বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৩৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বৃহস্পতিবার থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট ১৬ বছর পর ডেনমার্ককে হারিয়ে শেষ ষোলো’তে অস্ট্রেলিয়া চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনিসিয়ার কান্না রাউজানে ডাকাতির ঘটনায় র‌্যাবের হাতে আরো এক ডাকাত আটক রাউজানে স্কুল থেকে ফেরার পথে ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় যুবক কারাগারে রাউজানে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার ‘আওয়ামী লীগ গরীব দুখী মেহনতি মানুষের কল্যানে রাজনীতি করে’ -কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি মুহিব ডিমলায় বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা রিজার্ভ কমে ৩৩ বিলিয়নে নেমেছে নিউজিল্যান্ডদের কাছে সিরিজ হারল ভারত তিন নারী রেফারি, ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ কীর্তি সুরেশের বিয়ে প্রফেসর মযহারুল ইসলাম ॥ শ্রদ্ধাঞ্জলি সিটি করপোরেশনে মহামারি বিশেষজ্ঞ পদসৃষ্টির প্রস্তাব পেয়েছি : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সফরে আসছে ভারত

ভারতের ‘প্রথম ভোটার’ খ্যাত নেগি মারা গেছেন

ভারতের ‘প্রথম ভোটার’ খ্যাত নেগি মারা গেছেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন স্বাধীন ভারতের প্রথম ভোটার শ্যামশরণ নেগি। শনিবার (৫ নভেম্বর) ভোররাতে হিমাচল প্রদেশের কিন্নৌরের নিজ বাড়িতে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ১০৬ বছর। মারা যাওয়ার তিন দিন আগেও এই অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হিমাচল রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে ভোট দিয়েছিলেন।

শ্যামশরণ নেগি ১৯১৭ সালের ১ জুলাই হিমাচল প্রদেশে জন্মগ্রহণ করেন। নেগি প্রথম ভোট দিয়েছিলেন ব্রিটিশ শাসন থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর ভারতের প্রথম সাধারণ নির্বাচনে। ১৯৫২ সালের নির্বাচনের সময়ে নেগির রাজ্যে তুষারপাতের শঙ্কায় পাঁচ মাস আগে ১৯৫১ সালেই ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়। আর তাতে তিনি ভোট দিয়েছিলেন। এরপর থেকে নেগি প্রতিটি নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেস ভারতের সেই প্রথম সাধারণ নির্বাচনে বড় জয় পায়। আর জওহরলাল নেহেরু ভারতে প্রথম গণতান্ত্রিকভাবে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।

সবশেষ চলতি বছরের ১২ নভেম্বর হিমাচল বিধানসভা নির্বাচনেও তিনি ভোট দেন। সেই ভোটটিই তাঁর জীবনের শেষ ভোট হয়ে রইল। ভারতীয় নির্বাচন কমিশন তাঁর জন্য পোস্টাল ব্যালটের ব্যবস্থা করেছিল। শ্যামশরণ নেগির মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর। কিন্নৌরের জেলা শাসক আবিদ হুসেন জানান, যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে দেশের প্রথম ভোটারের শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।

২০১৪ সালে নেগি ভারতের নির্বাচন কমিশনের দূত হয়েছিলেন লোকজনকে ভোটে উৎসাহ দিতে। গুগলের একটি ভিডিওতে তাকে দেখা গেছে ওই বছরের সাধারণ নির্বাচনে তিনি লোকজনকে ভোট দিতে উৎসাহ দিচ্ছেন।

আনন্দবাজার জানায়, গত কয়েকদিন ধরেই বার্ধক্যজনিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন নেগি। পোস্টাল ব্যালটের মাধ্যমে ভোট দেওয়ার সময়েও তাঁর শরীর অত্যন্ত খারাপ ছিল। তিনি এক প্রকার শয্যাশায়ী ছিলেন। আনন্দবাজার আরও জানায়, হিমাচলের ১৪টি বিধানসভা ভোটেই গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের রেকর্ড গড়েছেন কল্পা গ্রামের এই বৃদ্ধ। তাঁর জীবনীশক্তি, ভোটাধিকার প্রয়োগের প্রতি তাঁর আগ্রহকে সম্মান জানায় সবাই।

শনিবার (৫ নভেম্বর) এক নির্বাচন র‌্যালিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেগির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। দেশটির সরকার বলছে, পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় নিজ গ্রাম কালপায় তাকে দাহ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *