ঢাকা ০৪:৪৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শাস্তির ৪ পয়েন্ট ফেরত পেল এভারটন

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০২:১৮:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪২৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রিমিয়ার লিগে আর্থিক আইন ভঙ্গের কারনে অর্জিত পয়েন্ট থেকে শাস্তি হিসেবে ১০ পয়েন্ট কেটে নেয়া হয়েছিল এভারটনের। যে কারনে রেলিগেশনের সাথে লড়াই শুরু করে দলটি। কিন্তু প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় শাস্তির বিপরীতে আপিল করে শেষ পর্যন্ত সফল হয়েছে সিন ডায়চের দল। তাদের কাছ থেকে কেটে নেয়া ১০ পয়েন্টের মধ্যে চার পয়েন্ট ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

নভেম্বরে এত বড় শাস্তি পেয়ে দারুনভাবে চাপে পড়েছিল এভারটন। স্বাধীন কমিশনের রিপোর্টের ভিত্তিতে জানা গেছে লিগের লাভ ও টেকশই আইনের অধীনে একটি ক্লাব একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে যে ক্ষতি করতে পারবে তার থেকেও সাড়ে ১৯ মিলিয়ন পাউন্ড এভারটন ২০২১/২২ মৌসুমে বেশী ক্ষতির সম্মুখীণ হয়েছিল। তিন বছরের সময়ে শাস্তির মুখ থেকে রক্ষা পেতে একটি ক্লাব সর্বোচ্চ ১০৫ মিলিয়ন পাউন্ড ক্ষতির মুখোমুখি হতে পারবে। আইন ভঙ্গ করায় ইংলিশ লিগের ইতিহাসে অন্যতম ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি লিগের সবচেয়ে বড় পয়েন্ট কর্তনের শাস্তিতে পড়ে। যে কারনে তাদেরকে টেবিলের ১৯তম স্থানে নেমে যেতে হয়।

কিন্তু স্বাধীন আপিল বোর্ড এভারটনের শাস্তি থেকে চার পয়েন্ট কমিয়ে দিয়েছে। এর ফলে সিন ডায়চের দল টেবিলের ১৫তম স্থানে উঠে এসেছে। এই মুহূর্তে তারা রেলিগেশন জোন থেকে ৫ পয়েন্ট উপরে রয়েছে। লিগ শেষ হতে হাতে রয়েছে আর মাত্র ১২ ম্যাচ।

প্রিমিয়ার লিগ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘এভারটনের বিপক্ষে যে অভিযোগ উঠেছিল তা ক্লাবের পক্ষ থেকে স্বীকার করা হয়েছে। পয়েন্ট কর্তনের বিপক্ষে ক্লাবটির আপিলের প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে শাস্তির পরিমান কমানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

পয়েন্ট ফেরত পাওয়ার পর ২৬ ম্যাচে এভারটনের পয়েন্ট এখন ২৫। এর আগে তাদের পয়েন্ট ছিল ২১। যা কিনা রেলিগেশন জোনে থাকা লুটন টাউনের চেয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট বেশি ছিল। ২০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ১৮ নম্বরে আছে লুটন। এখন লুটনের চেয়ে ৫ পয়েন্টে এগিয়ে গেল এভারটন। আর এভারটনের উত্থানে ক্ষতি হয়েছে নটিংহাম ফরেস্টের। যারা ২৪ পয়েন্ট নিয়ে ১৬ থেকে এখন ১৭ নম্বরে নেমে গেছে। তবে ১০ পয়েন্টের পুরোটাই ফেরত পেলে ১৩ নম্বরে উঠে আসতে পারত এভারটন।

এভারটন জানিয়েছে আপিলের ফলাফল তারা সন্তুষ্ট। এদিকে জানুয়ারিতে দ্বিতীয়বারের মত ২০২২/২৩ মৌসুমের জন্য একই অপরাধে গুডিসন পার্কের ক্লাবটির বিপক্ষে আবারো অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে। যে কারনে আবারো সম্ভাব্য পয়েন্ট কর্তনের হুমকিতে রয়েছে এভারটন।

১৯৫৪ সালের পর নিয়মিত ভাবেই প্রিমিয়ার লিগে খেলা এভারটন নয়বার লিগ শিরোপা জয় করেছে। কখনই তারা প্রিমিয়ার লিগ থেকে রেলিগেটেড হয়ে নীচে নেমে যায়নি। গত মৌসুমে মাত্র দুই পয়েন্টের জন্য কোনমতে অবনমন থেকে রক্ষা পেয়েছিল। ১৯৯৫ সালে তারা সর্বশেষ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয় করেছিল।

প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এ পর্যন্ত দুটি ক্লাবের কাছ থেকে পয়েন্ট কেটে নেবার ইতিহাস রয়েছে। ১৯৯৬/৯৭ মৌসুমে ব্ল্যাকবার্নের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে অপরাগতা জানানোয় মিডলসব্রোর তিন পয়েন্ট ও ২০১০ সালে প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়ায় পোর্টসমাউথের ৯ পয়েন্ট কেটে নেয়া হয়েছিল। এই দুটি ক্লাবই অবশ্য নিজ নিজ লিগে রেলিগেশন এড়াতে পারেনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

