ঢাকা ০৪:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ২৪ ঘণ্টায় ৪ হামলা, একজনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১২:৪২:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৫১৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ইরাকে আমেরিকার এক সামরিক ঘাঁটিতে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে। ইরাকে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের আইন আল–আসাদ বিমানঘাঁটিতে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে এসব হামলার ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে বিগত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ইরাকে আমেরিকার সামরিক ঘাঁটিতে চারবার হামলার ঘটনা ঘটল।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স আজ শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে হামাসের সংঘাত চরমে গেলে তার প্রভাব পড়তে শুরু করে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষত সিরিয়া ও ইরাকে। ইরাকে কয়েকটি মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার ঘটনা ঘটে। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রাতে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের আইন আল–আসাদ বিমানঘাঁটিতে ড্রোন ও রকেট হামলা হয়। খবর রয়টার্স। ঘাঁটির ভেতরে একাধিক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে বলে দুটি নিরাপত্তা সূত্র জানিয়েছে। সেখানে আতঙ্কিত হয়ে একজন বেসামরিক প্রকৌশলীর মৃত্যু হয়েছে।

এই ঘাঁটিতে মার্কিন সেনাসহ কয়েকটি দেশের সেনারা রয়েছেন। ইরাকি সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, তারা ঘাঁটির আশপাশের এলাকা বন্ধ করে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে। হামলায় হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

একই দিন বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে মার্কিন বাহিনীর আরেকটি সামরিক ঘাঁটিতে রকেট হামলা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরাকি পুলিশ। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়নি।

ইরাকের প্রতিরোধ যোদ্ধারা বৃহস্পতিবার দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় ‘আল হারির’ সামরিক ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা চালায়। এক বিবৃতিতে হামলার দায় স্বীকার করেছে তারা। গাজায় ইসরায়েলি হামলা বন্ধ না হলে তারাও এই যুদ্ধে নিজেদের জড়াবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

বুধবার (১৮ অক্টোবর) ইরাকে মার্কিন সামরিক বাহিনীকে লক্ষ করে দুটি আলাদা ড্রোন হামলা চালানো হয়েছিল। একটি হামলায় অল্প সংখ্যক সেনা সামান্য আহত হয়েছেন। গত সপ্তাহে, ইরানের সঙ্গে জোটবদ্ধ ইরাকি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রকে। পাল্টা হুঁশিয়ারিতে তারা জানিয়েছে, অবরুদ্ধ গাজায় হামাসের বিরুদ্ধে ইসরায়েলির বর্বরোচিত হামলাকে সমর্থন দিলে মধ্যপ্রাচ্যে হামলার শিকার হবে মার্কিন সামরিক স্থাপনা।

এদিকে ইয়েমেন উপকূলের কাছে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর একটি যুদ্ধজাহাজ একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র শনাক্তের পর নিশ্চিহ্ন করেছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন বলেছে, লোহিত সাগরের উত্তরে যুদ্ধজাহাজ তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ও একাধিক ড্রোন ভূপাতিত করেছে।

তবে ইসরায়েল–হামাস সংঘাতের সঙ্গে মার্কিন সেনা ঘাঁটি ও যুদ্ধজাহাজ লক্ষ্য করে এসব হামলার কোনো সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা জানা যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ২৪ ঘণ্টায় ৪ হামলা, একজনের মৃত্যু

আপডেট সময় : ১২:৪২:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর ২০২৩

ইরাকে আমেরিকার এক সামরিক ঘাঁটিতে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে। ইরাকে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের আইন আল–আসাদ বিমানঘাঁটিতে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে এসব হামলার ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে বিগত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ইরাকে আমেরিকার সামরিক ঘাঁটিতে চারবার হামলার ঘটনা ঘটল।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স আজ শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে হামাসের সংঘাত চরমে গেলে তার প্রভাব পড়তে শুরু করে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষত সিরিয়া ও ইরাকে। ইরাকে কয়েকটি মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার ঘটনা ঘটে। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রাতে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের আইন আল–আসাদ বিমানঘাঁটিতে ড্রোন ও রকেট হামলা হয়। খবর রয়টার্স। ঘাঁটির ভেতরে একাধিক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে বলে দুটি নিরাপত্তা সূত্র জানিয়েছে। সেখানে আতঙ্কিত হয়ে একজন বেসামরিক প্রকৌশলীর মৃত্যু হয়েছে।

এই ঘাঁটিতে মার্কিন সেনাসহ কয়েকটি দেশের সেনারা রয়েছেন। ইরাকি সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, তারা ঘাঁটির আশপাশের এলাকা বন্ধ করে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে। হামলায় হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

একই দিন বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে মার্কিন বাহিনীর আরেকটি সামরিক ঘাঁটিতে রকেট হামলা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরাকি পুলিশ। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়নি।

ইরাকের প্রতিরোধ যোদ্ধারা বৃহস্পতিবার দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় ‘আল হারির’ সামরিক ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা চালায়। এক বিবৃতিতে হামলার দায় স্বীকার করেছে তারা। গাজায় ইসরায়েলি হামলা বন্ধ না হলে তারাও এই যুদ্ধে নিজেদের জড়াবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

বুধবার (১৮ অক্টোবর) ইরাকে মার্কিন সামরিক বাহিনীকে লক্ষ করে দুটি আলাদা ড্রোন হামলা চালানো হয়েছিল। একটি হামলায় অল্প সংখ্যক সেনা সামান্য আহত হয়েছেন। গত সপ্তাহে, ইরানের সঙ্গে জোটবদ্ধ ইরাকি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রকে। পাল্টা হুঁশিয়ারিতে তারা জানিয়েছে, অবরুদ্ধ গাজায় হামাসের বিরুদ্ধে ইসরায়েলির বর্বরোচিত হামলাকে সমর্থন দিলে মধ্যপ্রাচ্যে হামলার শিকার হবে মার্কিন সামরিক স্থাপনা।

এদিকে ইয়েমেন উপকূলের কাছে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর একটি যুদ্ধজাহাজ একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র শনাক্তের পর নিশ্চিহ্ন করেছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন বলেছে, লোহিত সাগরের উত্তরে যুদ্ধজাহাজ তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ও একাধিক ড্রোন ভূপাতিত করেছে।

তবে ইসরায়েল–হামাস সংঘাতের সঙ্গে মার্কিন সেনা ঘাঁটি ও যুদ্ধজাহাজ লক্ষ্য করে এসব হামলার কোনো সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা জানা যায়নি।