ঢাকা ০৪:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পারিবারিক কলহের জের

ভোলায় ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

ভোলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:৩১:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৫১১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভোলায় পারিবারিক কলহকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে টুলু নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। শনিবার (২৫ নভেম্বর) সকাল ৭ টার দিকে  সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড ভাঙ্গা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
ইলিশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ পরিদর্শক (এসআই) মো. গোলাম মোস্তফা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
টুলু ওই ইউনিয়নের মো. রহমান চোকদারের ছেলে এবং দুই সন্তানের জনক।
অভিযুক্ত ফারুকও একই ইউনিয়নের বাসিন্দা। নিহত টুলু এবং অভিযুক্ত ফারুক রাজাপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেদুয়া সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাস করেন।

এসআই গোলাম মোস্তফা আরো জানান, তাৎক্ষণিকভাবে জানা গেছে টুলু ও ফারুক মেদুয়া সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরে বসবাস করে। গতকাল টুলু ও ফারুকের মধ্যে পারিবারিক কারনে ঝগড়াঝাটি হয়েছে। তাদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ রয়েছে পূর্ব থেকে। ওই বিরোধের জের ধরে ফারুক ছুরিকাঘাতে টুলুকে হত্যা করেছে। ঘটনার পর ফারুক পালিয়ে গেছে। পুলিশ রক্তাক্ত ছুরি জব্দ করেছে। টুলুর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর কার্যক্রম চলছে।

ভোলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মো. মামুন অর রশিদ জানান, ঘটনার পর থেকে পুলিশ অভিযুক্ত ফারুককে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না, এ ঘটনায় শুধু ফারুকই জড়িত নাকি অন্য কেউ এর সাথে জড়িত  আছে। পুলিশ তদন্ত করে এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নিবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

পারিবারিক কলহের জের

ভোলায় ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

আপডেট সময় : ১২:৩১:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২৩

ভোলায় পারিবারিক কলহকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে টুলু নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। শনিবার (২৫ নভেম্বর) সকাল ৭ টার দিকে  সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড ভাঙ্গা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
ইলিশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ পরিদর্শক (এসআই) মো. গোলাম মোস্তফা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
টুলু ওই ইউনিয়নের মো. রহমান চোকদারের ছেলে এবং দুই সন্তানের জনক।
অভিযুক্ত ফারুকও একই ইউনিয়নের বাসিন্দা। নিহত টুলু এবং অভিযুক্ত ফারুক রাজাপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেদুয়া সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাস করেন।

এসআই গোলাম মোস্তফা আরো জানান, তাৎক্ষণিকভাবে জানা গেছে টুলু ও ফারুক মেদুয়া সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরে বসবাস করে। গতকাল টুলু ও ফারুকের মধ্যে পারিবারিক কারনে ঝগড়াঝাটি হয়েছে। তাদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ রয়েছে পূর্ব থেকে। ওই বিরোধের জের ধরে ফারুক ছুরিকাঘাতে টুলুকে হত্যা করেছে। ঘটনার পর ফারুক পালিয়ে গেছে। পুলিশ রক্তাক্ত ছুরি জব্দ করেছে। টুলুর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর কার্যক্রম চলছে।

ভোলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মো. মামুন অর রশিদ জানান, ঘটনার পর থেকে পুলিশ অভিযুক্ত ফারুককে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না, এ ঘটনায় শুধু ফারুকই জড়িত নাকি অন্য কেউ এর সাথে জড়িত  আছে। পুলিশ তদন্ত করে এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নিবে।