ঢাকা ০৬:০০ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

মুকেশ আম্বানির কোম্পানির ২৪% আয় কমল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৪০:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৫৬ বার পড়া হয়েছে

মুকেশ আম্বানি

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
গতকাল শুক্রবার মুকেশ আম্বানির ‘রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’ জানান, সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে তাদের মুনাফার হার ‘ফ্ল্যাট’ ছিল। অর্থাৎ, লাভের অংক সেভাবে বৃদ্ধি হয়নি। রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের উইন্ডফল প্রফিট ট্যাক্স নীতির জেরে সংস্থাটির উপার্জনে কোপ পড়েছে। এবছর জুলাই-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে রিলায়েন্সের লাভ হয়েছে ১৩,৬৫৬ কোটি রুপি। গতবছর এই সময়কালে রিলায়েন্সের লাভের পরিমাণ ছিল ১৩,৬৮০ কোটি রুপি।

এদিকে গত ত্রৈমাসিকের তুলনায় এই ত্রৈমাসিকে রিলায়েন্সের লাভ কমেছে ২৪ শতাংশ। জানা গেছে, রিলায়েন্সের রিটেইল এবং টেলিকম ভালো মুনাফা লাভ করলেও জ্বালানি সংস্থার লাভের গ্রাফে বড় ধাক্কা লেগেছে। এর জেরেই লাভের পরিমাণে এই পতন।

প্রসঙ্গত, নির্দিষ্ট পরিস্থিতিতে লাভবান কোম্পানিগুলোর উপর আরোপ করা হয় উইন্ডফল ট্যাক্স। ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার পর আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে গিয়েছিল। এতে অনেকটাই লাভবান হয়েছে তেল রফতানিকারক কোম্পানিগুলো। এই পরিস্থিতিতেই সরকার এই লাভ নিয়ন্ত্রণ করতে এবং দেশীয় বাজারে জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে উইন্ডফল ট্যাক্স আরোপ করে থাকে।

মূলত বেশি লাভের জন্য সংস্থাগুলো যাতে দেশের জন্য জ্বালানি না রেখে সব রফতানি না করে দেয়, সেই জন্যই এই ব্যবস্থা। এই আবহে ভারতের কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদী সরকার অক্টোবরেই অপরিশোধিত তেলের উপর উইন্ডফল ট্যাক্স বাড়িয়ে দেয়। নয়া বিজ্ঞপ্তিতে রিলায়েন্সের মতো রিফাইনারি কোম্পানিগুলোর মাথায় হাত পড়ে। এর আগেও কয়েক দফায় উইন্ডফল ট্যাক্স সংশোধন করেছিল সরকার। এই করের সরাসরি প্রভাব দেখা যাচ্ছে রিলায়েন্সের ব্যালেন্স শিটে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

মুকেশ আম্বানির কোম্পানির ২৪% আয় কমল

আপডেট সময় : ১১:৪০:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
গতকাল শুক্রবার মুকেশ আম্বানির ‘রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’ জানান, সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে তাদের মুনাফার হার ‘ফ্ল্যাট’ ছিল। অর্থাৎ, লাভের অংক সেভাবে বৃদ্ধি হয়নি। রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের উইন্ডফল প্রফিট ট্যাক্স নীতির জেরে সংস্থাটির উপার্জনে কোপ পড়েছে। এবছর জুলাই-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে রিলায়েন্সের লাভ হয়েছে ১৩,৬৫৬ কোটি রুপি। গতবছর এই সময়কালে রিলায়েন্সের লাভের পরিমাণ ছিল ১৩,৬৮০ কোটি রুপি।

এদিকে গত ত্রৈমাসিকের তুলনায় এই ত্রৈমাসিকে রিলায়েন্সের লাভ কমেছে ২৪ শতাংশ। জানা গেছে, রিলায়েন্সের রিটেইল এবং টেলিকম ভালো মুনাফা লাভ করলেও জ্বালানি সংস্থার লাভের গ্রাফে বড় ধাক্কা লেগেছে। এর জেরেই লাভের পরিমাণে এই পতন।

প্রসঙ্গত, নির্দিষ্ট পরিস্থিতিতে লাভবান কোম্পানিগুলোর উপর আরোপ করা হয় উইন্ডফল ট্যাক্স। ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার পর আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে গিয়েছিল। এতে অনেকটাই লাভবান হয়েছে তেল রফতানিকারক কোম্পানিগুলো। এই পরিস্থিতিতেই সরকার এই লাভ নিয়ন্ত্রণ করতে এবং দেশীয় বাজারে জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে উইন্ডফল ট্যাক্স আরোপ করে থাকে।

মূলত বেশি লাভের জন্য সংস্থাগুলো যাতে দেশের জন্য জ্বালানি না রেখে সব রফতানি না করে দেয়, সেই জন্যই এই ব্যবস্থা। এই আবহে ভারতের কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদী সরকার অক্টোবরেই অপরিশোধিত তেলের উপর উইন্ডফল ট্যাক্স বাড়িয়ে দেয়। নয়া বিজ্ঞপ্তিতে রিলায়েন্সের মতো রিফাইনারি কোম্পানিগুলোর মাথায় হাত পড়ে। এর আগেও কয়েক দফায় উইন্ডফল ট্যাক্স সংশোধন করেছিল সরকার। এই করের সরাসরি প্রভাব দেখা যাচ্ছে রিলায়েন্সের ব্যালেন্স শিটে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।