ঢাকা ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রাজশাহীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার ও নিরাপত্তা রক্ষা বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৩:৫৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩
  • / ৫১৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
রাজশাহী ব্যুরো :
‘সাবধানে অনলাইনে’ এই বার্তা দিয়ে সোশাল মিডিয়া (সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম) ব্যবহার ও তার  নিরাপত্তা রক্ষা বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজশাহীতে। রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলার এক ঝাঁক তরুণদের অংশগ্রহণে দিনব্যাপি এই সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে কনটেন্ট ক্রিয়েট ব্যবহার বা দেখা এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় তা শেয়ারের আগে কী ধরণে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে,পাবলিক কানেক্টিভিটি এবং রিঅ্যাক্টের আগেই ভেবে দেখা এবং একাধিকবার বিচার-বিশ্লেষণের আহ্বান জানানো হয়।
বাংলাদেশে অনলাইন নিরাপত্তা বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে টিকটক ও জাগো ফাউন্ডেশন যৌথ উদ্যোগে রাজশাহীর পাঁচতারকা মানের একটি হোটেরের কনফারেন্স রুমে শনিবার (১০ মার্চ) এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়।
সাবধানে অনলাইনে ক্যাম্পইনের সমাপনী দিনে শনিবার তিনজন কনটেন্ট ক্রিয়েটরকে পুরস্কৃত করা হয়। এর আগে ছোট্ট ওয়ার্কশপ ও এই বিষয়ে প্যানেল আলোচকদের নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে জানানো হয়, ডিজিটাল মাধ্যমে সমস্যা আছে। তবে ডিজিটাল মাধ্যমকে যদি না জানি তবে আরও বড় বিপদ। তাই ডিজিটাল প্লাটফর্ম বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইন, ফেসবুক, ইউটিউব ব্যবহারের আগে সাবধানতা জরুরী। সেই সাথে প্রয়োজন সামাজিক সচেতনতা। সোশাল মিডিয়া শেখার জন্য বড় একটি প্লাটফর্ম। তাই শিশু, কিশোর ও তরুণদের সোশাল মিডিয়ার কনটেন্ট ব্যবহারের সময় সচেতন হতে হবে। এর জন্য প্রয়োজনে তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। ডিজিটাল প্লটফর্ম ব্যবহার করে সোশাল মিডিয়াকে এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব না। সর্বপরি সোলাল মিডিয়ায় প্রচার হওয়া সব কিছুই আমার জন্য নয়, এটা মনে রাখতে হবে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের মোট ১৬টি জেলার কার্যক্রম পরিচালনার মধ্যে দিয়ে মাঠ পর্যায়ে এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। প্রকল্পের প্রথম কিস্তির সমাপ্তি হিসেবে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়।
দিনব্যাপি আয়োজিত অনুষ্ঠানে যুব সমাজের পাশাপাশি রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকতা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, সাংবাদিক, সোশাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার এবং জাগো ফাউন্ডেশনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সেমিনারে প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা শিক্ষা অফিসের বিদ্যালয় পরিদর্শক এবিএম সাইফুল ইসলাম, জাগো ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সহকারী পরিচালক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশের পরিচিত ইনফ্লুয়েন্সার সাকিব বিন রশীদ। আরও উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলার অর্ধশতাধিক তরুণ।
বা/খ: এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

রাজশাহীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার ও নিরাপত্তা রক্ষা বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত 

আপডেট সময় : ০৫:৫৩:৫৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩
রাজশাহী ব্যুরো :
‘সাবধানে অনলাইনে’ এই বার্তা দিয়ে সোশাল মিডিয়া (সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম) ব্যবহার ও তার  নিরাপত্তা রক্ষা বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজশাহীতে। রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলার এক ঝাঁক তরুণদের অংশগ্রহণে দিনব্যাপি এই সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে কনটেন্ট ক্রিয়েট ব্যবহার বা দেখা এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় তা শেয়ারের আগে কী ধরণে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে,পাবলিক কানেক্টিভিটি এবং রিঅ্যাক্টের আগেই ভেবে দেখা এবং একাধিকবার বিচার-বিশ্লেষণের আহ্বান জানানো হয়।
বাংলাদেশে অনলাইন নিরাপত্তা বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে টিকটক ও জাগো ফাউন্ডেশন যৌথ উদ্যোগে রাজশাহীর পাঁচতারকা মানের একটি হোটেরের কনফারেন্স রুমে শনিবার (১০ মার্চ) এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়।
সাবধানে অনলাইনে ক্যাম্পইনের সমাপনী দিনে শনিবার তিনজন কনটেন্ট ক্রিয়েটরকে পুরস্কৃত করা হয়। এর আগে ছোট্ট ওয়ার্কশপ ও এই বিষয়ে প্যানেল আলোচকদের নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে জানানো হয়, ডিজিটাল মাধ্যমে সমস্যা আছে। তবে ডিজিটাল মাধ্যমকে যদি না জানি তবে আরও বড় বিপদ। তাই ডিজিটাল প্লাটফর্ম বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইন, ফেসবুক, ইউটিউব ব্যবহারের আগে সাবধানতা জরুরী। সেই সাথে প্রয়োজন সামাজিক সচেতনতা। সোশাল মিডিয়া শেখার জন্য বড় একটি প্লাটফর্ম। তাই শিশু, কিশোর ও তরুণদের সোশাল মিডিয়ার কনটেন্ট ব্যবহারের সময় সচেতন হতে হবে। এর জন্য প্রয়োজনে তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। ডিজিটাল প্লটফর্ম ব্যবহার করে সোশাল মিডিয়াকে এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব না। সর্বপরি সোলাল মিডিয়ায় প্রচার হওয়া সব কিছুই আমার জন্য নয়, এটা মনে রাখতে হবে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের মোট ১৬টি জেলার কার্যক্রম পরিচালনার মধ্যে দিয়ে মাঠ পর্যায়ে এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। প্রকল্পের প্রথম কিস্তির সমাপ্তি হিসেবে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়।
দিনব্যাপি আয়োজিত অনুষ্ঠানে যুব সমাজের পাশাপাশি রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকতা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, সাংবাদিক, সোশাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার এবং জাগো ফাউন্ডেশনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সেমিনারে প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা শিক্ষা অফিসের বিদ্যালয় পরিদর্শক এবিএম সাইফুল ইসলাম, জাগো ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সহকারী পরিচালক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশের পরিচিত ইনফ্লুয়েন্সার সাকিব বিন রশীদ। আরও উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলার অর্ধশতাধিক তরুণ।
বা/খ: এসআর।