বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:১৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বৃহস্পতিবার থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট ১৬ বছর পর ডেনমার্ককে হারিয়ে শেষ ষোলো’তে অস্ট্রেলিয়া চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনিসিয়ার কান্না রাউজানে ডাকাতির ঘটনায় র‌্যাবের হাতে আরো এক ডাকাত আটক রাউজানে স্কুল থেকে ফেরার পথে ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় যুবক কারাগারে রাউজানে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার ‘আওয়ামী লীগ গরীব দুখী মেহনতি মানুষের কল্যানে রাজনীতি করে’ -কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি মুহিব ডিমলায় বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা রিজার্ভ কমে ৩৩ বিলিয়নে নেমেছে নিউজিল্যান্ডদের কাছে সিরিজ হারল ভারত তিন নারী রেফারি, ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ কীর্তি সুরেশের বিয়ে প্রফেসর মযহারুল ইসলাম ॥ শ্রদ্ধাঞ্জলি সিটি করপোরেশনে মহামারি বিশেষজ্ঞ পদসৃষ্টির প্রস্তাব পেয়েছি : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সফরে আসছে ভারত

মমতা এবার দোকানে ঢুকে ভাজলেন চপ, করলেন পরিবশেনও

মমতা এবার দোকানে ঢুকে ভাজলেন চপ, করলেন পরিবশেনও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় এবার আরেক নজির গড়েছেন। এক সভা শেষে ফেরার পথে রাস্তার ধারে একটি চপের দোকানে ঢুকে পড়ে ভাজতে শুরু করেন চপ। করলেন পরিবেশনও।

এর আগে, চায়ের দোকানে ঢুকে সবাইকে চমকে দিয়ে নিজেই বানিয়েছেন চা। নিজে খাওয়ার পাশাপাশি অন্যদেরও পরিবেশন করেন। আবার জনসংযোগে বেরিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে নিজ হাতে মোমো-ফুচকা বানিয়ে খাওয়ানোর রেকর্ডও রয়েছে তার।

এদিন মমতা যখন দোকানে ঢোকেন দোকানের মালিক বুদ্ধদেব মহান্ত তখন চপ ভাজছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীকে হঠাৎ দোকানে ঢুকতে দেখতে হকচকিয়ে যান বুদ্ধদেব। ততক্ষণে তার দোকানে ভিড়ও জমে গেছে। দোকানে ঢুকেই মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেবের উদ্দেশে বলেন, সরো দেখি, তোমাকে সাহায্য করি।

মমতা এরপরই চপ ভাজতে শুরু করেন। অবাক চোখে তখন সেই দৃশ্য ক্যামেরা বন্দি করতে ব্যস্ত সবাই। মুখ্যমন্ত্রীকে গরম তেলের সামনে দাঁড়িয়ে চপ ভাজতে দেখে কিছু পরামর্শ দেন বুদ্ধদেব। মুখ্যমন্ত্রীকে তখন বলতে শোনা যায়, ওরে আমি জানি, বাড়িতে রান্না করি তো।

চপ ভাজার পর সঙ্গে থাকা সাংবাদিক, নিরাপত্তা রক্ষী, সরকারি কর্মকর্তা এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতেও তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। এ দৃশ্য দেখতে তখন দোকানের আশপাশে ভিড় লেগে যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *