ঢাকা ১২:২৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ভুল চিকিৎসা নয় বিরল রোগে সুহানির মৃত্যু

বিনোদন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১২:৫৬:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৬৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মাত্র ১৯ বছরে মারা গেলেন ‘দঙ্গল’ খ্যাত অভিনেত্রী সুহানি ভাটনাগর। ভক্তরা এই খবরে রীতিমতো বাকরুদ্ধ হয়েছেন। গত শনিবার অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসতেই ভীষণ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। কখনও কখনও শোনা গিয়েছিল, ভুল চিকিৎসাই অভিনেত্রীর মৃত্যুর কারণ। তবে এমনটা নয়; সত্যিই কী হয়েছিল অভিনেত্রীর—সেই প্রশ্নেরই উত্তর দিয়েছেন সুহানির বাবা পুনীত ভাটনাগর।

ভারতীয় গণমাধ্যমকে পুনীত জানিয়েছেন, ডার্মাটোমায়োসাইটিস নামের বিরল এক রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন অভিনেত্রী। হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। এটি একটি রেয়ার কন্ডিশন। যা ত্বক, মাসল, ফুসফুসসহ শরীরের একাধিক অঙ্গকে প্রভাবিত করতে পারে।

পুনীত জানান, মাস দুয়েক আগে সুহানির দুই হাত ফুলতে শুরু করেছিল। সেই সময় তাঁকে স্টেরয়েড দেওয়া হয়েছিল। কারণ এই অসুখের এটিই নাকি একমাত্র ওষুধ ছিল।

জানা গেছে, স্টেরয়েডের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় সুহানির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। তাঁর ফুসফুস দুর্বল হয়ে গিয়েছিল। সেখানে পানি জমে গিয়েছিল। ফলে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা বেড়ে যায়। গত ১০ দিন ধরে দিল্লির এইমসে ভর্তি ছিলেন এই তরুণী। অবশেষে সবাইকে কাঁদিয়ে শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন হরিয়ানার মেয়ে সুহানি। সেখানেই তাঁর শেষকৃত্য হয়।

প্রসঙ্গত, আমির খানের ‘দঙ্গল’ সিনেমায় কুস্তিগীর ববিতা ফোগাতের ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সুহানি। তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১৪। এর আগে একাধিক বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেছিলেন। তবে এই সিনেমা দিয়েই খ্যাতি পান তিনি। সিনেমাটির সাফল্যের পর একাধিক কাজের প্রস্তাব পেয়েছিলেন সুহানি। তবে সেই সময় অভিনয় থেকে বিরতি নিয়ে পড়াশোনায় মন দেন তিনি।

অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, আগে নিজের পড়াশোনা ভালোভাবে শেষ করতে চান। পরে আবারও অভিনয় জগতে ফিরবেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন আজ অধরাই রয়ে গেল।

নিউজটি শেয়ার করুন

ভুল চিকিৎসা নয় বিরল রোগে সুহানির মৃত্যু

আপডেট সময় : ১২:৫৬:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

মাত্র ১৯ বছরে মারা গেলেন ‘দঙ্গল’ খ্যাত অভিনেত্রী সুহানি ভাটনাগর। ভক্তরা এই খবরে রীতিমতো বাকরুদ্ধ হয়েছেন। গত শনিবার অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসতেই ভীষণ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। কখনও কখনও শোনা গিয়েছিল, ভুল চিকিৎসাই অভিনেত্রীর মৃত্যুর কারণ। তবে এমনটা নয়; সত্যিই কী হয়েছিল অভিনেত্রীর—সেই প্রশ্নেরই উত্তর দিয়েছেন সুহানির বাবা পুনীত ভাটনাগর।

ভারতীয় গণমাধ্যমকে পুনীত জানিয়েছেন, ডার্মাটোমায়োসাইটিস নামের বিরল এক রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন অভিনেত্রী। হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। এটি একটি রেয়ার কন্ডিশন। যা ত্বক, মাসল, ফুসফুসসহ শরীরের একাধিক অঙ্গকে প্রভাবিত করতে পারে।

পুনীত জানান, মাস দুয়েক আগে সুহানির দুই হাত ফুলতে শুরু করেছিল। সেই সময় তাঁকে স্টেরয়েড দেওয়া হয়েছিল। কারণ এই অসুখের এটিই নাকি একমাত্র ওষুধ ছিল।

জানা গেছে, স্টেরয়েডের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় সুহানির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। তাঁর ফুসফুস দুর্বল হয়ে গিয়েছিল। সেখানে পানি জমে গিয়েছিল। ফলে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা বেড়ে যায়। গত ১০ দিন ধরে দিল্লির এইমসে ভর্তি ছিলেন এই তরুণী। অবশেষে সবাইকে কাঁদিয়ে শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন হরিয়ানার মেয়ে সুহানি। সেখানেই তাঁর শেষকৃত্য হয়।

প্রসঙ্গত, আমির খানের ‘দঙ্গল’ সিনেমায় কুস্তিগীর ববিতা ফোগাতের ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সুহানি। তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১৪। এর আগে একাধিক বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেছিলেন। তবে এই সিনেমা দিয়েই খ্যাতি পান তিনি। সিনেমাটির সাফল্যের পর একাধিক কাজের প্রস্তাব পেয়েছিলেন সুহানি। তবে সেই সময় অভিনয় থেকে বিরতি নিয়ে পড়াশোনায় মন দেন তিনি।

অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, আগে নিজের পড়াশোনা ভালোভাবে শেষ করতে চান। পরে আবারও অভিনয় জগতে ফিরবেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন আজ অধরাই রয়ে গেল।