ঢাকা ০৯:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রামেবিতে বিএসসি-ইন-নার্সিং বেসিক পরীক্ষা গ্রহণের ২৪ ঘন্টায় ফলাফল প্রকাশিত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:২৬:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • / ৪৬০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
নিহাল খান, রাজশাহী ব্যুরো :
দ্রুত সময়ে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে রেকর্ড গড়েছে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (রামেবি)। বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) অনলাইনে বিএসসি-ইন-নার্সিং বেসিক কোর্সের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থীদের এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়।
পরীক্ষা গ্রহণের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই এ ফলাফল প্রকাশের ঘটনায় রীতিমতো চমকে গেছেন নার্সিং কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। রামেবি উপাচার্য ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের বিশেষ ভূমিকায় এমনটা সম্ভব হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়। সেটি শেষ হয় গত ৩ জানুয়ারি।এরপর ১৩ জানুয়ারি থেকে ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলে মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষা। মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে থিসিস ও প্রেজেন্টেশন পরীক্ষা গ্রহণের পর তৎক্ষণাৎ নম্বর বসানোর কাজ করে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দপ্তর।
এছাড়া পূর্বে সম্পন্ন হওয়া লিখিত,মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বর নিয়ে রাতেই তৈরি করা হয় ফলাফল।
রীতিমতো সবাইকে চমকে দিয়ে বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় তা প্রকাশ করা হয়। যা দেশের স্বীকৃত কোনো বোর্ড পরীক্ষায় সবচেয়ে দ্রততম সময়ে ফলাফল প্রকাশ।
এ সেশনে রামেবি অধিভুক্ত মোট ১৪টি কলেজের ৫১৩ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন।তিনটি সরকারি নার্সিং কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৬৪ জন এবং ১১টি বেসরকারি কলেজের ২৪৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দেন।মোট পাস করেছেন ৫০৯ জন। পাসের হার ৯৯.২২ শতাংশ। তবে এত দ্রুততম সময়ে ফলাফল পেয়ে শিক্ষার্থীরা বিস্মিত।উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তারা।
এ বিষয়ে রামেবি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব বাংলা খবর বিডি’কে বলেন, শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ বিবেচনায় আমরা সার্বক্ষণিক কাজ করছি।করোনার প্রভাবে সৃষ্ট তাদের সেশনজট নিরসনে গৃহীত রোডম্যাপের অংশ হিসেবেই এত দ্রুততম সময়ে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। অন্যান্য ব্যাচের জন্যও আমাদের সর্বোচ্চ ইতিবাচক ভূমিকা থাকবে।
এ ব্যাপারে রামেবি উপাচার্য প্রফেসর ডা. এজেডএম মোস্তাক হোসেন বাংলা খবর বিডি’কে বলেন, করোনার ধাক্কায় সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসা আমাদের অনেক বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। তবে ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পেরেছি।সম্প্রতি একটি র‌্যাংকিংয়ে আমরা দেশসেরা হয়েছি। কোডিং পদ্ধতিতে খাতা মূল্যায়ন এবং দ্রুত অনলাইনে ফলাফল প্রকাশের মাধ্যমে মাইলফলক স্পর্শ করল রামেবি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটির প্রতিটি শাখা স্বচ্ছভাবে পরিচালিত হচ্ছে।
বা/খ: এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

রামেবিতে বিএসসি-ইন-নার্সিং বেসিক পরীক্ষা গ্রহণের ২৪ ঘন্টায় ফলাফল প্রকাশিত

আপডেট সময় : ০৭:২৬:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
নিহাল খান, রাজশাহী ব্যুরো :
দ্রুত সময়ে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে রেকর্ড গড়েছে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (রামেবি)। বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) অনলাইনে বিএসসি-ইন-নার্সিং বেসিক কোর্সের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থীদের এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়।
পরীক্ষা গ্রহণের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই এ ফলাফল প্রকাশের ঘটনায় রীতিমতো চমকে গেছেন নার্সিং কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। রামেবি উপাচার্য ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের বিশেষ ভূমিকায় এমনটা সম্ভব হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়। সেটি শেষ হয় গত ৩ জানুয়ারি।এরপর ১৩ জানুয়ারি থেকে ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলে মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষা। মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে থিসিস ও প্রেজেন্টেশন পরীক্ষা গ্রহণের পর তৎক্ষণাৎ নম্বর বসানোর কাজ করে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দপ্তর।
এছাড়া পূর্বে সম্পন্ন হওয়া লিখিত,মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বর নিয়ে রাতেই তৈরি করা হয় ফলাফল।
রীতিমতো সবাইকে চমকে দিয়ে বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় তা প্রকাশ করা হয়। যা দেশের স্বীকৃত কোনো বোর্ড পরীক্ষায় সবচেয়ে দ্রততম সময়ে ফলাফল প্রকাশ।
এ সেশনে রামেবি অধিভুক্ত মোট ১৪টি কলেজের ৫১৩ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন।তিনটি সরকারি নার্সিং কলেজের পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৬৪ জন এবং ১১টি বেসরকারি কলেজের ২৪৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দেন।মোট পাস করেছেন ৫০৯ জন। পাসের হার ৯৯.২২ শতাংশ। তবে এত দ্রুততম সময়ে ফলাফল পেয়ে শিক্ষার্থীরা বিস্মিত।উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তারা।
এ বিষয়ে রামেবি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবিব বাংলা খবর বিডি’কে বলেন, শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ বিবেচনায় আমরা সার্বক্ষণিক কাজ করছি।করোনার প্রভাবে সৃষ্ট তাদের সেশনজট নিরসনে গৃহীত রোডম্যাপের অংশ হিসেবেই এত দ্রুততম সময়ে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। অন্যান্য ব্যাচের জন্যও আমাদের সর্বোচ্চ ইতিবাচক ভূমিকা থাকবে।
এ ব্যাপারে রামেবি উপাচার্য প্রফেসর ডা. এজেডএম মোস্তাক হোসেন বাংলা খবর বিডি’কে বলেন, করোনার ধাক্কায় সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসা আমাদের অনেক বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। তবে ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পেরেছি।সম্প্রতি একটি র‌্যাংকিংয়ে আমরা দেশসেরা হয়েছি। কোডিং পদ্ধতিতে খাতা মূল্যায়ন এবং দ্রুত অনলাইনে ফলাফল প্রকাশের মাধ্যমে মাইলফলক স্পর্শ করল রামেবি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটির প্রতিটি শাখা স্বচ্ছভাবে পরিচালিত হচ্ছে।
বা/খ: এসআর।