ঢাকা ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রাজারহাট ভূমি অফিসে চুরি : মামলা দায়ের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:১২:২৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২৩
  • / ৪৭৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আসাদুজ্জামান আসাদ, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি :

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলা ভূমি অফিসের সাতটি কক্ষের হ্যাজবলের আংটা কেটে ও চারটি রুমের ১০টি আলমারীর তালা ভাংচুর করে কাগজপত্র তছনছের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

কম্পিউটার, ল্যাপটপ, প্রিন্টারসহ মূল্যবান জিনিস পত্রের কিছুই নেয়নি চোরেরা, চুরি হয়েছে তিনটি মৌজার ম্যাপ। বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলা ভূমি অফিসের ভারপ্রাপ্ত নাজির মোফাজ্জল হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন।

এ ঘটনায় কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) উত্তম কুমার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে অফিসে সিসি ক্যামেরা না থাকায় কাউকে সনাক্ত করা যায়নি।

মামলা ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাজারহাট উপজেলা পরিষদ ও থানা সংলগ্ন সীমানা প্রাচীর ঘেরা উপজেলা ভূমি অফিসের দক্ষিণ-পশ্চিমে দেয়ালের উপরের কাটা তারের বেড়ার কিছু অংশ কেটে দূর্বৃত্তরা প্রাচীরের ভিতরে প্রবেশ করে। এরপর নিচতলার স্টাফ রুমের দক্ষিণ দিকের জানালার গ্রীল কেটে কক্ষের ভিতর প্রবেশের পর একই কক্ষের উত্তর দিকের জানালার গ্রীল কেটে অন্যান্য কক্ষে যায়। এভাবে উপর ও নিচতলার সাতটি কক্ষের হ্যাজবলের আংটা কেটে ও ৪টি রুমের ১০টি আলমারীর তালা ভাংচুর করে দূর্বৃত্তরা বিভিন্ন নথি,ফাইল ও গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র তছনছ করে।

পরে বুধবার সারাদিন সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মচারীরা কাগজপত্র যাচাই বাছাই করে নিশ্চিত হন,উপজেলার চাকিরপশার তালুক, চাঁন্দামারী ও গাবুর হেলান মৌজার তিনটি ম্যাপ চুরি হয়েছে। তবে অফিসে রক্ষিত কম্পিউটার, ল্যাপটপ, প্রিন্টারসহ মূল্যবান জিনিস পত্র অক্ষত রয়েছে। পরে এঘটনায় উক্ত অফিসের ভারপ্রাপ্ত নাজির মোফাজ্জল হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে রাজারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

অফিসের নৈশ্য প্রহরি নাজমুল হক নাঈম বলেন, হঠাৎ করে তার সন্তানের অসুস্থতার কারনে রাত তিনটার দিকে তিনি অফিস থেকে বাড়িতে গিয়েছিলেন। সকালে অফিস খোলার সময় এঅবস্থা দেখে তিনি বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেন। তবে তিনি কাউকে কিছু বলে যাননি বলে স্বীকার করেন।
রাজারহাট থানার ওসি তদন্ত প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,তদন্ত চলছে এবং আসামীদের সনাক্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) নুরে তাসনিম বলেন,ম্যাপের প্রয়োজন হলে রেকর্ড রুমে আবেদন করে নিতে পারতো, চুরির প্রয়োজন ছিল না। এর পিছনে অন্য কিছু রহস্য আছে কিনা পুলিশ তদন্ত করছে।

বা/খ : এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

রাজারহাট ভূমি অফিসে চুরি : মামলা দায়ের

আপডেট সময় : ০৫:১২:২৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২৩

আসাদুজ্জামান আসাদ, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি :

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলা ভূমি অফিসের সাতটি কক্ষের হ্যাজবলের আংটা কেটে ও চারটি রুমের ১০টি আলমারীর তালা ভাংচুর করে কাগজপত্র তছনছের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

কম্পিউটার, ল্যাপটপ, প্রিন্টারসহ মূল্যবান জিনিস পত্রের কিছুই নেয়নি চোরেরা, চুরি হয়েছে তিনটি মৌজার ম্যাপ। বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলা ভূমি অফিসের ভারপ্রাপ্ত নাজির মোফাজ্জল হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন।

এ ঘটনায় কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) উত্তম কুমার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে অফিসে সিসি ক্যামেরা না থাকায় কাউকে সনাক্ত করা যায়নি।

মামলা ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাজারহাট উপজেলা পরিষদ ও থানা সংলগ্ন সীমানা প্রাচীর ঘেরা উপজেলা ভূমি অফিসের দক্ষিণ-পশ্চিমে দেয়ালের উপরের কাটা তারের বেড়ার কিছু অংশ কেটে দূর্বৃত্তরা প্রাচীরের ভিতরে প্রবেশ করে। এরপর নিচতলার স্টাফ রুমের দক্ষিণ দিকের জানালার গ্রীল কেটে কক্ষের ভিতর প্রবেশের পর একই কক্ষের উত্তর দিকের জানালার গ্রীল কেটে অন্যান্য কক্ষে যায়। এভাবে উপর ও নিচতলার সাতটি কক্ষের হ্যাজবলের আংটা কেটে ও ৪টি রুমের ১০টি আলমারীর তালা ভাংচুর করে দূর্বৃত্তরা বিভিন্ন নথি,ফাইল ও গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র তছনছ করে।

পরে বুধবার সারাদিন সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মচারীরা কাগজপত্র যাচাই বাছাই করে নিশ্চিত হন,উপজেলার চাকিরপশার তালুক, চাঁন্দামারী ও গাবুর হেলান মৌজার তিনটি ম্যাপ চুরি হয়েছে। তবে অফিসে রক্ষিত কম্পিউটার, ল্যাপটপ, প্রিন্টারসহ মূল্যবান জিনিস পত্র অক্ষত রয়েছে। পরে এঘটনায় উক্ত অফিসের ভারপ্রাপ্ত নাজির মোফাজ্জল হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে রাজারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

অফিসের নৈশ্য প্রহরি নাজমুল হক নাঈম বলেন, হঠাৎ করে তার সন্তানের অসুস্থতার কারনে রাত তিনটার দিকে তিনি অফিস থেকে বাড়িতে গিয়েছিলেন। সকালে অফিস খোলার সময় এঅবস্থা দেখে তিনি বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেন। তবে তিনি কাউকে কিছু বলে যাননি বলে স্বীকার করেন।
রাজারহাট থানার ওসি তদন্ত প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,তদন্ত চলছে এবং আসামীদের সনাক্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) নুরে তাসনিম বলেন,ম্যাপের প্রয়োজন হলে রেকর্ড রুমে আবেদন করে নিতে পারতো, চুরির প্রয়োজন ছিল না। এর পিছনে অন্য কিছু রহস্য আছে কিনা পুলিশ তদন্ত করছে।

বা/খ : এসআর।