিগারবারিয়া, নন্দলালপুর, বাচরা, বড় মহরাজপুর, পুঠিয়া, কাদাই, উল্টাডাব, জামিরতা, বেলতৈল ইউনিয়নের বেতকান্দী, কাদাই, ঘোরশাল, রূপবাটি ইউনিয়নের মোয়াকোলা, শেলাচাপড়ী, সদামারা, ধুনাইল, ভুল বাকুটিয়া গ্রামের বিস্তীর্ণ মাঠ নতুন করে আসা পানিতে তলিয়ে গেছে যা কিছুদিন আগেই শুকিয়ে গিয়েছিল। পরিস্থিতি অনুযায়ী কৃষকরা নিশ্চিত ছিল বন্যার পানি আর হবেনা। তাই শুকিয়ে যাওয়া ফসলী মাঠে মাষকালাই ঘাস রোপন করে। কিন্তু গত কয়েকদিনের বন্যার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিস্তীর্ণ মাঠ প্লাবিত হওয়ায় উপজেলার প্রায় ৫২০ হেক্টর মাষকালাই ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্থ্ হয়েছে। সেই সাথে এসব এলাকার প্রায় আড়াই হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। এছাড়াও নতুন করে বন্যায় এ উপজেলার ৫০ হেক্টর সবজি ক্ষেত তলিয়ে গেছে বলে উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ আব্দুস সালাম জানান, গত কয়েক দিন ধরে শাহজাদপুরের নদ নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে আকস্মিক বন্যার পানি বির্স্তীণ মাঠে ছড়িয়ে  পড়েছে। এর ফলে অন্তত ৫২০ হেক্টর জমির মাষকালাই ক্ষেত ডুবে গেছে। এতে কৃষকের অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে। এজন্য দুগ্ধ শিল্পের জন্য বিখ্যাত এ অঞ্চলে তীব্র গো খাদ্য সংকট দেখা দিবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

শাহজাদপুরে ফের বন্যায় ডুবে গেছে ৫২০ হেক্টর জমির মাষকালাই

আপডেট সময় : ০৮:১৪:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বর্ষা মৌসুম শেষ হয়ে গেলেও নতুন করে  উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সৃষ্টি হওয়া বন্যা এখন কৃষকের গলার কাটা। ইতোমধ্যেই  সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার যমুনা, করতোয়া, বড়াল, হুরাসাগরসহ সবকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রবল বেগে প্রবাহিত হওয়া পানি এখন নদী ছাপিয়ে শষ্যের জমিতে উঠে পড়ায় এ উপজেলায় আবারো নতুন করে বন্যা দেখা দিয়েছে। তৃতীয় দফা বন্যায় হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়েছেই সাথে সাথে নতুন করে বীজ রোপন করা ফসলী জমি তলিয়ে যাওয়ায় ভয়াবহ ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে শাহজাদপুরের মানুষ। এদিকে উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের প্রায় আড়াই হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে বলে উপজেলা প্রশাসন সূত্রে খবর পাওয়া গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় অব্যাহত ভাবে পানি বৃদ্ধির কারণে পানিবন্দী মানুষদের দুর্ভোগ বেড়েছে বহুগুন। গোচারন ভূমি পানির নীচে থাকায় গো-খাদ্যের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে এসব এলাকায়। সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার পোতাজিয়া ইউনিয়নের রেশমবাড়ি, মাদলা, কাকিলাবাড়ি ছোট বায়ড়া, নগর বায়ড়া, চরা চিথুলিয়া, পোরজনা ইউনিয়নের জিগারবারিয়া, নন্দলালপুর, বাচরা, বড় মহরাজপুর, পুঠিয়া, কাদাই, উল্টাডাব, জামিরতা, বেলতৈল ইউনিয়নের বেতকান্দী, কাদাই, ঘোরশাল, রূপবাটি ইউনিয়নের মোয়াকোলা, শেলাচাপড়ী, সদামারা, ধুনাইল, ভুল বাকুটিয়া গ্রামের বিস্তীর্ণ মাঠ নতুন করে আসা পানিতে তলিয়ে গেছে যা কিছুদিন আগেই শুকিয়ে গিয়েছিল। পরিস্থিতি অনুযায়ী কৃষকরা নিশ্চিত ছিল বন্যার পানি আর হবেনা। তাই শুকিয়ে যাওয়া ফসলী মাঠে মাষকালাই ঘাস রোপন করে। কিন্তু গত কয়েকদিনের বন্যার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিস্তীর্ণ মাঠ প্লাবিত হওয়ায় উপজেলার প্রায় ৫২০ হেক্টর মাষকালাই ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্থ্ হয়েছে। সেই সাথে এসব এলাকার প্রায় আড়াই হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। এছাড়াও নতুন করে বন্যায় এ উপজেলার ৫০ হেক্টর সবজি ক্ষেত তলিয়ে গেছে বলে উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ আব্দুস সালাম জানান, গত কয়েক দিন ধরে শাহজাদপুরের নদ নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে আকস্মিক বন্যার পানি বির্স্তীণ মাঠে ছড়িয়ে  পড়েছে। এর ফলে অন্তত ৫২০ হেক্টর জমির মাষকালাই ক্ষেত ডুবে গেছে। এতে কৃষকের অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে। এজন্য দুগ্ধ শিল্পের জন্য বিখ্যাত এ অঞ্চলে তীব্র গো খাদ্য সংকট দেখা দিবে।