ঢাকা ১০:২৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
ব্রেকিং নিউজ ::
পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা ছাড়াই আজকের মতো আন্দোলন স্থগিত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ছেড়েছেন কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীরা। আপাতত আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়কারী হাসনাত আব্দুল্লাহ :: সারা দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শ্রেণি কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে :: শেষ খবর পর্যন্ত ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রংপুরে ছাত্রলীগ ও পুলিশের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষে ৬ জন নিহত হয়েছেন :: চলমান এইচএসসি ও সমমানের আগামী ১৮ জুলাইয়ের (বৃহস্পতিবার) পরীক্ষা স্থগিত করেছে বাংলাদেশ আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি। তবে আগামী ২১ জুলাই থেকে পূর্বঘোষিত সময়সূচি অনুযায়ী পরীক্ষা যথারীতি চলবে :: ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন :: জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দুটি বাসে আগুন দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ৮টা ২৫ মিনিটের দিকে এ ঘটনা ঘটে। আগুনের ঘটনায় হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি :: চার শিক্ষার্থী গুলিবিদ্ধ, উত্তাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা

যমুনার ভাঙনে শতাধিক বাড়ি বিলীন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১১:৫০:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • / ৪৪০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

যমুনা নদীর ভাঙনে দিশেহারা সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ও এনায়েতপুর উপজেলার মানুষ। দুই সপ্তাহে শতাধিক বাড়িঘর, ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙনের হুমকিতে আছে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ও নানা স্থাপনা। সহায় সম্বল হারিয়ে অনেকে আশ্রয় নিয়েছেন খোলা আকাশের নিচে। সংকট মোকাবেলায় টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন নদীপাড়ের মানুষ।

দুই সপ্তাহ আগে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীতে পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় ভাঙন। এখন বন্যার পানি নামতে শুরু করায় ভাঙনের তীব্রতা বেড়েছে। জেলার শাহজাদপুর ও এনায়েতপুর উপজেলার ছয়টি গ্রাম ভাঙনের মুখে পড়েছে। ইতোমধ্যেই এসব গ্রামের নদী তীরবর্তী শতাধিক বাড়িঘর ও বিস্তীর্ণ ফসলের জমি যমুনার গর্ভে বিলীন হয়েছে। হুমকির মুখে আছে সরকারি-বেসরকারি বহু স্থাপনা ও নদীর ডান তীর রক্ষা বাঁধ। ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একটি প্রকল্প চালু থাকলেও অনিয়মের কারণে তার সুফল না পাওয়ার অভিযোগ আছে।

মাথাগোঁজার শেষ সম্বল হারিয়ে অসহায়ভাবে দিন কাটছে নদীপাড়ের মানুষের। ভাঙন রোধে টেকসই বাধ নির্মাণ ও থাকার জন্য সরকারের কাছে জমি চেয়েছেন ভাঙন কবলিতরা।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জানালেন, নদী ভাঙন রোধে জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। ডান তীর রক্ষা বাঁধের কাজ শেষ হলে ভাঙন ঠেকানো যাবে বলে আশা তার।

তীর রক্ষা বাঁধের কাজ দ্রুত শেষ করতে মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করা হবে বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জ -৬ সংসদ সদস্য চয়ন ইসলাম।

ভাঙন কবলিতদের ভোগান্তি কমাতে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

নিউজটি শেয়ার করুন

যমুনার ভাঙনে শতাধিক বাড়ি বিলীন

আপডেট সময় : ১১:৫০:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

যমুনা নদীর ভাঙনে দিশেহারা সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ও এনায়েতপুর উপজেলার মানুষ। দুই সপ্তাহে শতাধিক বাড়িঘর, ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙনের হুমকিতে আছে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ও নানা স্থাপনা। সহায় সম্বল হারিয়ে অনেকে আশ্রয় নিয়েছেন খোলা আকাশের নিচে। সংকট মোকাবেলায় টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন নদীপাড়ের মানুষ।

দুই সপ্তাহ আগে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীতে পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় ভাঙন। এখন বন্যার পানি নামতে শুরু করায় ভাঙনের তীব্রতা বেড়েছে। জেলার শাহজাদপুর ও এনায়েতপুর উপজেলার ছয়টি গ্রাম ভাঙনের মুখে পড়েছে। ইতোমধ্যেই এসব গ্রামের নদী তীরবর্তী শতাধিক বাড়িঘর ও বিস্তীর্ণ ফসলের জমি যমুনার গর্ভে বিলীন হয়েছে। হুমকির মুখে আছে সরকারি-বেসরকারি বহু স্থাপনা ও নদীর ডান তীর রক্ষা বাঁধ। ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একটি প্রকল্প চালু থাকলেও অনিয়মের কারণে তার সুফল না পাওয়ার অভিযোগ আছে।

মাথাগোঁজার শেষ সম্বল হারিয়ে অসহায়ভাবে দিন কাটছে নদীপাড়ের মানুষের। ভাঙন রোধে টেকসই বাধ নির্মাণ ও থাকার জন্য সরকারের কাছে জমি চেয়েছেন ভাঙন কবলিতরা।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জানালেন, নদী ভাঙন রোধে জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। ডান তীর রক্ষা বাঁধের কাজ শেষ হলে ভাঙন ঠেকানো যাবে বলে আশা তার।

তীর রক্ষা বাঁধের কাজ দ্রুত শেষ করতে মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করা হবে বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জ -৬ সংসদ সদস্য চয়ন ইসলাম।

ভাঙন কবলিতদের ভোগান্তি কমাতে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।