ঢাকা ০৯:৫৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শাহজাদপুরের গালা ইউপি’র কার্যালয় শাহজাদপুর কোর্ট ডরমেটরিতে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৪৮:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৪ অগাস্ট ২০২৩
  • / ৫১১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

// রাজেশ দত্ত ও ভরত সাহা //

সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের কার্যালয় শাহজাদপুর কোর্ট চত্বরের ডরমেটরিতে ওই ইউপি’র কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। ফলে গালা ইউনিয়নবাসী চরম ভোগান্তীর শিকার হচ্ছে।

জানা গেছে, শাহজাদপুর উপজেলা সদর থেকে গালা ইউনিয়নের দুরত্ব প্রায় ১৭ কিলোমিটার। ওই ১৭ কিলোমিটার পথ অত্যন্ত দুর্গম । ফলে জন্ম নিবন্ধন, ট্রেড লাইসেন্স, ওয়ারিশান সার্টিফিকেট ও জন্ম মৃত্যুর সনদ এবং নাগরিকত্বের সনদপত্র নিতে চাইলে ওই ১৭ কিলোমিটার দুর্গম পথ পাড়ি দিয়ে শাহজাদপুরে আসতে হয় নতুবা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন ও সচিব আব্দুল আলীমের জন্য ১/২ সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হয়।
এ ব্যাপারে গালা ইউপি চেয়রম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেনের কথা হলে তিনি বলেন, আমি অডিট ডিপার্টমেন্টে চাকরি করা একজন অভিজ্ঞ ব্যক্তি। আমার চেয়ারম্যানি কার্যক্রম কিভাবে পরিচালিত করবো এ ব্যাপারে কোন সাংবাদিকের কিছু বলার বা করার এখতিয়ার নেই। আমি রাত ১০ টার পরে জনগণের সাথে কথা বলে তাদের সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করি। তিনি আরও বলেন, শাহজাদপুরের কোর্ট চত্বরে ইউপি পরিষদের এই কার্যালয়টি দীর্ঘ ২ বছর ধরে পরিচালিত করছি। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের এত মাথাব্যাথা বা আগ্রহের কারণ কি? এক সময় এই সচিব আব্দুল আলীম এই সাংবাদিককে কিছু উৎকোচ দেয়ারও চেষ্টা করেন।

আরও পড়ুন : তাহিরপুরে দোকান কোঠার ভাড়া চাওয়ায় সংঘর্ষ: আহত ১৫

এ ব্যাপারে গালা ইউনিয়নের ভুক্তভোগী মিন্টুসহ অনেকেই বলেন, আমরা ইউপি চেয়ারম্যানের এহেন কার্যক্রমে চরম ভোগান্তীর শিকার হয়ে আসছি। চেয়ারম্যান গর্ব করে বলেন, ‘আমি চেয়ারম্যানদের সভাপতি। আমার কার্যক্রম আমি চালিয়ে যাবো।’

অপরদিকে, চেয়ারম্যানের চরম স্বেচ্ছাচারিতার কারণে গালা ইউনিয়নবাসী ইউনিয়ন পরিষদের সেবা প্রাপ্তিতে চরম ভোগান্তীর শিকার হলেও দেখার কেউ নেই। ইউনিয়নবাসী চেয়ারম্যানের এ চরম স্বেচ্ছাচারিতা ও ক্ষমতা অপব্যবহারের সুষ্ঠু তদন্ত ও সুবিচার দাবী করেছেন।

এ বিষয়ে শাহজাদপুরের নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। দ্রুত এ ব্যাপারে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

শাহজাদপুরের গালা ইউপি’র কার্যালয় শাহজাদপুর কোর্ট ডরমেটরিতে

আপডেট সময় : ১০:৪৮:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৪ অগাস্ট ২০২৩

// রাজেশ দত্ত ও ভরত সাহা //

সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের কার্যালয় শাহজাদপুর কোর্ট চত্বরের ডরমেটরিতে ওই ইউপি’র কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। ফলে গালা ইউনিয়নবাসী চরম ভোগান্তীর শিকার হচ্ছে।

জানা গেছে, শাহজাদপুর উপজেলা সদর থেকে গালা ইউনিয়নের দুরত্ব প্রায় ১৭ কিলোমিটার। ওই ১৭ কিলোমিটার পথ অত্যন্ত দুর্গম । ফলে জন্ম নিবন্ধন, ট্রেড লাইসেন্স, ওয়ারিশান সার্টিফিকেট ও জন্ম মৃত্যুর সনদ এবং নাগরিকত্বের সনদপত্র নিতে চাইলে ওই ১৭ কিলোমিটার দুর্গম পথ পাড়ি দিয়ে শাহজাদপুরে আসতে হয় নতুবা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন ও সচিব আব্দুল আলীমের জন্য ১/২ সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হয়।
এ ব্যাপারে গালা ইউপি চেয়রম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেনের কথা হলে তিনি বলেন, আমি অডিট ডিপার্টমেন্টে চাকরি করা একজন অভিজ্ঞ ব্যক্তি। আমার চেয়ারম্যানি কার্যক্রম কিভাবে পরিচালিত করবো এ ব্যাপারে কোন সাংবাদিকের কিছু বলার বা করার এখতিয়ার নেই। আমি রাত ১০ টার পরে জনগণের সাথে কথা বলে তাদের সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করি। তিনি আরও বলেন, শাহজাদপুরের কোর্ট চত্বরে ইউপি পরিষদের এই কার্যালয়টি দীর্ঘ ২ বছর ধরে পরিচালিত করছি। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের এত মাথাব্যাথা বা আগ্রহের কারণ কি? এক সময় এই সচিব আব্দুল আলীম এই সাংবাদিককে কিছু উৎকোচ দেয়ারও চেষ্টা করেন।

আরও পড়ুন : তাহিরপুরে দোকান কোঠার ভাড়া চাওয়ায় সংঘর্ষ: আহত ১৫

এ ব্যাপারে গালা ইউনিয়নের ভুক্তভোগী মিন্টুসহ অনেকেই বলেন, আমরা ইউপি চেয়ারম্যানের এহেন কার্যক্রমে চরম ভোগান্তীর শিকার হয়ে আসছি। চেয়ারম্যান গর্ব করে বলেন, ‘আমি চেয়ারম্যানদের সভাপতি। আমার কার্যক্রম আমি চালিয়ে যাবো।’

অপরদিকে, চেয়ারম্যানের চরম স্বেচ্ছাচারিতার কারণে গালা ইউনিয়নবাসী ইউনিয়ন পরিষদের সেবা প্রাপ্তিতে চরম ভোগান্তীর শিকার হলেও দেখার কেউ নেই। ইউনিয়নবাসী চেয়ারম্যানের এ চরম স্বেচ্ছাচারিতা ও ক্ষমতা অপব্যবহারের সুষ্ঠু তদন্ত ও সুবিচার দাবী করেছেন।

এ বিষয়ে শাহজাদপুরের নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। দ্রুত এ ব্যাপারে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।