ঢাকা ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

মোরেলগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ পুলে পথচারী ও শিক্ষার্থীদের পারাপারে ভোগান্তি চরমে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০২:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৫৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি :

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ফকিরবাড়ির ঝুঁকিপূর্ণ পুলটি এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এলাকার জনসাধারণ ও শিক্ষার্থীরা পারাপারে চরম ভোগন্তির শিকার হচ্ছে। সম্প্রতি বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে পুলটি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে ।

উপজেলার ১১নং বহরবুনিয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ফকিরবাড়ির খালের কাঠের পুলটি তিন বছর যাবৎ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। সংস্কারের অভাবে চুরি হয়ে যাচ্ছে পুলের বিভিন্ন সামগ্রী । দূর্ঘটনা এড়াতে এলাকাবাসি ও স্থানীয় মেম্বারের সহযোগীতা ও অর্থায়নে বাঁশ দিয়ে সচল রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ পুল দিয়ে প্রতিদিন উত্তর ফুলহাতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও শত শত এলাকাবাসী ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। পুলের দুই পার্শ্বে নিরাপত্তার জন্য হাতল না থাকায় শিশু শিক্ষার্থী ও বয়স্ক লোকজন চলাচল করতে ভয় পাচ্ছে ।

স্থানীয় ভূক্তভোগীদের পক্ষে রাকিব খান জানান, গেল ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে নড়বড়ে পুলটি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে । যে কোন মূহুর্তে ভেঙ্গে পড়ে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা । অতিবিলম্বে পুলটি পুনঃনির্মাণ করা জরুরী ।

ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার রিপন জানান, ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তাছাড়া এ ঝুঁকিপূর্ণ পুলটি নির্মান খুবই জরুরী ।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, সিত্রাংয়ে উপজেলার কয়েকটি পুলের ক্ষতিসাধিত হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে ।

নিউজটি শেয়ার করুন

মোরেলগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ পুলে পথচারী ও শিক্ষার্থীদের পারাপারে ভোগান্তি চরমে

আপডেট সময় : ০৪:০২:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২২

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি :

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ফকিরবাড়ির ঝুঁকিপূর্ণ পুলটি এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এলাকার জনসাধারণ ও শিক্ষার্থীরা পারাপারে চরম ভোগন্তির শিকার হচ্ছে। সম্প্রতি বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে পুলটি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে ।

উপজেলার ১১নং বহরবুনিয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ফকিরবাড়ির খালের কাঠের পুলটি তিন বছর যাবৎ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। সংস্কারের অভাবে চুরি হয়ে যাচ্ছে পুলের বিভিন্ন সামগ্রী । দূর্ঘটনা এড়াতে এলাকাবাসি ও স্থানীয় মেম্বারের সহযোগীতা ও অর্থায়নে বাঁশ দিয়ে সচল রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ পুল দিয়ে প্রতিদিন উত্তর ফুলহাতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও শত শত এলাকাবাসী ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। পুলের দুই পার্শ্বে নিরাপত্তার জন্য হাতল না থাকায় শিশু শিক্ষার্থী ও বয়স্ক লোকজন চলাচল করতে ভয় পাচ্ছে ।

স্থানীয় ভূক্তভোগীদের পক্ষে রাকিব খান জানান, গেল ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে নড়বড়ে পুলটি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে । যে কোন মূহুর্তে ভেঙ্গে পড়ে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা । অতিবিলম্বে পুলটি পুনঃনির্মাণ করা জরুরী ।

ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার রিপন জানান, ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তাছাড়া এ ঝুঁকিপূর্ণ পুলটি নির্মান খুবই জরুরী ।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, সিত্রাংয়ে উপজেলার কয়েকটি পুলের ক্ষতিসাধিত হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে ।