ঢাকা ০১:১২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

মঠবাড়িয়ায় বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ শেষে ৭৫ জনকে সনদ প্রদান

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৫২:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৭৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি :

নারীদের স্বাবলম্বী ও আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ৩ মাসব্যাপী ফ্রি প্রশিক্ষণ শেষে ৭৫ জন নারীকে সনদ প্রদান করা হয়েছে। এ সময় প্রত্যেক সদস্যকে ৩ মাসের সম্মানী বাবদ ৯ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর দ্বারা পরিচালিত এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ১১ মার্চ শনিবার সকালে সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহা পরিচালক ফরিদা পারভীন।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উর্মি ভৌমিক এর সভাপতিত্বে  উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈকত জামিল, পিরোজপুর জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলতাফ হোসেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন আকন, অফিস সহায়ক মারুফুজ্জামান ও বিভিন্ন গণ মাধ্যম কর্মিবৃন্দ।

সরেজমিনে উপজেলার হলতা গুলিশাখালী ইউনিয়নে বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে দেখা গেছে, বিভিন্ন বয়সী নারীরা অত্যান্ত আগ্রহের সাথে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছেন। এখান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আত্মনির্ভরশীল ও স্বাবলম্বী হবার সুযোগ রয়েছে মঠবাড়িয়াসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলের নারীদের। বর্তমান প্যাকেজে কম্পিউটার ও সুইং মেশিন অপারেট বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটির প্রশিক্ষক মো. আব্দুর মন্নান জানান, বর্তমানে কম্পিউটার ও সুইং মেশিন অপারেট বিষয়ে প্রশিক্ষণ শেশে ৭৫ জন নারীকে সনদ ও সম্মানী প্রদান করা হয়েছে। ২০২০-২১ শিক্ষা বর্ষে গার্মেন্টস ও কম্পিউটার ট্রেনিং বিষয়ে ৩ মাস মেয়াদী প্রশিক্ষণে ভর্তির মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রমের শুভ সূচনা হয়।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন আকন বলেন, বর্তমানে ব্যাচে কম্পিউটার ও সুইং মেশিন অপারেট বিষয়ে ৭৫ জন নারীকে সনদ প্রদান করা হয়েছে এবং ৩ মাসের সম্মানী ব্যবৎ প্রত্যেকে ৯ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বছরে ৪ টি ব্যাচে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রশিক্ষণ গ্রহণকালীন তিন মাসে শিক্ষার্থীদের থাকা খাওয়া সম্পূর্ন ফ্রি। ট্রেনিং শেষে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে সনদ প্রদান ও দৈনিক ১‘শ টাকা হারে সম্মানী দেয়া হয়। আগামী ব্যাচের জন্য ভর্তি কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

বা/খ: এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

মঠবাড়িয়ায় বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ শেষে ৭৫ জনকে সনদ প্রদান

আপডেট সময় : ০১:৫২:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি :

নারীদের স্বাবলম্বী ও আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ৩ মাসব্যাপী ফ্রি প্রশিক্ষণ শেষে ৭৫ জন নারীকে সনদ প্রদান করা হয়েছে। এ সময় প্রত্যেক সদস্যকে ৩ মাসের সম্মানী বাবদ ৯ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর দ্বারা পরিচালিত এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ১১ মার্চ শনিবার সকালে সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহা পরিচালক ফরিদা পারভীন।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উর্মি ভৌমিক এর সভাপতিত্বে  উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈকত জামিল, পিরোজপুর জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলতাফ হোসেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন আকন, অফিস সহায়ক মারুফুজ্জামান ও বিভিন্ন গণ মাধ্যম কর্মিবৃন্দ।

সরেজমিনে উপজেলার হলতা গুলিশাখালী ইউনিয়নে বৃত্তিমূলক আবাসিক মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে দেখা গেছে, বিভিন্ন বয়সী নারীরা অত্যান্ত আগ্রহের সাথে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছেন। এখান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আত্মনির্ভরশীল ও স্বাবলম্বী হবার সুযোগ রয়েছে মঠবাড়িয়াসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলের নারীদের। বর্তমান প্যাকেজে কম্পিউটার ও সুইং মেশিন অপারেট বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটির প্রশিক্ষক মো. আব্দুর মন্নান জানান, বর্তমানে কম্পিউটার ও সুইং মেশিন অপারেট বিষয়ে প্রশিক্ষণ শেশে ৭৫ জন নারীকে সনদ ও সম্মানী প্রদান করা হয়েছে। ২০২০-২১ শিক্ষা বর্ষে গার্মেন্টস ও কম্পিউটার ট্রেনিং বিষয়ে ৩ মাস মেয়াদী প্রশিক্ষণে ভর্তির মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রমের শুভ সূচনা হয়।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন আকন বলেন, বর্তমানে ব্যাচে কম্পিউটার ও সুইং মেশিন অপারেট বিষয়ে ৭৫ জন নারীকে সনদ প্রদান করা হয়েছে এবং ৩ মাসের সম্মানী ব্যবৎ প্রত্যেকে ৯ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বছরে ৪ টি ব্যাচে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রশিক্ষণ গ্রহণকালীন তিন মাসে শিক্ষার্থীদের থাকা খাওয়া সম্পূর্ন ফ্রি। ট্রেনিং শেষে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে সনদ প্রদান ও দৈনিক ১‘শ টাকা হারে সম্মানী দেয়া হয়। আগামী ব্যাচের জন্য ভর্তি কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

বা/খ: এসআর।