শাস্তির ৪ পয়েন্ট ফেরত পেল এভারটন

আপডেট সময় : ০২:১৮:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

প্রিমিয়ার লিগে আর্থিক আইন ভঙ্গের কারনে অর্জিত পয়েন্ট থেকে শাস্তি হিসেবে ১০ পয়েন্ট কেটে নেয়া হয়েছিল এভারটনের। যে কারনে রেলিগেশনের সাথে লড়াই শুরু করে দলটি। কিন্তু প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় শাস্তির বিপরীতে আপিল করে শেষ পর্যন্ত সফল হয়েছে সিন ডায়চের দল। তাদের কাছ থেকে কেটে নেয়া ১০ পয়েন্টের মধ্যে চার পয়েন্ট ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

নভেম্বরে এত বড় শাস্তি পেয়ে দারুনভাবে চাপে পড়েছিল এভারটন। স্বাধীন কমিশনের রিপোর্টের ভিত্তিতে জানা গেছে লিগের লাভ ও টেকশই আইনের অধীনে একটি ক্লাব একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে যে ক্ষতি করতে পারবে তার থেকেও সাড়ে ১৯ মিলিয়ন পাউন্ড এভারটন ২০২১/২২ মৌসুমে বেশী ক্ষতির সম্মুখীণ হয়েছিল। তিন বছরের সময়ে শাস্তির মুখ থেকে রক্ষা পেতে একটি ক্লাব সর্বোচ্চ ১০৫ মিলিয়ন পাউন্ড ক্ষতির মুখোমুখি হতে পারবে। আইন ভঙ্গ করায় ইংলিশ লিগের ইতিহাসে অন্যতম ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি লিগের সবচেয়ে বড় পয়েন্ট কর্তনের শাস্তিতে পড়ে। যে কারনে তাদেরকে টেবিলের ১৯তম স্থানে নেমে যেতে হয়।

কিন্তু স্বাধীন আপিল বোর্ড এভারটনের শাস্তি থেকে চার পয়েন্ট কমিয়ে দিয়েছে। এর ফলে সিন ডায়চের দল টেবিলের ১৫তম স্থানে উঠে এসেছে। এই মুহূর্তে তারা রেলিগেশন জোন থেকে ৫ পয়েন্ট উপরে রয়েছে। লিগ শেষ হতে হাতে রয়েছে আর মাত্র ১২ ম্যাচ।

প্রিমিয়ার লিগ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘এভারটনের বিপক্ষে যে অভিযোগ উঠেছিল তা ক্লাবের পক্ষ থেকে স্বীকার করা হয়েছে। পয়েন্ট কর্তনের বিপক্ষে ক্লাবটির আপিলের প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে শাস্তির পরিমান কমানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

পয়েন্ট ফেরত পাওয়ার পর ২৬ ম্যাচে এভারটনের পয়েন্ট এখন ২৫। এর আগে তাদের পয়েন্ট ছিল ২১। যা কিনা রেলিগেশন জোনে থাকা লুটন টাউনের চেয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট বেশি ছিল। ২০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ১৮ নম্বরে আছে লুটন। এখন লুটনের চেয়ে ৫ পয়েন্টে এগিয়ে গেল এভারটন। আর এভারটনের উত্থানে ক্ষতি হয়েছে নটিংহাম ফরেস্টের। যারা ২৪ পয়েন্ট নিয়ে ১৬ থেকে এখন ১৭ নম্বরে নেমে গেছে। তবে ১০ পয়েন্টের পুরোটাই ফেরত পেলে ১৩ নম্বরে উঠে আসতে পারত এভারটন।

এভারটন জানিয়েছে আপিলের ফলাফল তারা সন্তুষ্ট। এদিকে জানুয়ারিতে দ্বিতীয়বারের মত ২০২২/২৩ মৌসুমের জন্য একই অপরাধে গুডিসন পার্কের ক্লাবটির বিপক্ষে আবারো অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে। যে কারনে আবারো সম্ভাব্য পয়েন্ট কর্তনের হুমকিতে রয়েছে এভারটন।

১৯৫৪ সালের পর নিয়মিত ভাবেই প্রিমিয়ার লিগে খেলা এভারটন নয়বার লিগ শিরোপা জয় করেছে। কখনই তারা প্রিমিয়ার লিগ থেকে রেলিগেটেড হয়ে নীচে নেমে যায়নি। গত মৌসুমে মাত্র দুই পয়েন্টের জন্য কোনমতে অবনমন থেকে রক্ষা পেয়েছিল। ১৯৯৫ সালে তারা সর্বশেষ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয় করেছিল।

প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এ পর্যন্ত দুটি ক্লাবের কাছ থেকে পয়েন্ট কেটে নেবার ইতিহাস রয়েছে। ১৯৯৬/৯৭ মৌসুমে ব্ল্যাকবার্নের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে অপরাগতা জানানোয় মিডলসব্রোর তিন পয়েন্ট ও ২০১০ সালে প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়ায় পোর্টসমাউথের ৯ পয়েন্ট কেটে নেয়া হয়েছিল। এই দুটি ক্লাবই অবশ্য নিজ নিজ লিগে রেলিগেশন এড়াতে পারেনি।