ঢাকা ০৬:১২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রপ্তানি পণ্যের সংখ্যা বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৩:১৭:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৬৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন বলেছেন, বৈদেশিক বাণিজ্যের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় রপ্তানি পণ্যের সংখ্যা বাড়াতে হবে। এজন্যে নতুন নতুন বাজার সৃষ্টি করতে হবে। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় বস্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি। রাষ্ট্রপতি বলেন, কোন স্বার্থান্বেষী মহল যেন উৎপাদনের পরিবেশ নষ্ট করতে না পারে সেদিক সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে।

‘স্মার্ট টেক্সটাইলে সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যে উদযাপিত হচ্ছে জাতীয় বস্ত্র দিবস-২০২৩। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন।

রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন বলেন, বস্ত্রখাত অর্থনীতিকে শুধু সমৃদ্ধ করছে না, বিপুল সংখ্যক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় সক্ষমতা অর্জনে এই খাতকে যুগোপযোগী করতে পদক্ষেপ নেয়ার কথাও বলেন তিনি।

রপ্তানি পণ্যের সংখ্যা বাড়াতে হবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি দেশে উৎপাদিত পণ্যের নতুন নুতন বাজার খুঁজে বের করার আহবানও জানান।

এসময় রাষ্ট্রপতি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বলেন, কর্মক্ষেত্রে শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। সেই সাথে কোন মহল অস্থিরতা তৈরি করে উৎপাদন যাতে ব্যহত করতে না পারে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে বলেন।

উন্নত-সমৃদ্ধ ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গঠনের মাধ্যমে রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে বস্ত্র খাত উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে রাষ্ট্রপতি বিশ্বাস করেন। বাংলাদেশের বস্ত্রশিল্পের ইতিহাস সুপ্রাচীন এবং গৌরবময় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের নেওয়া সকল কার্যক্রম বাংলাদেশের বিকাশমান বস্ত্রখাতকে আরও সমৃদ্ধ করবে এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিকট আকর্ষণীয় করে তুলবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক। অন্যান্যের মধ্যে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আব্দুর রউফ, বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশন (বিটিএমএ) সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন এবং বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারারর্স এন্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএমইএ) সহ-সভাপতি মো. শহীদুল্লাহ আযম বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে ‘জাতীয় বস্ত্র দিবস ২০২৩’ এর একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে ১১টি প্রতিষ্ঠান-ব্যবসায়ীকে রাষ্ট্রপতির সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। রাষ্ট্রপতি সেখানে একটি ফটোসেশনে অংশ নেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

রপ্তানি পণ্যের সংখ্যা বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

আপডেট সময় : ০৩:১৭:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন বলেছেন, বৈদেশিক বাণিজ্যের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় রপ্তানি পণ্যের সংখ্যা বাড়াতে হবে। এজন্যে নতুন নতুন বাজার সৃষ্টি করতে হবে। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় বস্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি। রাষ্ট্রপতি বলেন, কোন স্বার্থান্বেষী মহল যেন উৎপাদনের পরিবেশ নষ্ট করতে না পারে সেদিক সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে।

‘স্মার্ট টেক্সটাইলে সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যে উদযাপিত হচ্ছে জাতীয় বস্ত্র দিবস-২০২৩। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন।

রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন বলেন, বস্ত্রখাত অর্থনীতিকে শুধু সমৃদ্ধ করছে না, বিপুল সংখ্যক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় সক্ষমতা অর্জনে এই খাতকে যুগোপযোগী করতে পদক্ষেপ নেয়ার কথাও বলেন তিনি।

রপ্তানি পণ্যের সংখ্যা বাড়াতে হবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি দেশে উৎপাদিত পণ্যের নতুন নুতন বাজার খুঁজে বের করার আহবানও জানান।

এসময় রাষ্ট্রপতি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বলেন, কর্মক্ষেত্রে শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। সেই সাথে কোন মহল অস্থিরতা তৈরি করে উৎপাদন যাতে ব্যহত করতে না পারে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে বলেন।

উন্নত-সমৃদ্ধ ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গঠনের মাধ্যমে রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে বস্ত্র খাত উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে রাষ্ট্রপতি বিশ্বাস করেন। বাংলাদেশের বস্ত্রশিল্পের ইতিহাস সুপ্রাচীন এবং গৌরবময় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের নেওয়া সকল কার্যক্রম বাংলাদেশের বিকাশমান বস্ত্রখাতকে আরও সমৃদ্ধ করবে এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিকট আকর্ষণীয় করে তুলবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক। অন্যান্যের মধ্যে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আব্দুর রউফ, বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশন (বিটিএমএ) সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন এবং বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারারর্স এন্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএমইএ) সহ-সভাপতি মো. শহীদুল্লাহ আযম বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে ‘জাতীয় বস্ত্র দিবস ২০২৩’ এর একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে ১১টি প্রতিষ্ঠান-ব্যবসায়ীকে রাষ্ট্রপতির সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। রাষ্ট্রপতি সেখানে একটি ফটোসেশনে অংশ নেন।