ঢাকা ১১:০৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রাখাইনে ৪টি সামরিক ঘাঁটি দখলে নিয়েছে বিদ্রোহীরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:৪৩:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪
  • / ৪২২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর মংডু’র আরও চারটি সামরিক ঘাঁটি দখলে নিয়েছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরকান আর্মি। শহরটিতে লড়াই চলাকালে একজন সেনা কমান্ডারসহ দুইশতাধিক সামরিক সেনা নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী।

আরাকান আর্মি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চলতি সপ্তাহে ১৩ই জুনের মধ্যে এই ঘাঁটিগুলো দখল নিয়েছে তারা। ক্যাম্পদখল করার সময় সংঘাতে দুইশ’ সামরিক সেনা নিহত হয়েছে। দু’সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে মংডুতে ১০টি জান্তা ক্যাম্প দখল করেছে আরাকান আর্মি।

এদিকে, রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তওয়ের আশপাশের এলাকাগুলো থেকে বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সেনাবাহিনী। এ জন্য পাঁচ দিন সময় দেওয়া হয়। নির্দেশ না মানলে সেনাবাহিনী গুলি করবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। ফলে রাখাইনে বড় সংঘাতের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বাসিন্দাদের জানান, ‘রাখাইনের চারপাশের ১৫টি গ্রামের বাসিন্দাদের রাজধানীতে প্রবেশ করতে বলা হয়েছে। তারা চাইলে অন্যত্র যেতে পারবেন। যাই করা হোক না কেন তা খুব দ্রুত করতে হবে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

রাখাইনে ৪টি সামরিক ঘাঁটি দখলে নিয়েছে বিদ্রোহীরা

আপডেট সময় : ০১:৪৩:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর মংডু’র আরও চারটি সামরিক ঘাঁটি দখলে নিয়েছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরকান আর্মি। শহরটিতে লড়াই চলাকালে একজন সেনা কমান্ডারসহ দুইশতাধিক সামরিক সেনা নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী।

আরাকান আর্মি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চলতি সপ্তাহে ১৩ই জুনের মধ্যে এই ঘাঁটিগুলো দখল নিয়েছে তারা। ক্যাম্পদখল করার সময় সংঘাতে দুইশ’ সামরিক সেনা নিহত হয়েছে। দু’সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে মংডুতে ১০টি জান্তা ক্যাম্প দখল করেছে আরাকান আর্মি।

এদিকে, রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তওয়ের আশপাশের এলাকাগুলো থেকে বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সেনাবাহিনী। এ জন্য পাঁচ দিন সময় দেওয়া হয়। নির্দেশ না মানলে সেনাবাহিনী গুলি করবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। ফলে রাখাইনে বড় সংঘাতের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বাসিন্দাদের জানান, ‘রাখাইনের চারপাশের ১৫টি গ্রামের বাসিন্দাদের রাজধানীতে প্রবেশ করতে বলা হয়েছে। তারা চাইলে অন্যত্র যেতে পারবেন। যাই করা হোক না কেন তা খুব দ্রুত করতে হবে।’